Barta24

রোববার, ২৫ আগস্ট ২০১৯, ১০ ভাদ্র ১৪২৬

English

ক্লার্কের চোখে কোহলিই ওয়ানডেতে সর্বকালের সেরা

ক্লার্কের চোখে কোহলিই ওয়ানডেতে সর্বকালের সেরা
বিরাট কোহলিকে এগিয়ে রাখলেন ক্লার্ক
সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

একটা সময় ছিল ওয়ানডে ক্রিকেটের প্রায় সব রেকর্ডই ছিল শচীন টেন্ডুলকারের দখলে। এখনও ব্যাটিংয়ের সেরা রেকর্ডের মালিক এই ভারতীয় কিংবদন্তি। তবে চ্যালেঞ্জ জানাচ্ছেন তারই এক অনুজ। শচীনের রেকর্ড টপকে যাওয়ার পথেই আছেন বিরাট কোহলি। সেই এগিয়ে চলার পথে আরো একটা স্বীকৃতি পেলেন ৩০ বছর বয়সী এই ব্যাটসম্যান।

আস্ট্রেলিয়ার সাবেক অধিনায়ক মাইকেল ক্লার্ক বাঁধিয়ে রাখার মতো একটা স্বীকৃতি দিয়েছেন বিরাট কোহলিকে। তিনি বেছে নিয়েছেন সর্বকালের সেরা ওয়ানডে ব্যাটসম্যান। যেখানে তার চোখে ‘গ্রেটেস্ট অফ অল টাইম কোহলি।’

২০১৫ বিশ্বকাপজয়ী অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়ক জানাচ্ছিলেন, ‘এখন অব্দি যতজন ওয়ানডে ক্রিকেট খেলেছেন, আমার মতে তাদের মধ্যে সর্বকালের সেরা ব্যাটসম্যান কোহলি। ভারতের হয়ে ওর অর্জনে চোখ রাখলে আপনিও আমার সঙ্গে একমত হবেন।’

খারাপ বলেন নি ক্লার্ক। সত্যিই অসাধারণ সব সাফল্য যোগ হয়েছে বিরাটের ক্যারিয়ারে। ভারত অধিনায়ক ২১৯টি ওয়ানডে ম্যাচে ৫৯.৬৮ গড়ে করেছেন ১০৩৮৫ রান। যার মধ্যে আছে ৩৯টি শতরান। হাফসেঞ্চুরি ৪৮টি।

শচীন ২০০ ম্যাচ খেলে করেছেন ১৮৪২৬ রান। শতরান ৪৯টি। অর্ধশতক ৯৬টি। তাকে ছুঁয়ে ফেলতে এগিয়ে যাচ্ছেন বিরাট কোহলি। ক্লার্ক বলছিলেন, ‘বিরাট একটু আগ্রাসী। কিন্তু আপনি ওর দায়বদ্ধতা নিয়ে কখনোই প্রশ্ন তুলতে পারবেন না। ওর কমিটমেন্ট আর ম্যাচ জেতা, রান করার তীব্র লড়াইটা মাথায় রাখতে হবে। তাকে সেরা না বলে উপায় নেই!’

আপনার মতামত লিখুন :

কলম্বোতে রানের পাহাড় গড়ছে নিউজিল্যান্ড

কলম্বোতে রানের পাহাড় গড়ছে নিউজিল্যান্ড
বিজে ওয়াটলিংয়ের সঙ্গে অসাধারণ জুটি গড়েন সেঞ্চুরিয়ান লাথাম, ছবি: সংগৃহীত

ব্যাট হাতে ওপেনার টম লাথামের দুরন্ত সেঞ্চুরির পর নিউজিল্যান্ড পেয়েছে বিজে ওয়াটলিং আর কলিন ডি গ্র্যান্ডহোমের দুর্দান্ত জুটি। ব্যাটসম্যানদের অসাধারণ এ দৃঢ়তায় একটু একটু করে রানের পাহাড় গড়ে যাচ্ছে সফরকারীরা। চতুর্থ দিন শেষে দ্বিতীয় ও শেষ টেস্টের প্রথম ইনিংসে ৫ উইকেট হারিয়ে ৩৮২ রান তুলেছে কিউইরা।

সুবাদে বৃষ্টি বিঘ্নিত কলম্বো টেস্টে ১৩৮ রানের লিড নিয়ে ফেলেছে নিউজিল্যান্ড। এখনো তাদের হাতে আছে ৫ উইকেট।

৪ উইকেটে ১৯৬ রান নিয়ে দিনের খেলা শুরু করে ব্ল্যাক ক্যাপস শিবির উইকেট হারিয়ে মাত্র একটি। ১৮৬ রানের বিনিময়ে তারা হারায় কেবল সেঞ্চুরিয়ান লাথামকে। পঞ্চম উইকেটে ১৪৩ রানে ভাঙ্গে লাথাম-ওয়াটলিং জুটি। আগের দিনের ব্যক্তিগত ১১১ রানের ইনিংসটাকে বাড়িয়ে ১৫৪ রানে পৌঁছে দিয়ে সাজঘরে ফেরেন লাথাম।

