হ্যাটট্রিকের আনন্দে উড়ছেন এনামুল

হ্যাটট্রিকসহ ৫ উইকেট নিয়েছেন এনামুল

একটা সময় বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের নিয়মিত সদস্য ছিলেন তিনি। অমিত সম্ভাবনা নিয়ে পথচলা শুরু হয়েছিল তার। টাইগারদের প্রথম টেস্ট জয়ের নায়ক এনামুল হক জুনিয়র। যদিও তার ক্যারিয়ারটা শেষ পর্যন্ত আক্ষেপের অন্য নাম হয়েই থেকেছে। সেই ২০১৩ সালের পর থেকেই নেই জাতীয় দলে।

তবে হাল ছাড়েন নি এনামুল। এই স্পিনার খেলে যাচ্ছেন ঘরোয়া ক্রিকেট লিগে। সেখানে সাফল্যটাও মন্দ না। এই যেমন বুধবার হ্যাটট্রিক করলেন তিনি। জাতীয় ক্রিকেট লিগের দ্বিতীয় স্তরের ম্যাচে কক্সবাজারে ঢাকা বিভাগের বিপক্ষে হ্যাটট্রিকসহ তুলে নিয়েছেন ৫ উইকেট।

১২০ ম্যাচের প্রথম শ্রেণির ক্যারিয়ারে ৩৪তম বারের মতো ইনিংসে পাঁচ উইকেট পেলেন এনামুল। তার চেয়ে এক ম্যাচ বেশি খেলে সমান ৩৪বার পাঁচ উইকেট নিয়েছেন আরেক স্পিনার আব্দুর রাজ্জাক। প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে ইনিংসে সবচেয়ে বেশি পাঁচ উইকেট নেয়ার রেকর্ডে রাজ্জাকের সঙ্গে তার লড়াইটা বেশ জমেছে।

এনামুলের স্পিনে বড় লিড নিতে পারেনি ঢাকা বিভাগ। ৩৪৬ রানে অলআউট তারা। সিলেট ১ম ইনিংসে করেছিল ২৩৮ রান। এরপর ২য় ইনিংসে নেমে বুধবার ম্যাচের তৃতীয় দিন শেষে তাদের সংগ্রহ ৪ উইকেট হারিয়ে ১০২ রান। প্রতিযোগিতামূলক ক্রিকেটে নিজের সবশেষ ইনিংসে রাজিন সালেহ অপরাজিত আছেন ৪০ রানে। এখনো ঢাকার সংগ্রহ স্পর্শ করতে ৬ রান চাই তাদের। এই হিসাবটাই বলে দিচ্ছে চাপে রয়েছে সিলেট।

ঢাকার ইনিংসের ৭৬তম ওভারের চতুর্থ বলে তাইবুর রহমানকে বোল্ড করে বুধবার হ্যাটট্রিক অভিযান শুুরু করেন এনামুল। পরের বলেই তুলে নেন আব্দুল মজিদের উইকেট। ১০৪ রানে ফিরেন তিনি। ওভারের শেষ বলে নাজমুল হাসান মিলনকে বোল্ড করে হ্যাটট্রিকের আনন্দে মাতেন এই স্পিনার। ৩৩ ওভারে ৮৭ রান দিয়ে নেন ৫ উইকেট।

সংক্ষিপ্ত স্কোর-

সিলেট ১ম ইনিংস: ২৩৮/১০
ঢাকা ১ম ইনিংস: ১১৪.৫ ওভারে ৩৪৬ (মজিদ ১০৪, তাইবুর ১৫, নাদিফ ২৮, মোশাররফ ৫০, মাহবুবুল ২, শাহাদাত ৩৪*; ইমরান ১/৪২, নাবিল ১/৫৪, ইবাদত ২/৫৯, এনামুল জুনিয়র ৫/৮৭, শাহানুর ১/৯৭)

সিলেট ২য় ইনিংস: ৪৯ ওভারে ১০২/৪ (ইমতিয়াজ ৮, শানাজ ১২, রাজিন ৪০*, কাপালি ৩৯, এনামুল জুনিয়র ২*; শাহাদাত ২/১৯, তাইবুর ১/২৮, শুভাগত ১/২৬)

খেলা এর আরও খবর