Barta24

বুধবার, ২১ আগস্ট ২০১৯, ৬ ভাদ্র ১৪২৬

English

'আমরা লাকি যে বেঁচে ফিরেছি'

'আমরা লাকি যে বেঁচে ফিরেছি'
হামলার ভয়াবহতা বর্ণনা করছেন খালেদ মাসুদ পাইলট, ছবি: বার্তা২৪
স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

খুব কাছ থেকে মৃত্যুকে দেখলেন বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা!

ক্রাইস্টচার্চে বন্দুকধারীর ভয়াবহ হামলার শিকার হওয়ার কবল থেকে ভাগ্যের জোরে রক্ষা পেয়েছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের খেলোয়াড়রা। আরও মিনিট কয়েক আগে তারা মসজিদে পৌঁছালে চরম দুর্ভোগ নেমে আসতো পুরো দলের ওপর। আততায়ী বন্দুকধারীর নৃশংস হামলার শিকার হতে পারতো দল।

শুক্রবার (১৫ মার্চ) দুপুরে ক্রাইস্টচার্চের হ্যাগলে পার্কের মসজিদের সামনে ঘটে যাওয়া সেই ঘটনার চাক্ষুষ সাক্ষী হয়ে রইলেন বাংলাদেশ দলের ক্রিকেটাররা। সেই সময় টিম বাসে দলের সঙ্গে ছিলেন ম্যানেজার খালেদ মাসুদও।

সেই সময়ের পরিস্থিতি নিয়ে মাসুদ বলেন, 'এখানে খুব কাছ থেকে খেলোয়াড়রা এই হামলার ভয়াবহতা দেখেছে। দেখেছে প্রাণ বাঁচাতে মানুষজন রক্তাক্ত অবস্থায় ছোটাছুটি করছে। এই পরিস্থিতিতে যে কোন মানুষই কিন্তু ভেঙ্গে পড়ার কথা। নিজের ওপর যে হামলা হচ্ছে না সেই নিশ্চয়তাও বা কোথায় তখন! এত কাছ থেকে এই হামলার নৃশংসতা দেখে ক্রিকেটারদের অনেকেই মানসিকভাবে ভেঙ্গে পড়ে। বেশ কয়েকজন কান্নাকাটিও করে। একটা ভয়াবহ অনিশ্চয়তার মধ্যে পড়ে এই সময় ক্রিকেটাররা। আমাদের খেলোয়াড়রা সবাই নিরাপদ। কিন্তু এই হামলার পুরো বিষয়টা মানসিকভাবে তাদের মুষড়ে দিয়েছে। আমাদের সবাই এখন হোটেলে আছে। আমরা সবাইকে নিয়ে হোটেলে একসঙ্গে বৈঠক করেছি। সেই বৈঠকে কোচিং স্টাফের সদস্যরাও সবাই উপস্থিত ছিলেন। এই ভয়াবহ হামলার প্রেক্ষিতে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের বাকি নিউজিল্যান্ড সফর বাতিল হয়েছে। যত দ্রুত সম্ভব দেশে ফিরে আসার প্রস্তুতি নিচ্ছে এখন বাংলাদেশ দল।'

শুক্রবারের সেই ভয়াবহ হামলার ঘটনার বিস্তারিত প্রসঙ্গে খালেদ মাসুদ বলেন, 'এই ধরনের দুর্ঘটনা বা হামলা কোন দেশে হোক সেটা আমরা কেউ চাই না। এই হামলা থেকে আমরা বেঁচে গেছি ভাগ্যের জোরে। বাসে আমরা অনেকজন ছিলাম। ১৬/১৭ জন ছিলাম। আমরা নামাজ পড়ার জন্য বাসে করে মসজিদে যাই। মসজিদ থেকে খুব বেশি হলে আমরা ৫০ গজ দূরত্বে ছিলাম। বাস থেকে আমরা মসজিদ দেখতে পাচ্ছিলাম। আমরা ভাগ্যের জোরেই মূলত বেঁচে গেছি। আর যদি তিন চার মিনিট আগে আমরা চলে আসতাম তাহলে হয়তো মসজিদের ভেতরেই থাকতাম। এই হামলার মধ্যেই পড়তাম। তখন হয়তো বা বিশাল ভয়াবহ কিছু ঘটে যেতো! আমরা বাইরে থেকে পুরো ঘটনার ভয়াবহতা দেখেছি। দেখে মনে হয়েছে যেন কোন সিনেমার ভয়াবহ দৃশ্য দেখছি! বাসের ভেতর থেকে উঁকি মেরে বাইরে আমরা দেখছি সেখানে মানুষজন রক্তাক্ত মুখমণ্ডল, বিধ্বস্ত চেহারা ও আতঙ্ক নিয়ে বেরিয়ে আসছে।'

তিনি আরও বলেন, 'প্রায় ৮/১০ মিনিট আমরা বাসের মধ্যেই ছিলাম। আমরা সবাই মাথা নিচু করে ছিলাম, যাতে গুলির আঘাত না লাগে। এক সময় আমাদের মনে হলো হামলাকারীরা যদি কোন কারণে বাসের দিকে এসে এলোপাথাড়ি গুলি করে তাহলে তো সবাই মারা পড়বো। তাই বাস থেকে নেমে আমরা যেপথ দিয়ে এসেছিলাম সেদিকেই পায়ে হেঁটে রওয়ানা হই। কি ভয়াবহ কেটেছে সেই সময়টা!'

আপনার মতামত লিখুন :

ক্যারিয়ারে পর্দা টানছেন রোনালদো!

