Barta24

সোমবার, ১৯ আগস্ট ২০১৯, ৪ ভাদ্র ১৪২৬

English

হ্যাজার্ডের জোড়া গোলে জয় চেলসির

হ্যাজার্ডের জোড়া গোলে জয় চেলসির
সতীর্থদের নিয়ে হ্যাজার্ডের গোল উদযাপন
সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

শিরোনামটা হতে পারতো হ্যাজার্ডের কাছেই হেরে গেল ওয়েস্ট হ্যাম ইউনাইটেড। আসলেই তাই। ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে সোমবার রাতে ইডেন হ্যাজার্ডই জয়ের নায়ক। তার জোড়া গোলে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে চেলসি।

নিজেদের মাঠ স্ট্যামফোর্ড ব্রিজে ২-০ গোলে জিতেছে অলব্লুজরা। এই সাফল্যে পয়েন্ট তালিকায় তিন নম্বরে উঠে গেলো চেলসি।

খেলার ২৪তম মিনিটে দলকে এগিয়ে দেন হ্যাজার্ড। গোলটিও ছিল দেখার মতো। প্রায় ৩৫ গজ দূর থেকে বল নিয়ে ঢুকে পড়েন ওয়েস্ট হ্যামের সীমানায়। এরপর বেলজিয়ামের ফরোয়ার্ড একক দক্ষতায় খুঁজে নেন নিশানা (১-০)।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Apr/09/1554777132595.jpg

পরের গোলটি পেতে অবশ্য সময় লেগেছে। খেলার ৯০তম মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন সেই হ্যাজার্ড। সতীর্থ রস বার্কলির ভাসানো ক্রসে বল পেয়ে বল জালে পাঠান ওয়েস্ট হ্যামের। এবারের ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে এ নিয়ে ১৬ গোল নম্বর গোল করলেন তিনি।

এই জয়ে ৩৩ ম্যাচে চেলসির অর্জন ৬৬ পয়েন্ট। ৬৪ পয়েন্ট নিয়ে এরপরই আছে টটেনহ্যাম হটস্পার। ১ পয়েন্ট কম নিয়ে আর্সেনাল রয়েছে পঞ্চমস্থানে। প্রিমিয়ার লিগে ৩৩ ম্যাচ ৮২ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে লিভারপুল। ৮০ পয়েন্ট নিয়ে এরপরই ম্যানচেস্টার সিটি।

আপনার মতামত লিখুন :

এগারতে পা, এমন সাফল্য স্বপ্নেও ভাবেন নি কোহলি

এগারতে পা, এমন সাফল্য স্বপ্নেও ভাবেন নি কোহলি
২০০৮ সালের ১৮ আগস্ট আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে পা রাখেন কোহলি

চোখের পলকেই যেন সময়টা কেটে গেছে! এখনো পেছন ফিরে তাকলে স্মৃতিতে উজ্জ্বল ১৮ আগস্ট, ২০০৮! এদিনই ডাম্বুলায় ওয়ানডে অভিষেক বিরাট কোহলির। প্রথম ম্যাচে মাত্র ১২ রান করে ফিরেছিলেন সাজঘরে। তারপর কিছুদিন সংগ্রাম করলেও এরপর শুধুই এগিয়ে চলার গল্প। সময়ের পথ ধরে নিজেকে নিয়ে গেছেন অনন্য উচ্চতায়। হয়ে উঠেছেন ভারত ও বিশ্বের সর্বকালের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান।

সেই বিরাট কোহলি আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে পা রাখলেন ১১ বছরে। ক্যারিয়ারের প্রথম একবছর কোনও সেঞ্চুরির দেখা না মিললেও এখন বিশ্বের নাম্বার ওয়ান ব্যাটসম্যান। বলা হচ্ছে শচীন টেন্ডুলকারের সব রেকর্ড একদিন তারই হবে!

ক্যারিয়ারের বিশেষ এই দিনে কোহলি রয়েছেন ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে। সেখান থেকেই ভক্তদের উদ্দেশ্যে বিশেষ বার্তা দিলেন তিনি। সোমবার আবেগঘন সেই বার্তায় ছিল সবার জন্য উপদেশও!

টুইটারে বিরাট কোহলি লিখেছেন, ‘টিনেজ হিসেবে ২০০৮ সালের ১৮ আগস্ট আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে পথচলা শুরু। এরপর ১১ বছরে ঈশ্বর আমাকে যা আশীর্বাদ দিয়েছেন তা আমি স্বপ্নেও ভাবিনি! তোমরা সঠিক পথ খুঁজে নাও। তোমরা তোমাদের স্বপ্ন তাড়া করার শক্তি সঞ্চয় করো!’

