Barta24

বৃহস্পতিবার, ২২ আগস্ট ২০১৯, ৭ ভাদ্র ১৪২৬

English

গুনারত্নের ‘গুনে’ শেখ জামালের জয়

গুনারত্নের ‘গুনে’ শেখ জামালের জয়
শেখ জামালের জয়ের নায়ক অ্যাসলে গুনারত্নে
স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

৪৩ রানে হারা ম্যাচে প্রতিদ্বন্দ্বিতা খোঁজার কোন মানে হয় না!

ফুতল্লায় শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাবের বিরুদ্ধে লড়াই তো দুরের কথা ম্যাচে দাড়াতেই পারেনি গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্স। শেখ জামালের ২৭৭ রানের জবাবে গাজী গ্রুপ থেমে যায় ২৩৪ রানে। ব্যাটে-বলে ম্যাচে অলরাউন্ড পারফরমেন্স দেখান শেখ জামালের শ্রীলঙ্কান রিক্রুট অ্যাসলে গুনারতেœ। সত্যিকার অর্থেই ম্যাচে ‘গুন’ দেখান গুনারত্নে!

ব্যাটিংয়ে ৬৫ বলে ৭৯ রান তোলার পর বল হাতেও ১০ ওভারে ৫১ রান খরচায় ২ উইকেট তুলে নিয়ে ম্যাচ সেরা পারফর্মার এই শ্রীলঙ্কান।

ফতুল্লা টসে হেরে ব্যাটিং করতে নামা শেখ জামাল শুরুতেই আগের ম্যাচের সেরা খেলোয়াড় ওপেনার ইমতিয়াজ হোসেন পান্নাকে হারায়। তবে দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে সেই ধাক্কা কাটিয়ে উঠে তারা। মিডলঅর্ডারে অধিনায়ক নুরুল হাসান সোহান ও অ্যাসলে গুনারত্নের ব্যাটিং শেখ জামালকে বড় সঞ্চয় এনে দেয়। সোহান ৮১ বলে ৮১ রান করে অপরাজিত থাকেন। ৭ বাউন্ডারি ও ২ ছক্কায় ৬৫ বলে গুনারতেœর ব্যাট হাসে ৭৯ রানে।

জবাবি ব্যাটিংয়ের শুরুতেই মুখ থুবড়ে পড়ে গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্স। ধারাবাহিক ব্যর্থতার নজির গড়ে ইমরুল কায়েস ফিরলেন মাত্র ১৫ রান করে। আরেক ওপেনার রনি তালুকদার সিঙ্গেল ডিজিটে আউট। ওয়ানডাউনে তাসামুল হক রুবেলও এই ম্যাচে ব্যর্থ। ব্যাট হাতে আগের ম্যাচে গাজী গ্রুপের সর্বোচ্চ স্কোরার পারভেজ রসুল ৩ রানে আউট হলে গাজী গ্রুপ ম্যাচ থেকে ছিটকে পড়ে। মাত্র ১৩.১ ওভারে ৪৭ রানে নেই ৫ উইকেট।

ম্যাচে তখন কোন দল জিততে তা নিয়ে কোন সন্দেহ নেই। অপেক্ষা শুধু একটাই শেখ জামালের সেই জয় কত বড় ব্যবধানের হচ্ছে! হারের সেই ব্যবধান কমিয়ে আনে শামসুর রহমান শুভ ও শেষের দিকে আট নম্বরে মেহেদি হাসানের হাফসেঞ্চুরির ইনিংস।

লিগে এটি গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্সের ৬ ম্যাচে চতুর্থ হার। সমান সংখ্যক ম্যাচে শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব তিনটি ম্যাচ জিতেছে। বাকি তিনটিতে হেরেছে।

সংক্ষিপ্ত স্কোর: শেখ জামাল ধানমন্ডি: ২৭৭/৬ (৫০ ওভারে, ফারদিন হাসান ৪৬, সোহান ৮১*, গুনারত্নে ৭৯, পারভেজ রসুল ৩/৩৭)। গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্স: ২৩৪/১০ (৪৭ ওভারে, শামসুর রহমান ৮১, মেহেদি হাসান ৬০, গুনারত্নে ২/৫০, সালাউদ্দিন ৩/৪৭, খালেদ ৩/৩১)। ফল: শেখ জামাল ৪৩ রানে জয়ী। ম্যাচ সেরা: অ্যাসলে গুনারত্নে।

আপনার মতামত লিখুন :

শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচে আবাহনীর জয়োৎসব

শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচে আবাহনীর জয়োৎসব
আবাহনী ফুটবলারদের উল্লাস

