Barta24

বৃহস্পতিবার, ২২ আগস্ট ২০১৯, ৭ ভাদ্র ১৪২৬

English

তিন সেঞ্চুরির ম্যাচে শেষ হাসি রূপগঞ্জের

তিন সেঞ্চুরির ম্যাচে শেষ হাসি রূপগঞ্জের
লিজেন্ডসদের জয়ের নায়ক নাঈম শেখ
স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

একেই বলে সেয়ানে সেয়ানে লড়াই।

এক দল করলো ৩৫৭ রান। অন্য দল থামলো এসে ৩৩৪ রানে। সবমিলিয়ে ম্যাচে সেঞ্চুরি হলো তিনটি। দুদলের মিলিয়ে স্কোরবোর্ডে জমা ৬৯১ রান! বাউন্ডারি হলো ৫৮টি। ছক্কা ১৮টি। বিকেএসপির মাঠে রান উৎসবের এই ম্যাচ শেষ পর্যন্ত ২৩ রানে জিতলো লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জ।

এই ম্যাচে বোলাররা পুরোপুরি বেচারা হয়ে রইলেন! ব্যাটকে মুগুর বানিয়ে বল পেটালেন ব্যাটসম্যানরা। রূপগঞ্জের ওপেনিং জুটিতে যোগ হলো ১৭.২ ওভারে ১৩২ রান। এই শক্ত ভিত্তির ওপর বিশাল স্কোর দাড় করালো লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জ। ওপেনার নাঈম শেষ ১০৮ বলে চলতি লিগে নিজের প্রথম সেঞ্চুরি করলেন। ৬ ছক্কা ও ৮ বাউন্ডারিতে নাঈমের ১২২ রানের সেঞ্চুরি সাহস যোগালো অভিজ্ঞ নাঈম ইসলামকেও। মাত্র ৯৮ বলে তার ব্যাটেও ১০৮ রানের ঝলমলো সেঞ্চুরির হাসি। এই দুজনের সেঞ্চুরির উপর চড়ে রূপগঞ্জের স্কোরবোর্ড রানে ফুলে ফেঁপে উঠলো ৭ উইকেটে ৩৫৭ রানে। চলতি লিগে এটি এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ স্কোর।

আটজন বোলার ব্যবহার করেও রূপগঞ্জের রান ফোয়ারা আটকাতে পারেনি শাইনপুকুর ক্রিকেট ক্লাব।

জবাব দিতে নামা শাইনপুকুরের শুরুটাই হলো ব্যাটিং বিস্ফোরণে! মাত্র ১৩.৪ ওভারে প্রথম উইকেট জুটিতে রান ১০৪! বিকেএসপির তিন নম্বর মাঠে ছক্কা-চারের ঝড় উঠছে যেন। ওপেনার সাব্বির হোসেন ৮৭ বলে ১০০ রান করে ফিরলেন।

ম্যাচের বাকি সময়টা তৈাহিদুল হৃদয়ের ব্যাটিং আনন্দে ভাসলো। খুব যে মারকুটো ইনিংস খেললেন তৌহিদুল হৃদয়, তা কিন্তু নয়। ৮১ বলে ৮৩ রানের ইনিংসে বাউন্ডারি মাত্র ৬টি, ছক্কা ১টি। তবে যতক্ষণ উইকেটে ছিলেন ততক্ষণ যেন ম্যাচ জয়ের জন্য প্রায় অসম্ভব এক টার্গেটের পেছনে ছুটছিলো শাইনপুকুর। দলকে ৩০০ রানে পৌছে দিয়ে তৌহিদুল যখন ফিরলেন তখন ম্যাচ জিততে শাইনপুকুরের প্রয়োজন ২৫ বলে ৫৮ রান। বল ও রানের সেই ব্যবধান দলের শেষের দিকের ব্যাটসম্যানরা পার করতে পারেননি।

৪৯ ওভারে শেষ হয় শাইনপুকুরের স্বপ্ন ছড়ানো রান তাড়া!

সংক্ষিপ্ত স্কোর: লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জ: ৩৫৭/৭ (৫০ ওভারে, আজমীর ৪৮, নাঈম শেখ ১২২, নাঈম ইসলাম ১০৮, হামিদুল ২/৪৫, সুজন হাওলাদার ২/৭৫, দেলোয়ার ২/৬৭)। শাইনপুকুর ক্রিকেট ক্লাব: ৩৩২/১০ (৪৯ ওভারে, সাব্বির হোসেন ১০০, তৈাহিদুল হৃদয় ৮৩, সোহরাওয়ার্দি শুভ ৩৪, নাবিল ৩/৫১, আসিফ ২/৬৬)। ফল: লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জ ২৩ রানে জয়ী। ম্যাচ সেরা: নাঈম শেখ।

