Alexa

মেজাজ হারানো মাহমুদউল্লাহ বললেন- ‘কাজটা উচিত হয়নি’

মেজাজ হারানো মাহমুদউল্লাহ বললেন- ‘কাজটা উচিত হয়নি’

আরেকটি হার দেখল মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের দল

এবারের বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগটা (বিপিএল) যেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের কাছে দুঃস্বপ্নের অন্য নাম! চার ম্যাচে খেলেছেন, হার চারটিতেই। কিছুতেই জয় ধরা দিচ্ছে না। শনিবার সন্ধ্যায় একটুর জন্য ফস্কে গেল জয়। বিপিএল ইতিহাসের প্রথম সুপার ওভারে নাটকীয়তা ছড়াল। শেষ পর্যন্ত চিটাগং ভাইকিংসের কাছে ১ রানে হেরে গেল খুলনা টাইটানস।

মিরপুরে প্রথমে দুই দলই আটকে যায় ১৫১ রানে। তারপর সুপার ওভারে হার মানে রিয়াদের দল। ম্যাচটা হেরে মাথা ঠিক রাখতে পারেন নি তিনি। খুলনার অধিনায়ক অবশ্য শেষে ভুলটা বুঝতে পারলেন। তিনি বলেন, ‘দেখুন, গত ১১-১২ বছর ধরে অনেক চাপ নিয়েছি। হয়তোবা আজকে কিছুটা উত্তেজিত হয়ে গিয়েছিলাম। কাজটা উচিত হয়নি। এটা হয়তো খেলোয়াড়দের উপর প্রভাব ফেলে। চেষ্টা করবো পরবর্তী সময়ে শান্ত থাকার।’

এমন উত্তেজনা ছড়ানো ম্যাচে নিজেকে শান্ত রাখা যায় কি? যায় না বলেই ঠান্ডা মেজাজের এই ক্রিকেটারটিও উত্তেজিত হয়ে উঠেন। চিটাগং ভাইকিংসের বিপক্ষে শেষ ওভারে ডিফেন্ড করার জন্য ১৮ রান পায় খুলনা। তখন টুর্নামেন্টে প্রথমবারের মতো আরিফুল হকের হাতে বল তুলে দেন মাহমুদউল্লাহ। কিছুটা ঝুঁকিই নিয়েছিলেন তিনি। তার মাশুল গুনতে হয়। ওভার থেকে ৩ ছক্কায় আসে ১৮ রান।

কেন এই ঝুঁকি?

আরিফুলকে কেন বল দিলেন, এনিয়ে মাহমুদউল্লাহ বলছিলেন, ‘তখন অফস্পিনটা হয়তোবা একটু কঠিন হতো। শেষ ওভারে ১৯ রান, আমি ভাবলাম আরিফ ভালো অপশন। ও হয়তো ওয়াইড ইয়র্কার করবে! কিন্তু হয়নি দূর্ভাগবশত। দুইটা সময় আমাদের ম্যাচ জেতার সুযোগ ছিল। টানা তিনটি ম্যাচ হেরে যাওয়ার পর আজকে ভালো একটি সুযোগ ছিল। কিন্তু আমরা দুইবারই সুযোগটা হারালাম। সুপার ওভারে ১১ রান বড় কোন লক্ষ্য না। এটা চেজঅ্যাবল।’

তবে রিয়াদ মনে করেন তার আগেই জেতা উচিত ছিল। শনিবার বিপিএলের এই ম্যাচ শেষে জানাচ্ছিলেন, ‘কেউই আসলে সুপার ওভার চায় না। কোন অধিনায়কই সুপার ওভার খেলতে চাইবে না। আগেই বললাম, ১ ওভারে ১৯ রান ডিফেন্ড করা আমাদের উচিত ছিল। সুপার ওভারেও ১২ রান চেজ করা উচিত ছিল। কিন্তু আমরা পারিনি। এখন টুর্নামেন্টটি আমাদের কঠিন হয়ে গেছে। ৮ টা ম্যাচের মধ্যে আমাদের ৫ থেকে ৬ টা ম্যাচ জিততেই হবে।’

স্থানীয় বোলাররা কি কঠিন পরিস্থিতিতে চাপ নিতে পারছে না? সাম্প্রতিক সময়ে চাপের মুখে ভেঙে পড়ার আরেক দৃষ্টান্ত আরিফুল। যিনি ১৮ রান নিয়েও ৬ বলে লড়তে পারলেন না। মাহমুদউল্লাহ বললেন, ‘আমার কাছে মনে হয় আমরা চাপটা নিতে পারছি না। কারন এই ধরনের পরিস্থিতিতে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে শুরুটা কিভাবে করছি। শুরুটা ভালো হলে শেষটা হয়ে যায়। আরিফুলের কাছে আমার ম্যাসেজ ছিল প্রথম বলটা ভালো করা। খারাপ হয়ে গেলে চাপটা ধরে রাখা কঠিন।’

আপনার মতামত লিখুন :