ক্যারিয়ারে পর্দা টানছেন রোনালদো!
এখনই অবসর চিন্তা পেয়ে বসেছে ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোকে, ছবি: সংগৃহীত

অবসরে চলে যেতে পারেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। সেটা হতে পারে খুব শিগগিরই। হতে পারে আগামী বছরই। এমন ইঙ্গিতই দিয়েছেন এ পর্তুগিজ ফুটবল মহাতারকা।

তবে নিজের অবসর-চিন্তা নিয়ে এখনো নিশ্চিত নন সিআর সেভেন নিজেই। খেলোয়াড়ি জীবনকে না বলে দিতে পারেন আগামী বছর। আবার এমন হতে পারে, ৪০ বা ৪১ বছর বয়স পর্যন্ত খেলেও যেতে পারেন জুভেন্টাসের এ মেগাস্টার।

নিজের অবসর চিন্তা নিয়ে রোনালদো বলেন, ‘আমি এসব নিয়ে চিন্তা করি না। হতে পারে আগামী বছর নিজের ফুটবল ক্যারিয়ারে পর্দা টেনে দিব। আবার এটাও হতে পারে ৪০ বা ৪১ বছর বয়স পর্যন্ত খেলে যাব।’

টানা তিন চ্যাম্পিয়নস লিগ শিরোপা জিতে গত বছর রিয়াল মাদ্রিদ ছেড়ে জুভেন্টাসে যোগ দেন রোনালদো। সব ধরনের প্রতিযোগিতায় ৪৩ ম্যাচে ২৮ গোল করেন পাঁচ বারের এ ব্যালন ডি’অর জয়ী। ২০১৮-১৯ মৌসুমে জুভ শিবিরকে এনে দেন সেরি এ শিরোপা।

বাউন্সার যুদ্ধে নামবে না অস্ট্রেলিয়া

বাউন্সার যুদ্ধে নামবে না অস্ট্রেলিয়া
অযথা বাউন্সার দিতে রাজি নন অজি কোচ ল্যাঙ্গার, ছবি: সংগৃহীত

স্টিভেন স্মিথ বাউন্সারের আঘাতের ধকল এখনো কাটিয়ে উঠতে পারেননি। তাই তো হেডিংলিতে তৃতীয় টেস্টে খেলা হচ্ছে না অস্ট্রেলিয়ার সাবেক এ অধিনায়কের।

তাই বলে অস্ট্রেলিয়া প্রতিশোধ নিতে বাউন্সার দেওয়ার যুদ্ধে নামবে? মোটেই না। অজি কোচ জাস্টিন ল্যাঙ্গার স্পষ্ট করেই জানিয়ে দিলেন, বাউন্সার দেওয়া তো তাদের লক্ষ্য নয়। তাদের লক্ষ্য অ্যাশেজ সিরিজ জয়।

যথা সম্ভব বাউন্সার দেওয়া থেকে বিরত থাকবে ল্যাঙ্গারের শিষ্যরা। তবে অ্যাশেজ সিরিজ জয়ের লক্ষ্য থেকে সরে যাবে না অস্ট্রেলিয়া। ১৮ বছর পর তারা ইংল্যান্ডের মাটিতে জিততে চায় ভস্মাধারটি।

বৃহস্পতিবার তৃতীয় টেস্ট শুরুর আগে কোচ ল্যাঙ্গার জানিয়ে দিলেন, ‘আমরা জানি, আমাদের পরিকল্পনাটা হল ইংল্যান্ডকে হারানো। এটা আমাদের আত্মমর্যাদার খেলা নয়।’

অস্ট্রেলিয়ার সাবেক এ ওপেনার প্রতিপক্ষ ইংলিশ ব্যাটসম্যানদের অভয় দিয়ে জানান, ‘আমরা এখানে এসেছি টেস্ট ম্যাচ জিততে। কতবার হেলমেটে আঘাত করতে পারলাম তা দেখতে নয়। এটাকে টেস্ট ম্যাচ জেতা বলে না। বিশ্বাস করুন। নিজের হাত দিয়ে আপনি আঘাত করতে পারেননা।’

প্যাট কামিন্স, জশ হ্যাজলউড ও মিচেল স্টার্কের মতো পেস শক্তি থাকা সত্ত্বেও প্রয়োজন ছাড়া বাউন্সার দিতে রাজি নন ক্রিকেট গুরু ল্যাঙ্গার, ‘আমি নিশ্চিত, বাউন্সার বোলারদের অস্ত্র হিসেবেই থেকে যাবে। যদি এটি ব্যাটসম্যানদের আউট করতে সহায়তা করে তাহলে আমরা তা ব্যবহার করব। অন্যথায় আমরা আমাদের পরিকল্নায় মনোযোগী থাকব।’

লর্ডসে দ্বিতীয় টেস্টের তৃতীয় দিনে ঘন্টায় ৯২ মাইল গতিতে ইংলিশ পেসার জোফরা আর্চারের একটি বাউন্সার আঘাত হানে ৩০ বছরের স্মিথের ঘাড়ে। প্রাথমিক পরীক্ষা নিরীক্ষায় উড়তে গিয়ে ফের ব্যাট হতে মাঠে নামেন। সংগ্রহ করেন ৯২ রান। কিন্তু শেষ দিন আর মাঠে নামেনি। লর্ডস টেস্টের পঞ্চম দিনে তার বদলি হিসেবে খেলেন মারনাস লাবুশেন।

দ্বিতীয় টেস্ট ড্র হলেও বিশ্বকাপ জয়ী ইংল্যান্ডের বিপক্ষে পাঁচ ম্যাচের অ্যাশেজ সিরিজে এখন ১-০ তে এগিয়ে অস্ট্রেলিয়া। ২২ আগস্ট হেডিংলিতে শুরু হচ্ছে তৃতীয় টেস্ট।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র