আপনার মতামত লিখুন :

শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচে আবাহনীর জয়োৎসব

শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচে আবাহনীর জয়োৎসব
আবাহনী ফুটবলারদের উল্লাস

এএফসি কাপের নকআউট পর্বে আক্রমণের পসরা সাজিয়ে শুরুতে এগিয়ে গিয়েছিল আবাহনী লিমিটেড। কিন্তু উত্তর কোরিয়ান প্রতিপক্ষ এপ্রিল টুয়েন্টিফাইভের ম্যাচে দুর্দান্ত প্রত্যাবর্তন আকাশী-নীলদের ভয় পাইয়ে দিয়েছিল। তবে স্নায়ুচাপের ম্যাচে শেষ হাসি হাসে আবাহনীই। সাত গোলের রোমাঞ্চমাখা ম্যাচ ৪-৩ গোলে জিতে স্বাগতিকরা।

বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে বুধবার ( ২১ আগস্ট) ইন্টার জোনাল প্লে-অফ সেমি-ফাইনালসের প্রথম পর্বে জয়ের উৎসবে মাতে আবাহনী।

আগামী ২৮ আগস্ট ফিরতি লেগে উত্তর কোরিয়ার মাঠে মুখোমুখি হবে দুই দল।

প্রাথমিক দলে ডাক পেলেন গোলরক্ষক হিমেল

প্রাথমিক দলে ডাক পেলেন গোলরক্ষক হিমেল
গোলরক্ষক মাজহারুল ইসলাম হিমেল

একটি পরিবর্তন আসল ২০২২ কাতার বিশ্বকাপ বাছাই পর্বের জন্য ঘোষিত বাংলাদেশের প্রাথমিক দলে। স্কোয়াডে যোগ হল আরামবাগের গোলরক্ষক মাজহারুল ইসলাম হিমেলের নাম।

বিশ্বকাপ বাছাই পর্বের দ্বিতীয় রাউন্ডে আফগানিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচকে সামনে রেখে কয়েকদিন আগেই ২৫ জনের প্রাথমিক দল ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে)।

বিশ্বকাপ ও ২০২৩ সালের এশিয়ান কাপের বাছাই পর্বে ১০ সেপ্টেম্বর তাজিকিস্তানের দুশানবেতে প্রথম লেগে আফগানদের মোকাবেলা করবে লাল-সবুজ শিবির।

বাছাই পর্বের প্রথম রাউন্ডে লাওসের বিপক্ষে জয়ের ম্যাচে দলে থাকা হিমেল শুরুর দিকে প্রাথমিক দলে ছিলেন না। আশরাফুল ইসলাম রানা, শহীদুল আলম সোহেল, আনিসুর রহমান জিকো- এই তিন গোলরক্ষকের সঙ্গে এবার যোগ হল তার নাম। বুধবার প্রাথমিক দলে হিমেলের যোগ দেওয়ার খবর নিশ্চিত করে বাফুফে।

বিশ্বকাপের বাছাই পর্বের দ্বিতীয় রাউন্ডে ‘ই’ গ্রুপে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ আফগানিস্তান, ভারত, ওমান ও বিশ্বকাপের স্বাগতিক কাতার।

দুই লেগ মিলিয়ে লাওসকে ১-০ গোলে ধরাশায়ী করে প্রথম রাউন্ডের বাধা উতড়ে যায় বাংলাদেশ।

শুক্রবার (২৩ আগস্ট) কোচ জেমি ডের অধীনে শুরু হবে প্রস্তুতি ক্যাম্প। ১ সেপ্টেম্বর দল দেশ ছাড়বে তাজিকিস্তানের উদ্দেশে।

প্রাথমিক স্কোয়াড

গোলরক্ষক : আশরাফুল ইসলাম রানা, শহিদুল আলম সোহেল, আনিসুর রহমান জিকু ও মাজহারুল ইসলাম হিমেল।

ডিফেন্ডার: বিশ্বনাথ ঘোষ, টুটুল হোসেন বাদশা, সুশান্ত ত্রিপুরা, রহমত মিয়া, মনজুরুর রহমান, ইয়াসিন খান, রিয়াদুল হাসান, নুরুল নাইয়ুম ফয়সাল ও ইয়াসিন আরাফাত।

মিডফিল্ডার: মাসুক মিয়া জনি, জামাল ভুঁইয়া, মামুনুল ইসলাম, সোহেল রানা, রবিউল হাসান, বিপলু আহমেদ, আরিফুর রহমান ও মোহাম্মদ ইব্রাহিম।

ফরোয়ার্ড : নাবিব নেওয়াজ জীবন, মাহবুবুর রহমান সুফিল, মতিন মিয়া, সাদ উদ্দিন ও জুয়েল রানা।

 

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র