গাছে কাফন পরিয়ে জাবি শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ

জাবি করেসপন্ডেন্ট, বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম
কেটে ফেলা গাছে কাফনের কাপড় জড়িয়ে বিক্ষোভ করছেন জাবি শিক্ষার্থীরা/ ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

কেটে ফেলা গাছে কাফনের কাপড় জড়িয়ে বিক্ষোভ করছেন জাবি শিক্ষার্থীরা/ ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে (জাবি) অধিকতর উন্নয়ন প্রকল্পের অধীনে হল নির্মাণের স্থলে গাছ কাটতে শুরু করলে শিক্ষার্থীদের বাধায় তা পণ্ড হয়ে যায়। পরবর্তীতে কাটা গাছে কাফনের কাপড় পরিয়ে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেন শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা।

শুক্রবার (২৩ আগস্ট) সকালে নির্মাণ কোম্পানির শ্রমিকরা বিশ্ব কবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর হলের দক্ষিণ ও পূর্ব পাশের শতাধিক গাছ কাটার পর শিক্ষার্থীরা বাধা দেন। গাছ কাটার ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে শিক্ষার্থীদের মাঝে ব্যাপক প্রতিক্রিয়া দেখা যায়।

তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় বিকাল সাড়ে ৩টায় কাটা গাছের গুড়িতে কাফনের কাপড় মুড়িয়ে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর হলের সামনে থেকে বিক্ষোভ মিছিল শুরু করেন শিক্ষার্থীরা।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Aug/23/1566568342456.jpg

মিছিলটি ক্যাম্পাসের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে উপাচার্যের বাস ভবনের সামনে গিয়ে প্রতিবাদ সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়।

বিক্ষোভের আগে প্রস্তাবিত হল নির্মাণের স্থানে একটি প্রতিবাদী পথ নাটক প্রদর্শন করে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় থিয়েটার।

মিছিল শেষে প্রতিবাদ সমাবেশে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় সাংস্কৃতিক জোট, ছাত্র ইউনিয়ন, ছাত্র ফ্রন্ট, বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের নেতারা বক্তব্য রাখেন।

এছাড়া শিক্ষার্থীদের এই আন্দোলনে সংহতি প্রকাশ করে বক্তব্য রাখেন পরিবেশ বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক জামাল উদ্দিন রুনু, বাংলা বিভাগের অধ্যাপক শামীমা সুলতানা, দর্শন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক রায়হান রাইন প্রমুখ।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Aug/23/1566568363516.jpg

প্রতিবাদ সভায় জাহাঙ্গীরনগর সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি আশিকুর রহমান বলেন, ‘জানতে পেরেছি উন্নয়ন কাজের টাকা ভাগাভাগির ব্যাপারে যখন সাংবাদিকরা জেনে যান, তখন তাদেরকে ভয়ভীতি দেখানোর চেষ্টা করা হয়েছে। শোকের মাসে ছাত্রলীগ এ দেশের গরীবের টাকা লুটপাট করতে উঠে পড়ে লেগেছে।’

দর্শন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক রায়হান রাইন বলেন, ‘যখন এই পরিকল্পনার বাস্তবায়ন শুরু হয়, তখন থেকেই প্রতিবাদ জানিয়ে আসছি। কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন তার অবস্থানে অটল। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন স্বৈরাচারী পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে।'

আপনার মতামত লিখুন :