অবশেষে অধ্যাপক ফারুকের পক্ষে ঢাবি শিক্ষক সমিতির বিবৃতি

ঢাবি করেসপন্ডেন্ট, বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম, ঢাকা
অধ্যাপক আ ব ম ফারুক

অধ্যাপক আ ব ম ফারুক

  • Font increase
  • Font Decrease

দুধ নিয়ে গবেষণার প্রতিবেদন প্রকাশের পর একজন অতিরিক্ত সচিব কর্তৃক হুমকির দীর্ঘদিন পরে এসে অধ্যাপক আ ব ম ফারুকের পক্ষে বিবৃতি দিয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি।

মঙ্গলবার (২৩ জুলাই) সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. এ এস এম মাকসুদ কামাল এবং সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াতুল ইসলাম স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে হুমকির ঘটনার নিন্দা জানানো হয়।

সারাদেশে আ ব ম ফারুকের গবেষণা নিয়ে ব্যাপক আলোচনা ও তাকে হেনস্তার প্রতিবাদে দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের ৬৬ জন শিক্ষকের বিবৃতি, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের মানববন্ধন, শিক্ষার্থীদের প্রতিবাদ হলেও ঢাবি শিক্ষক সমিতির কোন বিবৃতি না দেওয়ায় সমালোচনা হয়।

এ বিষয়ে সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. এ এস এম মাকসুদ কামাল বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকদের মধ্যে এ বিষয় নিয়ে দুটি ভাগ ছিল, আমরা ইমোশনালি কোন সিদ্ধান্ত নিতে পারি না। তাই বিষয়টি আমরা প্রথম থেকে আলোচনা করে আসছি। আমরা দেরিতে নয় বরং পূর্ণ বিবেচনা ও সভা করে সবার মতামত নিয়ে সর্বসম্মতিক্রমে সিদ্ধান্ত নিয়েছি। আমাদের প্রতিবাদ্য বিষয় গবেষকদের গবেষণায় হস্তপেক্ষ করা নিয়ে নয়, প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের একজন অতিরিক্ত সচিব যে দুর্ব্যবহার করেছেন তার বিপক্ষে।

তবে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন শিক্ষক বলেন, সামনে উপাচার্য প্যানেলের জন্য ভোটারদের বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে শিক্ষক সমিতি এখন বিবৃতি দিয়েছে। এই বিবৃতি ঘটনার পরপরই দেওয়া উচিত ছিল।

বিবৃতিতে বলা হয়, সম্প্রতি অধ্যাপক ফারুকের পর পর দু’টি গবেষণায় বাজারের বিভিন্ন ব্র্যান্ডের পাস্তুরিত তরল দুধে অ্যান্টিবায়োটিকসহ মানবদেহের জন্য ক্ষতিকর রাসায়নিক উপাদান থাকার কথা গণমাধ্যমে প্রকাশ হয়। এর পরই মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের একজন অতিরিক্ত সচিব গবেষণা-বিশ্লেষণকে ভুল এবং অধ্যাপক ফারুকের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার হুমকি দেন। এরই ধারাবাহিকতায় সম্প্রতি ৭১ টেলিভিশনের একটি টক-শোতে অধ্যাপক ফারুকের সঙ্গে ওই সচিব যে রূঢ় ও অসৌজন্যমূলক আচরণ করেছেন তা অনাকাঙ্ক্ষিত ও শিষ্টাচার বহির্ভূত। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি এ হেন আচরণের তীব্র নিন্দা জ্ঞাপন করছে।

আপনার মতামত লিখুন :