পিএসজির স্বপ্ন ভেঙে শেষ আটে ম্যানইউ

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
দুর্দান্ত জয়ে কোয়ার্টার ফাইনালে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড

দুর্দান্ত জয়ে কোয়ার্টার ফাইনালে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড

  • Font increase
  • Font Decrease

প্রথম লেগে ২-০ গোলের জয়ে কোয়ার্টার ফাইনালে এক পা দিয়েই রেখেছিল প্যারিস সেন্ট জার্মেই (পিএএসজি)। কিন্তু কে জানতো এভাবে স্বপ্নভঙ্গ হবে ফরাসি ক্লাবটির। প্রতিপক্ষের মাঠে অসাধারণ ফুটবল খেলে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড তুলে নিয়েছে দুর্দান্ত জয়। তারই পথ ধরে ইংলিশ জায়ান্টরা পেয়ে গেছে উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের কোয়ার্টার ফাইনালের টিকিট।

ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে অনায়াস জয়ে আত্মবিশ্বাস আকাশচুম্বী ছিল পিএসজির। কিন্তু কে জানতো নিজেদের মাঠেই এভাবে বিধ্বস্ত হবে দলটি। বুধবার রাতে শেষ ষোলোর ফিরতি পর্বে ৩-১ গোলে জয় তুলে নেয় ম্যানইউ। দুই লেগ মিলিয়ে ফল দাঁড়ায় ৩-৩। প্রতিপক্ষের মাঠে এক গোল বেশি করে শেষ আটে উঠে গেল ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড।

এমন হারে আক্ষেপে পুঁড়ছে পিএসজির ফুটবলাররা। নিজেদের ভুলেই গোল হজম করতে হয়েছে। ম্যাচে প্রথমে ইংলিশ ক্লাবটিকে এগিয়ে দেন রোমেলু লুকাকু। এরপর পিএসজির হয়ে সমতা ফেরান হুয়ান বেনার্ত। সেই ব্যবধান ধরে রাখা হয়নি। সেই লুকাকু আবারো গড়ে দেন ব্যবধান। ম্যাচের শেষ প্রান্তে এসে মার্কাস র‌্যাশফোর্ডের পেনাল্টি গোলে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে ম্যানইউ। পেয়ে যায় ইউরোপিয়ান ক্লাব ফুটবলের সবচেয়ে বড় টুর্নামেন্টের কোয়ার্টার ফাইনালের টিকিট।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Mar/07/1551928289446.jpg

খেলার দ্বিতীয় মিনিটে প্রতিপক্ষের ডিফেন্ডারের ভুলের সুযোগটা কাজে লাগান লুকাকু। প্রতিপক্ষের গোলকিপারকে বোকা বানিয়ে বল পাঠিয়ে দেন পিএসজির জালে। যদিও খেলার দশম মিনিটেই সমতা ফেরায় স্বাগতিকরা। কিলিয়ান এমবাপের পাসে গোল তুলে নেন বেনার্ত।

খেলার ৩০তম মিনিটে ফের পিছিয়ে পড়ে পিএসজি। গোলদাতা সেই লুকাকু। অবশ্য ৫৫তম মিনিটে অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়া বল পাঠিয়েছিলেন ম্যানইউর জালে। কিন্তু তিনি অফসাইডে থাকায় ভিএআরের সাহায্য নিয়ে রেফারি সেই গোল বাতিল করে দেন।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Mar/07/1551928319529.jpg

আক্রমণে এগিয়ে থাকলেও ইনজুরি সময়ে এসে কপাল পুঁড়ে পিএসজির। দিয়েগো দালোতের শট ডি-বক্সে পিএসজির রক্ষণভাগের ফুটবলার প্রেসনেল কিম্পেম্বের হাতে লাগে। শুরুতে রেফারি কর্নারে বাঁশি দেন। পরে ভিএআর প্রযুক্তির সাহায্য নিয়ে পেনাল্টি দেন।

ইনজুরি সময়ের চতুর্থ মিনিটে র‌্যাশফোর্ডের স্পট কিকে আরো এগিয়ে যায় ম্যানইউ। এই গোলটিই তিনবারের চ্যাম্পিয়নদের নিয়ে গেল চ্যাম্পিয়ন্স লিগের কোয়ার্টার ফাইনালে।

বুধবার চ্যাম্পিয়ন্স লিগের আরেক ম্যাচে দুর্দান্ত জয়ে শেষ আটে উঠেছে পোর্তো। নিজেদের মাঠে এএস রোমাকে ৩-১ গোলে হারিয়ে হারিয়েছে পর্তুগালের ক্লাবটি। দুই লেগ মিলিয়ে ৪-৩ ব্যবধানে জিতেছে তারা।

আপনার মতামত লিখুন :