Barta24

শনিবার, ১৭ আগস্ট ২০১৯, ২ ভাদ্র ১৪২৬

English

মাকে নিয়ে আবেগী বার্তা সাকিব-মুশফিক-সাব্বিরের

মাকে নিয়ে আবেগী বার্তা সাকিব-মুশফিক-সাব্বিরের
মুশফিকের জীবনে তিন বিশেষ নারী- স্ত্রী, মা ও শাশুড়ি মা- ছবি: ফেসবুক
সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

মা-চিরন্তন আত্মত্যাগ আর ভালবাসার প্রতিচ্ছবি। মমতাময়ী মাকে ঘিরে আবেগের শেষ নেই। সন্তানের শেষ আশ্রয় মা। প্রতি বছর মে মাসের দ্বিতীয় রোববার সারা বিশ্বে পালিত হয় মা দিবস। এবারও ব্যতিক্রম হচ্ছে না। গর্ভধারিণী, জননীকে গভীর মমতায় স্মরণ করার দিন আজ।

মায়েদের শুভেচ্ছায় সিক্ত করছেন সন্তানরা। আর বাংলাদেশের ক্রিকেটাররাও সামিল বিশ্ব মা দিবসের এই আয়োজনে। মাকে নিয়ে আবেগী বার্তা দিয়েছেন জাতীয় দলের তিন ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম ও সাব্বির রহমান।

এই তিন ক্রিকেটারই এখন ত্রিদেশীয় ক্রিকেট খেলতে রয়েছেন আয়ারল্যান্ডে। সুদুর পরবাস থেকে সাকিব আল হাসান নিজের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজে দিয়েছেন স্ট্যাটাস। যেখানে তিনি পৃথিবীর সব মাকে অলরাউন্ডারের চেয়ারে বসালেন।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/May/12/1557652221737.jpg

সাকিব লিখেছেন, ‘আমাদের সবার পরিবারের সবদিক ঠিকঠাক রাখতে মায়ের ভূমিকাই সবচেয়ে বেশি। ঘরে কিংবা বাইরে, মায়েরা দুই জায়গাতেই আমাদের সামলে রাখেন পরম মমতায়। যত্ন ও ভালোবাসার সাথে সংসারে স্বচ্ছলতা আনায় তাদের অবদানও অপরিসীম। পৃথিবীর সবচেয়ে দক্ষ অলরাউন্ডার আমাদের এই মায়েরাই।’

ফেসবুকে নিজের অফিসিয়াল পেজে মুশফিক পৃথিবীর সব মাকে জানালেন শুভেচ্ছা। যেখানে একটি ছবিতে তিন নারীকে জায়গা দিলেন তিনি। তারা হলেন- মা, শাশুড়ি মা ও স্ত্রী। বিশেষ এই তিনজনের ছবি মুশফিক লেখেন, ‘পৃথিবীর সকল মাকে মা দিবসের শুভেচ্ছা। বিশেষ করে ছবির এই তিন নারীকে। তোমরা অনন্য, সুন্দরী আর দুনিয়ার সবচেয়ে বড় আশীর্বাদ।’

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/May/12/1557652244020.jpg

জাতীয় দলের আরেক তারকা ক্রিকেটার সাব্বির রহমানও শ্রদ্ধা-ভালবাসায় সিক্ত করলেন জন্মদাত্রী মাকে। নিজের ভেরিফাইড ফেসবুকে তিনি লিখেছেন দীর্ঘ এক স্ট্যাটাস।

