Barta24

রোববার, ২৫ আগস্ট ২০১৯, ১০ ভাদ্র ১৪২৬

English

মিস তুর্কি থেকে মিসেস ওজিল!

মিস তুর্কি থেকে মিসেস ওজিল!
মেসুত ওজিল ও আমিন গুলসে
সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

জীবন আসলেই কারো জন্য থেমে থাকে না! ম্যান্ডি ক্যাপরিস্তোর সঙ্গে সম্পর্কটা ভেঙে যেতেই চুপসে গিয়েছিলেন মেসুত ওজিল। জার্মান এই গায়িকার সঙ্গে অনেক দিনের সম্পর্ক। কিন্তু হঠাৎ ঝড়ে সব শেষ! তবে নতুন মনের মানুষ খুঁজে নিতে দেরি করেন নি আর্সেনালের এই জার্মান ফুটবলার। আমিন গুলসে নামের সেই সাবেক মিস তুর্কির সঙ্গে এবার বাগদান করলেন এই মিডফিল্ডার। ২০১৪ সালে মিস তুর্কি খেতাব জেতা সুন্দরীই হতে যাচ্ছেন ওজিলের ঘরণী!

ওজিল নিজেও তুর্কি বংশোদ্ভূত। এ কারণে পূর্ব পুরুষদের সংস্কৃতি মেনেই বাগদান করেন দু'জন। ম্যান্ডির সঙ্গে সম্পর্ক ভাঙতেই মডেল আমিন গুলসের সঙ্গে জড়িয়ে যান ওজিল। সেই সম্পর্কটার আইনি স্বীকৃতি মিলল এবার। মিস তুর্কি থেকে গুলস হতে যাচ্ছেন মিসেস ওজিল!

সেই ২০১৭ সালের মার্চ থেকেই গোপনে প্রেম চলছিল ওজিল ও গুলসের। তবে এনিয়ে মুখ খুলেন নি কেউই। অবশেষে বাগদান করেই সম্পর্কের মজবুত একটা ভিত্তি দিয়েছেন বিশ্বকাপ জয়ী জার্মান এই ফুটবলার। আপাতত লন্ডনেই বাস করবেন তারা। কারণ ক্লাব ফুটবলে ওজিল খেলছেন আর্সেনালে। জার্মান জাতীয় দলে তার জায়গা নেই। রাশিয়া বিশ্বকাপে তাকে সাইডলাইনেই রেখেছিল টিম ম্যানেজম্যান্ট।

একইসঙ্গে আর্সেনালের হয়েও সময়টা ভাল কাটছে না তারকা এই প্লেমেকারের। প্রথম একাদশে জায়গা পাচ্ছেন না। শনিবার ওয়েস্টহ্যামের বিপক্ষে ম্যাচেও তাকে অবজ্ঞা করেছেন কোচ উনাই এমেরি। অনেকেই বলছেন গানারদের হয়ে অধ্যায় শেষ হয়ে যাচ্ছে ৩০ বছর বয়সী এই ফুটবলারের।

আপনার মতামত লিখুন :

কলম্বোতে রানের পাহাড় গড়ছে নিউজিল্যান্ড

কলম্বোতে রানের পাহাড় গড়ছে নিউজিল্যান্ড
বিজে ওয়াটলিংয়ের সঙ্গে অসাধারণ জুটি গড়েন সেঞ্চুরিয়ান লাথাম, ছবি: সংগৃহীত

ব্যাট হাতে ওপেনার টম লাথামের দুরন্ত সেঞ্চুরির পর নিউজিল্যান্ড পেয়েছে বিজে ওয়াটলিং আর কলিন ডি গ্র্যান্ডহোমের দুর্দান্ত জুটি। ব্যাটসম্যানদের অসাধারণ এ দৃঢ়তায় একটু একটু করে রানের পাহাড় গড়ে যাচ্ছে সফরকারীরা। চতুর্থ দিন শেষে দ্বিতীয় ও শেষ টেস্টের প্রথম ইনিংসে ৫ উইকেট হারিয়ে ৩৮২ রান তুলেছে কিউইরা।

সুবাদে বৃষ্টি বিঘ্নিত কলম্বো টেস্টে ১৩৮ রানের লিড নিয়ে ফেলেছে নিউজিল্যান্ড। এখনো তাদের হাতে আছে ৫ উইকেট।

৪ উইকেটে ১৯৬ রান নিয়ে দিনের খেলা শুরু করে ব্ল্যাক ক্যাপস শিবির উইকেট হারিয়ে মাত্র একটি। ১৮৬ রানের বিনিময়ে তারা হারায় কেবল সেঞ্চুরিয়ান লাথামকে। পঞ্চম উইকেটে ১৪৩ রানে ভাঙ্গে লাথাম-ওয়াটলিং জুটি। আগের দিনের ব্যক্তিগত ১১১ রানের ইনিংসটাকে বাড়িয়ে ১৫৪ রানে পৌঁছে দিয়ে সাজঘরে ফেরেন লাথাম।

