স্বাধীনতা কাপে জয়ে শুরু আবাহনীর

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
গোলের আনন্দে উড়ছেন ফয়সাল

গোলের আনন্দে উড়ছেন ফয়সাল

  • Font increase
  • Font Decrease

কিছুতেই গোলের দেখা মিলছিল না। প্রথমার্ধের পুরোটা সময় বল দখলের লড়াইয়ে এগিয়ে ছিল আবাহনী। কিন্তু নিশানা খুঁজতে গিয়ে বারবারই ব্যর্থ! কিন্তু কে জানতো দ্বিতীয়ার্ধের জন্যই জমা আছে সব চমক? প্রথমার্ধ গোলশূন্য থাকার ম্যাচের ভাগ্য নির্ধারিত হয়েছে দ্বিতীয়ার্ধে। ফয়সাল আহমেদের জোড়া গোলে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ক্রীড়া চক্রকে হারায় আবাহনী লিমিটেড।

রোববার ২-১ গোলের জয়ে স্বাধীনতা কাপে ফুটবলে শুভসূচনা করেছে আবাহনী।

বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে ‘সি’ গ্রুপের ম্যাচে শুরু থেকেই দাপট ছিল আবাহনীর। মৌসুমের প্রথম ফুটবল টুর্নামেন্ট ফেডারেশন কাপ জয়ী দলটি অবশ্য শুরুতে গোলের জন্য হাহাকারই করেছে। এরমধ্যে খেলার ৭ মিনিটে
দুঃসংবাদ হয়ে আসে দলের গোলকিপার শহীদুল ইসলাম সোহেলের ইনজুরি। প্রতিপক্ষের ফুটবলার ইউসুকে কাতোর ফ্রি কিকে হেড নেন ফরোয়ার্ড ইউনুসা কামারা। আর সেই বল লাফিয়ে উঠে সামাল দিতে গিয়ে সোহেলের সঙ্গে তার সংঘর্ষ হয়। চোট নিয়ে মাঠ ছাড়েন কামারা-সোহেল দু'জনই!

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2018/Dec/02/1543751664591.jpg

খেলার ৫২তম মিনিটে এগিয়ে যেতে পারতো আবাহনী। কিন্তু রুবেল মিয়ার ফ্রি-কিকে আতিকুর রহমান ফাহাদের হেড ক্রসবারে চুমু খেয়ে আশ্রয় নেয় মাঠের গ্যালারিতে। ৭৬তম মিনিটে গোলের দেখা পায় আবাহনী। কোরিয়ান মিডফিল্ডার কোর পাস বাড়ান রুবেলের কাছে। এরপর রুবেলের কাছ থেকে বল পেয়ে গোল করতে ভুল করলেন না ফয়সাল। আনন্দে ভেসে যায় আবাহনীর গ্যালারিতে হাজির দর্শকরা। মিনিট খানেক পরই ব্যবধান দ্বিগুণ করেন সেই ফয়সাল (২-০)।

খেলার অতিরিক্ত সময়ে স্পট কিকে ব্যবধান কমায় মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ক্রীড়া চক্র। গোলদাতা ইউসুকে কাতো। ডি-বক্সের মধ্যে জাপানের এই মিডফিল্ডারই ফাউলের শিকার হলে পেনাল্টির বাঁশি বাজাতে দেরি করেন নি রেফারি। স্পট কিক থেকে গোল করে তিনি শুধু ব্যবধানটাই কমিয়েছেন। শেষ পর্যন্ত হাসিমুখেই মাঠ ছাড়ে আবাহনী।

আপনার মতামত লিখুন :