সাব্বির লেখেন, ‘মা পৃথিবীর শ্রেষ্ঠতম একটি নাম...মায়ের চেয়ে সহজ গভীর কোন অনুভূতি নেই...মায়ের ভালোবাসা হয়তো পৃথিবীর কোন দাড়ি পাল্লায় মাপা সম্ভব নয়...পৃথিবীর সব কিছু পরিবর্তনশীল কিন্তু মায়ের ভালোবাসা কখনো পরিবর্তন হয় না....সেই ছোট ছোট পায়ে তোমার হাত ধরে পথ চলতে চলতে এই পর্যন্ত এসেছি এর পেছনে তোমার অবদান শীর্ষে মা...তুমি আমার জীবনের প্রথম দেখা সেই জন যাকে আল্লাহ তার অনুপস্থিতিতে আমার কাছে পাঠিয়েছে তুমি আমার জীবনের পথ চলা থেকে শুরু করে জীবনের শ্রেষ্ঠ এবং ভাল একজন মানুষ হিসেবে তৈরী করেছ...তোমার তুলনা কারো সাথে হয়না মা...প্রথম দিন থেকে জীবনের শেষ দিন পর্যন্ত আমি শুধু তোমার দোয়া নিয়ে বেঁচে থাকতে চাই....আল্লাহতায়ালা যেন তোমার আয়ু হাজার বছর বাড়িয়ে দেয় এবং তোমার হাতটা সারা জীবন যাতে ছায়ার মত আমার মাথার উপর থাকে...
তোমাকে সত্যিই অনেক ভালবাসি মা..
Happy Mother’s Day Maa....?’

আপনার মতামত লিখুন :

ঘরে ফিরলেন লেফট্যানেন্ট কর্নেল ধোনি

ঘরে ফিরলেন লেফট্যানেন্ট কর্নেল ধোনি
নতুন দ্বায়িত্ব শেষ করলেন মহেন্দ্র সিং ধোনি

দেশসেবা করবেন এই ভেবে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফর থেকে সরিয়ে নিয়েছিলেন নিজেকে। টেরিটোরিয়াল আর্মির সঙ্গে সীমান্তরক্ষার কাজে নেমে পড়েন লেফট্যানেন্ট কর্নেল মহেন্দ্র সিং ধোনি। পনের দিনের সেই দেশসেবা শেষ। ঘরে ফিরলেন তিনি। শনিবার নয়াদিল্লিতে ফেরেন ধোনি। রাজধানী হয়ে জন্মশহর রাঁচিতে নিজের বাড়িতে ফেরার কথা তার।

৩১ জুলাই টেরিটোরিয়াল আর্মির একজন সক্রিয় সদস্য হিসেবে প্রশিক্ষণে যোগ দেন তিনি।

নতুন এই ভূমিকায় সময়টা বেশ উপভোগ করেছেন ভারতের সাবেক এই অধিনায়ক। শেষ দিনে আর্মি ব্যাটেলিয়নের সঙ্গে স্বাধীনতা দিবস উদযাপন করেন তিনি। এরপরই যান লাদাখের আর্মি হাসপাতালে। সেখানে ভর্তি জওয়ান ও তাদের পরিবারের সঙ্গে কথা বলেন বিশ্বকাপ জয়ী ভারত অধিনায়ক।

এর আগে সেনা পোশাকে ব্যাটে অটোগ্রাফ দিতেও দেখা যায় ধোনিকে। এমন কী ভলিবল খেলার ভিডিও ভাইরাল হয় তার।

ইংল্যান্ড বিশ্বকাপের পরই সীমান্তরক্ষী হিসেবে দেশসেবা করতে চেয়েছিলেন ধোনি। সেই ইচ্ছের প্রতি সম্মান জানিয়ে তাকে টেরিটোরিয়াল আর্মির ১০৬ টিএ প্যারা ব্যাটেলিয়ন হিসেবে জম্মু-কাশ্মীরে প্রশিক্ষণ করতে দেয় ভারতীয় সেনাবাহিনী। জম্মু-কাশ্মীরে ৩৭০ ধারা বাতিলের সময় লাদাখে ছিলেন তিনি।

২০১১ বিশ্বকাপ জেতার পর ভারতীয় টেরিটোরিয়াল আর্মি ধোনিকে প্রদান করে কর্নেল (সাম্মানিক) পদ। এরপর এয়ারক্র্যাফটের প্রশিক্ষণে পাঁচটি প্যারাশুট জাম্প সম্পূর্ণ করেন তিনি।

