Alexa

বিমার ছুঁড়ে নিষিদ্ধ রবিউল হক

বিমার ছুঁড়ে নিষিদ্ধ রবিউল হক

শরীর ধেঁয়ে আসা বল দিয়ে নিষিদ্ধ রবিউল

ম্যাচে নিজের ওভারের পুরো বোলিং কোটা শেষ করতে পারেননি চিটাগং ভাইকিংসের পেসার রবিউল হক। ৩.৩ ওভার বল করেই ম্যাচে নিজের বাকি তিন বল করার অধিকার হারান তিনি। ব্যাটসম্যানকে লক্ষ্য করে দুটি বিমার ছোঁড়ার অপরাধে আম্পায়ার তাকে বাকি সময়টুকু বোলিংয়ে নিষিদ্ধ করেন। এবারের বিপিএলে এটি প্রথম ঘটনা।

১৮ নম্বর ওভারে রাজশাহী কিংসের ব্যাটসম্যান জংকারকে ফুলটস বল করেন। তবে শরীর ধেঁয়ে আসা সেই বল সামাল দিতে না পেরে প্রায় মাটিতে পড়েই গিয়েছিলেন জংকার। আম্পায়ার নো বলের ঈশারা দেন। সেই সঙ্গে রবিউলকে ডেকে সাবধান করে দেন, ম্যাচে দ্বিতীয়দফা এমন বল করলে তাকে বোলিং থেকে নিষিদ্ধ করা হবে। রাজশাহীর ইনিংসের শেষ ওভার করতে এসে সেই একই ভুল করেন রবিউল হক। সেই ওভারে তার প্রথম দুই বলে জংকার দুটো বিশাল ছক্কা হাঁকান। তৃতীয় বলে দুই রান নেন। চতুর্থ বলটা এলোমেলো ভঙ্গিতে ওয়াইড দিলেন রবিউল। বাড়তি বলটা করতে এসে সোজা জংকারের মাথা লক্ষ্য করে বল করলেন। তবে সেই বলে ঠিকই ব্যাট লাগিয়ে ফাইন লেগের ওপর দিয়ে ছক্কা হাঁকালেন জংকার। কিন্তু স্কয়ার লেগ আম্পায়ার নো বলের ঈশারা দিলেন। রবিউলের বলটা বিমার ছিলো। আম্পায়ার এসে রবিউলকে জানিয়ে দিলেন-‘তুমি আর বল করতে পারবে না।’
সেই ওভারের বাকি তিন বল করে ক্যামেরুন ডেলপোর্ট। ম্যাচে বেচারা রবিউল হকের ৩.৩ ওভারে খরচ হলো ৪৭ রান! ইকোনোমি রেট ১৩.৪২!

চট্টগ্রামের মাটিতে সময়টা মোটেও ভাল যাচ্ছে না ভাইকিংসের এই পেসারের। আগের ম্যাচ রংপুর রাইডার্সের বিপক্ষে বেদড়ক পিটুনি খান। খরচা করেন ৪ ওভারে ৫৪ রান। বিপিএলের ইতিহাসে এক ম্যাচে সবচেয়ে বেশি রান খরচের রেকর্ড এটি। যে রেকর্ড এতদিন ছিলো আল আমিনের। যে রেকর্ড কেউ চায় না, এমন রেকর্ডে ভাগ বসালেন রবিউল হক।

আর চব্বিশ ঘন্টার মধ্যে দুটো বিমার মারার দায়ে ম্যাচে বোলিংয়েই নিষিদ্ধ। চিটাগং ভাইকিংসের পরের ম্যাচের একাদশে রবিউল হক সম্ভবত জায়গাও হারাচ্ছেন!

আপনার মতামত লিখুন :