প্রতিপক্ষের বোলার দিলরুয়ান পেরেরার কাছে লাথাম হার মানলেও ওয়াটলিং এখনো টিকে আছেন লড়াইয়ে। ব্যক্তিগত ২৫ রানের ইনিংস টেনে নিয়ে যাচ্ছেন সেঞ্চুরির পথে। ৮১ রানে এখনো ব্যাট হাতে উইকেট আকড়ে আছেন আগের দিনের অপরাজিত এ উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান। ৮৩ রানে অপরাজিত থেকে তাকে সঙ্গ দিচ্ছেন কলিন ডি গ্র্যান্ডহোম। চতুর্থ দিন শেষে ষষ্ঠ উইকেটে দুজনে মিলে গড়েছেন হার না মানা ১১৩ রানের পার্টনারশিপ।

শ্রীলঙ্কার হয়ে ৩টি উইকেট শিকার করেন দিলরুয়ান পেরেরা। একটি করে উইকেট নেন লাহিরু কুমারা ও লাসিথ এমবুলদেনিয়া।

পি সারা ওভালে ম্যাচের শুরুতে টস জিতে ব্যাট হাতে নেমে প্রথম ইনিংসে ২৪৪ রানেই গুটিয়ে যায় স্বাগতিক লঙ্কান শিবির।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

শ্রীলঙ্কা প্রথম ইনিংস: ২৪৪/১০ (ধনাঞ্জয়া ১০৯, করুনারত্নে ৬৫; সাউদি ৪/৬৩, বোল্ট ৩/৭৫)।

নিউজিল্যান্ড প্রথম ইনিংস: ৩৮২/৫ ব্যাটিং (লাথাম ১৫৪, ওয়াটলিং ৮১ ব্যাটিং, গ্র্যান্ডহোম ৮৩ ব্যাটিং; পেরেরা ৩/১১৪)।

আঘাতের ধকল কাটিয়ে মাঠে ফিরছেন স্মিথ

আঘাতের ধকল কাটিয়ে মাঠে ফিরছেন স্মিথ
নেটে ব্যাট হাতে নিজেকে ঝালিয়ে নিচ্ছেন স্টিভেন স্মিথ, ছবি: সংগৃহীত

মাঠের লড়াইয়ে ফিরতে যাচ্ছেন স্টিভেন স্মিথ। তবে প্রতিযোগিতামূলক কোনো ম্যাচে নয়। চলতি অ্যাশেজ সিরিজের অংশ হিসেবে ডার্বিশায়ারের বিপক্ষে একটি ট্যুর ম্যাচ খেলবেন বিশ্বের অন্যতম সেরা এ ব্যাটসম্যান।

ঘাড়ে বলের আঘাতের ধকল ইতোমধ্যে কাটিয়ে উঠেছেন স্টিভেন স্মিথ। এখন শতভাগ ফিট তিনি। পুরোপুরি সুস্থ হয়েই অস্ট্রেলিয়ার তারকা এ ব্যাটসম্যান রোববার নেমে পড়েছেন ব্যাটিং অনুশীলনে। সেই দুর্ঘটনার পর এই প্রথম ব্যাট হাতে বোলারদের মোকাবেলা করলেন তিনি।

ডার্বিতে তিন দিনের এ প্রস্তুতি ম্যাচ শুরু হচ্ছে বৃহস্পতিবার। ম্যাচটি খেলেই ওল্ড ট্রাফোর্ডে হতে যাওয়া চতুর্থ টেস্টে খেলার পথ সুগম করতে চান স্মিথ। ম্যানচেস্টারে টেস্ট ম্যাচটি মাঠে গড়াবে ৪ সেপ্টেম্বর।

ড্র হওয়া দ্বিতীয় ও লর্ডস টেস্টে ইংলিশ পেসার জোফরা আর্চারের ঘন্টায় ৯২ মাইল বেগে ছুড়া বাউন্সারের আঘাতে মাঠে লুটিয়ে পড়ে ছিলেন স্মিথ। রিটায়ার্ড হার্ট হয়ে মাঠ ছেড়ে ফের ব্যাট হাতে নেমে সবাইকে অবাক করে দেন। কিন্তু পরে আঘাতজনিত জটিলতা দেখা দেওয়ায় টেস্টের পঞ্চম দিন আর মাঠেই নামেননি। তার বদলে খেলেন মারনাস লাবুশেন। ছিটকে যান অ্যাশেজের চলমান তৃতীয় ও হেডিংলি টেস্ট থেকে।

১২ মাসের বল টেম্পারিং নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে মাঠে ফিরেই দারুণ পারফরম্যান্স দেখিয়েছেন স্মিথ। এজবাস্টনে প্রথম টেস্টের দুই ইনিংসেই পান সেঞ্চুরি (১৪৪ ও ১৪২)।সঙ্গে লর্ডসে সংগ্রহ করেন ৯২ রান।

 

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র