Alexa

রাজু ভাস্কর্যে ফের ছাত্রলীগের পদবঞ্চিতদের অবস্থান

রাজু ভাস্কর্যে ফের ছাত্রলীগের পদবঞ্চিতদের অবস্থান

রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে অবস্থান নিয়েছে ছাত্রলীগের কমিটিতে পদবঞ্চিতরা, ছবি: বার্তা২৪.কম

ফের ঢাকা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে অবস্থান নিয়েছে ছাত্রলীগের কমিটিতে পদবঞ্চিত ও প্রত্যাশিত পদ না পাওয়া নেতা-কর্মীরা। এ সময় ‘বিতর্কিতদের বাদ দিয়ে কমিটি পুনর্গঠন না করা পর্যন্ত রাজু ভাস্কর্যে অবস্থান করবেন বলেও ঘোষণা দিয়েছেন তাঁরা।

অবস্থানকারীদের অভিযোগ, ছাত্রলীগ নেতারা শুনছেন না প্রধানমন্ত্রীর কথা। প্রধানমন্ত্রী বিতর্কিতদের বাদ দিয়ে যোগ্যদের সমন্বয়ে কমিটি পুনর্গঠনের তাগিদ দিলেও ছাত্রলীগ নেতারা প্রধানমন্ত্রীর কথার তোয়াক্কা করেননি। বরং তারা জাতির পিতার প্রতিকৃতিকে অবমাননা করার জন্য বিতর্কিতদের নিয়ে ফুল দেবেন বলে প্রেস বিজ্ঞপ্তি দিয়েছেন।

রোববার (২৬ মে) মধ্যরাত থেকে রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে অবস্থান নেন ছাত্রলীগের পদবঞ্চিত অংশের নেতা-কর্মীরা।

এর আগে রোববার রাতে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের স্বাক্ষরিত একটি সংবাদ বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হয়। বিজ্ঞপ্তিতে সংগঠনের নবগঠিত পূর্ণাঙ্গ কমিটির সবাইকে নিয়ে সোমবার সকালে ধানমণ্ডিতে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন করা হবে বলে জানানো হয়। বিজ্ঞপ্তির প্রতিক্রিয়ায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ শুরু করে ছাত্রলীগের কমিটিতে পদবঞ্চিত ও প্রত্যাশিত পদ না পাওয়া অংশটি।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/May/27/1558915565430.jpg

সোমবার সকালে এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত পদবঞ্চিতরা রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে অবস্থান নিয়ে নিজেদের দাবির পক্ষে অনড় রয়েছেন।

এ সময় ডাকসুর সদস্য ও পদবঞ্চিত অংশের নেতা তানভীর হাসান সৈকত বার্তা২৪.কমকে বলেন, 'এর আগে আমরা যখন আন্দোলন করেছিলাম তখন আওয়ামী লীগের চারনেতা আমাদের প্রতিনিধিদলকে আশ্বাস দিয়েছেন যে তারা আমাদের দাবি মেনে নিয়েছেন। তারা অল্প কয়েকদিনের মধ্যে তা বাস্তবায়ন করবেন।

এর প্রেক্ষিতে আমরা অবস্থান কর্মসূচি স্থগিত করেছিলাম। এরপর থেকে আমরা তাদের সাথে বিভিন্নভাবে দেখা সাক্ষাৎ করেছি কিন্তু কোনো সমাধান পাইনি। আমাদের ওপর হামলাকারীদের বহিষ্কার না করে হামলার শিকার হওয়া জারিন দিয়া এবং লিপিকে শোকজ করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করার কথা থাকলেও সেটারও ব্যবস্থা করা হয়নি।

আজকে (২৭ মে) তারা সকালে রাজাকারের সন্তান, বিবাহিত, মাদকসেবী এবং বিতর্কিতদের নিয়ে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদনের ঘোষণা দেন। এটা আসলে খুবই লজ্জাজনক এবং আমাদের সঙ্গে যে উপহাস করেছে তার স্পষ্ট প্রমাণ। তাই আমরা আর কারো কথা শুনতে চাই না। আমরা এখন একমাত্র আপার (প্রধানমন্ত্রীর) আশায় বসে আছি। আর এই বিতর্কিতদের বাদ দিয়ে যারা যোগ্য তাদের পদ দেওয়ার জোর দাবি জানাচ্ছি।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/May/27/1558915380258.jpg

প্রসঙ্গত, ছাত্রলীগের আংশিক কমিটি প্রকাশের প্রায় ১০ মাস পর গত ১৩মে ঘোষণা করা হয় সংগঠনের ৩০১ সদস্যের পূর্ণাঙ্গ কমিটি। ওই দিন সন্ধ্যায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যানটিনে পদবঞ্চিত ও প্রত্যাশিত পদ না পাওয়া ছাত্রলীগের বিক্ষুব্ধ নেতা-কর্মীরা সংবাদ সম্মেলন করতে গেলে সংগঠনের বর্তমান সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের অনুসারীরা তাদের ওপর হামলা চালায়। এতে কয়েকজন নারী নেত্রীসহ ১০-১২ জন আহত হন। এ ঘটনা নিয়ে আন্দোলনে নামেন পদবঞ্চিতরা। পরে আওয়ামী লীগের জ্যেষ্ঠ নেতাদের আশ্বাসে তাঁরা আন্দোলন থেকে সরে দাঁড়ান।

আপনার মতামত লিখুন :