কন্ডিশনিং ক্যাম্পে আছেন মাশরাফিও

কন্ডিশনিং ক্যাম্পে আছেন মাশরাফিও
মিরপুরে বিসিবি কার্যালয়ে মাশরাফি বিন মর্তুজা

ঈদের ছুটি কাটিয়ে ক্রিকেটাররা মাঠের অনুশীলনে ফিরছেন ১৯ আগস্ট। ৫ সেপ্টেম্বর আফগানিস্তানের সঙ্গে এক ম্যাচের টেস্ট সিরিজ শুরু হবে। টেস্ট সিরিজ শেষে তিনজাতি টি-টুয়েন্টি সিরিজও অনুষ্ঠিত হবে সেপ্টেম্বর জুড়ে। এই দুই সিরিজকে কেন্দ্র করে নির্বাচকরা বাংলাদেশের ৩৫ জন ক্রিকেটারকে নিয়ে একটি কন্ডিশনিং ক্যাম্পের আয়োজন করেছেন। এই ক্যাম্পে চুক্তিবদ্ধ ক্রিকেটারদের সবাই থাকছেন। এমনকি টেস্ট এবং টি- টোয়েন্টি না খেলা মাশরাফি বিন মর্তুজাকে কন্ডিশনিং ক্যাম্পে রেখেছেন নির্বাচকরা।

সিরিজে খেলার ন্যূনতম সম্ভাবনা নেই, এমন খেলোয়াড়দের কেন কন্ডিশনিং ক্যাম্পে রাখা হয়েছে? বার্তাটোয়েন্টিফোরের কাছে এই প্রশ্নের জবাবে প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু জানালেন-‘কোন ক্রিকেটারের শারীরিক অবস্থা কি, ফিটনেস কেমন সেটা তো আমাদের ঠিক মতো জানা নেই এখন। কন্ডিশনিং ক্যাম্পে যোগ দিলে ফিজিও এবং ফিটনেস ট্রেনার সব ক্রিকেটারদের ফিটনেস সম্পর্কে জানতে পারবেন। মুলত সেই জন্যই চুক্তিতে থাকা সব ক্রিকেটারদের এই কন্ডিশনিং ক্যাম্পে ডাকা হয়েছে।’

আগামী ১৯ আগস্ট মিরপুরে কন্ডিশনিং কোচ মারিও ভিলাভারায়ানের কাছে ক্যাম্পে ডাক পাওয়া ক্রিকেটারদের রিপোর্ট করতে বলা হয়েছে। কন্ডিশনিং ক্যাম্পে ফিটনেস টেস্ট, জিম ও রানিং সেশন চলবে ২২ আগস্ট পর্যন্ত।

বিয়ের আনুষ্ঠানিকতার জন্য ছুটি নেয়া এই কন্ডিশনিং ক্যাম্পে যোগ দিতে পারছেন না সাব্বির রহমান।

কন্ডিশনিং ক্যাম্পে ডাক পাওয়া ক্রিকেটাররা-
ইমরুল কায়েস, সৌম্য সরকার, লিটন কুমার দাস, সাদমান ইসলাম, জাহিরুল ইসলাম, মুশফিকুর রহিম, মুমিনুল হক, সাকিব আল হাসান, মাহমুদুউল্লাহ রিয়াদ, মোহাম্মদ মিথুন, মোসাদ্দেক হোসেন, সাব্বির রহমান, আফিফ হোসেন ধ্রুব, মাশরাফি বিন মুর্তজা, মুস্তাফিজুর রহমান, রুবেল হোসেন, তাসকিন আহমেদ, এবাদত হোসেন চৌধুরী, শফিউল ইসলাম, ফরহাদ রেজা, আবু জায়েদ চৌধুরী রাহি, আবু হায়দার রনি, তাইজুল ইসলাম, মেহেদি হাসান মিরাজ, আরিফুল হক, ইয়াসির আলী চৌধুরী, নাজমুল হোসেন শান্ত, সাইফ হাসান, নাইম শেখ, নাইম হাসান,শহিদুল ইসলাম, শফিকুল ইসলাম, ইয়াসিন আরাফাত মিশু, মেহেদি হাসান ও আমিুনল ইসলাম বিপ্লব।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র