এই টুইটের সঙ্গে ২০০৮ ও বর্তমান সময়ে নিজের দু’টি ছবি ভক্তদের সঙ্গে ভাগাভাগি করেন কোহলি।

যদিও ক্যারিয়ারের শুরুটা তেমন ভাল ছিল না তার। প্রথম বছর সেঞ্চুরির দেখা পাননি। ২০০৯ ইডেন গার্ডেনে এসে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে প্রথম শতরান আসে কোহলির ব্যাট থেকে। এরপর শুধুই এগিয়ে গেছেন তিনি।

২০১১ থেকে দাপট শুরু। তারপর ওয়ানডে ক্রিকেটে প্রতি ক্যালেন্ডার ইয়ারে ১ হাজারের বেশি রান তুলেছেন তিনি। মাঝে অবশ্য ২০১৫, ২০১৬ সালে ছন্দপতন হয়েছিল। এরইমধ্যে করে ফেলেছেন ৪৩ ওয়ানডে সেঞ্চুরি। আর ৭টি করলেই পেছনে ফেলবেন লিজেন্ড শচীন টেন্ডুলকারকে!

ভারতের হয়ে ৭৭ টেস্ট খেলে করেছেন ৬৬১৩ রান। ২৩৯ ওয়ানডেতে ১১৫২০ আর ৭০ টি-টুয়েন্টিতে তুলেছেন ২৩৬৯ রান।

এদিকে ইতিহাসের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যানকে সম্মান জানানো হচ্ছে। তার কীর্তির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে দিল্লির বিখ্যাত ফিরোজ শাহ কোটলা স্টেডিয়ামের একটি স্ট্যান্ড কোহলির নামে রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে দিল্লি জেলা ক্রিকেট সংস্থা। ১২ সেপ্টেম্বর এই ‘বিরাট কোহলি স্ট্যান্ড’ উদ্বোধন করা হবে।

আঘাত নিয়েও হেডিংলি টেস্টে খেলবেন স্মিথ!

আঘাত নিয়েও হেডিংলি টেস্টে খেলবেন স্মিথ!
আর্চারের বাউন্সারের আঘাতে মাঠে পড়ে আছেন স্মিথ, ছবি: সংগৃহীত

ঘাড়ে বাউন্সারের আঘাত নিয়ে লর্ডস টেস্টের শেষ দিন মাঠে নামেননি স্টিভেন স্মিথ। অবশ্য গুরুতর কোনো সমস্যা ধরা পড়েনি স্ক্যান রিপোর্টে। তবে আঘাতের ধকল কাটিয়ে উঠতে পারেননি। তাই সতর্কতা হিসেবে দ্বিতীয় টেস্টের পঞ্চম দিন বিশ্রামেই ছিলেন অস্ট্রেলিয়ার সাবেক এ অধিনায়ক।

তবে তৃতীয় টেস্টের আগেই শতভাগ ফিট হয়ে যাবেন বলেই  প্রত্যাশাই করছেন এ তারকা অজি ব্যাটসমান।

শনিবার ব্যক্তিগত ৮০ রানের স্কোরে থাকার সময় ইংলিশ পেসার জোফরা আর্চারের বাউন্সারের আঘাতে মাঠে লুটিয়ে পড়েন স্মিথ। রিটায়ার্ড হার্ট হয়ে ফেরেন সাজঘরে।  

প্রাথমিক পরীক্ষা-নিরীক্ষায় উত্তীর্ণ হলে ফের ব্যাট হাতে মাঠে নেমে স্কোরটা টেনে নিয়ে যান ৯২ তে। তবে পঞ্চম দিনে তার বদলি হিসেবে মাঠে নামেন মারনাস লাবুশেন।

২২ আগস্ট বৃহস্পতিবার হেডিংলিতে অ্যাশেজ সিরিজের তৃতীয় টেস্ট শুরুর আগে ফের পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হবে স্মিথের।

নিজের চোট নিয়ে স্মিথ বলেন, ‘আঘাত পাওয়াটা  অবশ্যই দুশ্চিন্তার বিষয়। তবে আমি শতভাগ ফিট হতে চাই। এটা মেডিকেল টিমের ওপর নির্ভর করছে। আমরা এনিয়ে কথা বলেছি।’

তবে ভক্ত সমর্থকদের আশার বাণী শুনিয়েছেন স্মিথ, ‘তৃতীয় টেস্ট শুরুর আগে আগামী কয়েকটা দিন নিবিড় পর্যবেক্ষণে থাকব। প্রত্যাশা করছি, আমি চোট কাটিয়ে উঠতে পারব। এবং আগামী টেস্টের জন্য ফিট হয়ে উঠব।’

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র