এএফসি কাপের নকআউট পর্বে আক্রমণের পসরা সাজিয়ে শুরুতে এগিয়ে গিয়েছিল আবাহনী লিমিটেড। কিন্তু উত্তর কোরিয়ান প্রতিপক্ষ এপ্রিল টুয়েন্টিফাইভের ম্যাচে দুর্দান্ত প্রত্যাবর্তন আকাশী-নীলদের ভয় পাইয়ে দিয়েছিল। তবে স্নায়ুচাপের ম্যাচে শেষ হাসি হাসে আবাহনীই। সাত গোলের রোমাঞ্চমাখা ম্যাচ ৪-৩ গোলে জিতে স্বাগতিকরা।

বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে বুধবার ( ২১ আগস্ট) ইন্টার জোনাল প্লে-অফ সেমি-ফাইনালসের প্রথম পর্বে জয়ের উৎসবে মাতে আবাহনী।

আগামী ২৮ আগস্ট ফিরতি লেগে উত্তর কোরিয়ার মাঠে মুখোমুখি হবে দুই দল।

প্রাথমিক দলে ডাক পেলেন গোলরক্ষক হিমেল

প্রাথমিক দলে ডাক পেলেন গোলরক্ষক হিমেল
গোলরক্ষক মাজহারুল ইসলাম হিমেল

একটি পরিবর্তন আসল ২০২২ কাতার বিশ্বকাপ বাছাই পর্বের জন্য ঘোষিত বাংলাদেশের প্রাথমিক দলে। স্কোয়াডে যোগ হল আরামবাগের গোলরক্ষক মাজহারুল ইসলাম হিমেলের নাম।

বিশ্বকাপ বাছাই পর্বের দ্বিতীয় রাউন্ডে আফগানিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচকে সামনে রেখে কয়েকদিন আগেই ২৫ জনের প্রাথমিক দল ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে)।

বিশ্বকাপ ও ২০২৩ সালের এশিয়ান কাপের বাছাই পর্বে ১০ সেপ্টেম্বর তাজিকিস্তানের দুশানবেতে প্রথম লেগে আফগানদের মোকাবেলা করবে লাল-সবুজ শিবির।

বাছাই পর্বের প্রথম রাউন্ডে লাওসের বিপক্ষে জয়ের ম্যাচে দলে থাকা হিমেল শুরুর দিকে প্রাথমিক দলে ছিলেন না। আশরাফুল ইসলাম রানা, শহীদুল আলম সোহেল, আনিসুর রহমান জিকো- এই তিন গোলরক্ষকের সঙ্গে এবার যোগ হল তার নাম। বুধবার প্রাথমিক দলে হিমেলের যোগ দেওয়ার খবর নিশ্চিত করে বাফুফে।

বিশ্বকাপের বাছাই পর্বের দ্বিতীয় রাউন্ডে ‘ই’ গ্রুপে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ আফগানিস্তান, ভারত, ওমান ও বিশ্বকাপের স্বাগতিক কাতার।

দুই লেগ মিলিয়ে লাওসকে ১-০ গোলে ধরাশায়ী করে প্রথম রাউন্ডের বাধা উতড়ে যায় বাংলাদেশ।

শুক্রবার (২৩ আগস্ট) কোচ জেমি ডের অধীনে শুরু হবে প্রস্তুতি ক্যাম্প। ১ সেপ্টেম্বর দল দেশ ছাড়বে তাজিকিস্তানের উদ্দেশে।

প্রাথমিক স্কোয়াড

গোলরক্ষক : আশরাফুল ইসলাম রানা, শহিদুল আলম সোহেল, আনিসুর রহমান জিকু ও মাজহারুল ইসলাম হিমেল।

ডিফেন্ডার: বিশ্বনাথ ঘোষ, টুটুল হোসেন বাদশা, সুশান্ত ত্রিপুরা, রহমত মিয়া, মনজুরুর রহমান, ইয়াসিন খান, রিয়াদুল হাসান, নুরুল নাইয়ুম ফয়সাল ও ইয়াসিন আরাফাত।

মিডফিল্ডার: মাসুক মিয়া জনি, জামাল ভুঁইয়া, মামুনুল ইসলাম, সোহেল রানা, রবিউল হাসান, বিপলু আহমেদ, আরিফুর রহমান ও মোহাম্মদ ইব্রাহিম।

ফরোয়ার্ড : নাবিব নেওয়াজ জীবন, মাহবুবুর রহমান সুফিল, মতিন মিয়া, সাদ উদ্দিন ও জুয়েল রানা।

 

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র