প্রতিপক্ষের বোলার দিলরুয়ান পেরেরার কাছে লাথাম হার মানলেও ওয়াটলিং এখনো টিকে আছেন লড়াইয়ে। ব্যক্তিগত ২৫ রানের ইনিংস টেনে নিয়ে যাচ্ছেন সেঞ্চুরির পথে। ৮১ রানে এখনো ব্যাট হাতে উইকেট আকড়ে আছেন আগের দিনের অপরাজিত এ উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান। ৮৩ রানে অপরাজিত থেকে তাকে সঙ্গ দিচ্ছেন কলিন ডি গ্র্যান্ডহোম। চতুর্থ দিন শেষে ষষ্ঠ উইকেটে দুজনে মিলে গড়েছেন হার না মানা ১১৩ রানের পার্টনারশিপ।

শ্রীলঙ্কার হয়ে ৩টি উইকেট শিকার করেন দিলরুয়ান পেরেরা। একটি করে উইকেট নেন লাহিরু কুমারা ও লাসিথ এমবুলদেনিয়া।

পি সারা ওভালে ম্যাচের শুরুতে টস জিতে ব্যাট হাতে নেমে প্রথম ইনিংসে ২৪৪ রানেই গুটিয়ে যায় স্বাগতিক লঙ্কান শিবির।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

শ্রীলঙ্কা প্রথম ইনিংস: ২৪৪/১০ (ধনাঞ্জয়া ১০৯, করুনারত্নে ৬৫; সাউদি ৪/৬৩, বোল্ট ৩/৭৫)।

নিউজিল্যান্ড প্রথম ইনিংস: ৩৮২/৫ ব্যাটিং (লাথাম ১৫৪, ওয়াটলিং ৮১ ব্যাটিং, গ্র্যান্ডহোম ৮৩ ব্যাটিং; পেরেরা ৩/১১৪)।

আঘাতের ধকল কাটিয়ে মাঠে ফিরছেন স্মিথ

আঘাতের ধকল কাটিয়ে মাঠে ফিরছেন স্মিথ
নেটে ব্যাট হাতে নিজেকে ঝালিয়ে নিচ্ছেন স্টিভেন স্মিথ, ছবি: সংগৃহীত

মাঠের লড়াইয়ে ফিরতে যাচ্ছেন স্টিভেন স্মিথ। তবে প্রতিযোগিতামূলক কোনো ম্যাচে নয়। চলতি অ্যাশেজ সিরিজের অংশ হিসেবে ডার্বিশায়ারের বিপক্ষে একটি ট্যুর ম্যাচ খেলবেন বিশ্বের অন্যতম সেরা এ ব্যাটসম্যান।

ঘাড়ে বলের আঘাতের ধকল ইতোমধ্যে কাটিয়ে উঠেছেন স্টিভেন স্মিথ। এখন শতভাগ ফিট তিনি। পুরোপুরি সুস্থ হয়েই অস্ট্রেলিয়ার তারকা এ ব্যাটসম্যান রোববার নেমে পড়েছেন ব্যাটিং অনুশীলনে। সেই দুর্ঘটনার পর এই প্রথম ব্যাট হাতে বোলারদের মোকাবেলা করলেন তিনি।

ডার্বিতে তিন দিনের এ প্রস্তুতি ম্যাচ শুরু হচ্ছে বৃহস্পতিবার। ম্যাচটি খেলেই ওল্ড ট্রাফোর্ডে হতে যাওয়া চতুর্থ টেস্টে খেলার পথ সুগম করতে চান স্মিথ। ম্যানচেস্টারে টেস্ট ম্যাচটি মাঠে গড়াবে ৪ সেপ্টেম্বর।

ড্র হওয়া দ্বিতীয় ও লর্ডস টেস্টে ইংলিশ পেসার জোফরা আর্চারের ঘন্টায় ৯২ মাইল বেগে ছুড়া বাউন্সারের আঘাতে মাঠে লুটিয়ে পড়ে ছিলেন স্মিথ। রিটায়ার্ড হার্ট হয়ে মাঠ ছেড়ে ফের ব্যাট হাতে নেমে সবাইকে অবাক করে দেন। কিন্তু পরে আঘাতজনিত জটিলতা দেখা দেওয়ায় টেস্টের পঞ্চম দিন আর মাঠেই নামেননি। তার বদলে খেলেন মারনাস লাবুশেন। ছিটকে যান অ্যাশেজের চলমান তৃতীয় ও হেডিংলি টেস্ট থেকে।

১২ মাসের বল টেম্পারিং নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে মাঠে ফিরেই দারুণ পারফরম্যান্স দেখিয়েছেন স্মিথ। এজবাস্টনে প্রথম টেস্টের দুই ইনিংসেই পান সেঞ্চুরি (১৪৪ ও ১৪২)।সঙ্গে লর্ডসে সংগ্রহ করেন ৯২ রান।

 

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র