Alexa

নিষেধাজ্ঞার শঙ্কায় ম্যানসিটি!

নিষেধাজ্ঞার শঙ্কায় ম্যানসিটি!

উয়েফার কাঠগড়া প্রিমিয়ার লিগ চ্যাম্পিয়ন ম্যানচেস্টার সিটি

ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের শিরোপা জয়ের রেশ এখনো শেষ হয়নি। গত রোববার ব্রাইটন অ্যান্ড হোভকে উড়িয়ে টানা দ্বিতীয়বারের মতো জিতেছে লিগ ট্রফি। উদযাপন শেষ না হতেই দুঃসংবাদ পেলো ম্যানচেস্টার সিটি! ইউরোপিয়ান ফুটবলের সর্বোচ্চ সংস্থা উয়েফার নিষেধাজ্ঞার মুখে পড়তে পারে এই ক্লাবটি।

ফুটবলার কেনা-বেচায় আর্থিক অসঙ্গতির জন্য ম্যানসিটি কর্তৃপক্ষকে দাঁড়াতে হচ্ছে উয়েফার কাঠগড়ায়। তদন্তের মুখোমুখি হতে হচ্ছে চ্যাম্পিয়ন ক্লাবটির।

এরইমধ্যে উয়েফা স্পষ্ট জানিয়ে রেখেছে-তদন্তে আর্থিক অসঙ্গতি ধরা পড়লে এক বছরের জন্য নিষিদ্ধ হতে পারে ম্যানসিটি। উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগ সহ উয়েফার অন্য টুর্নামেন্টগুলোতেও খেলতে পারবে না দলটি।

অবশ্য উয়েফা একাধিকবার সতর্ক করলেও দলবদলে অতিরিক্ত অর্থ ব্যয় করেছে ম্যানসিটি। ফিন্যান্সিয়াল ফেয়ার প্লে’র নিয়মের পরোয়া না করায় ফাঁসতে যাচ্ছে ক্লাবটি। সবকিছু ঠিক থাকলে রায় আসতে পারে চলতি সপ্তাহেই।

এরইমধ্যে ‘নিউইয়র্ক টাইমস’ জানিয়ে দিয়েছে আগামী অথবা পরের চ্যাম্পিয়ন্স লিগ থেকে বাদ দেওয়া হতে পারে সিটিকে। যুক্তরাষ্ট্রের এই পত্রিকাটি জানিয়েছে, দলবদলের ভুল তথ্য দিয়ে উয়েফাকে ভিন্ন পথে পরিচালনা করেছে ম্যানসিটি। এখানেই শেষ নয় স্পন্সর সম্পর্কেও সঠিক তথ্য দেয়নি উয়েফাকে।

এ কারণেই ম্যানসিটি ও আর ফরাসি ক্লাব পিএসজি ছিল উয়েফা আতশি কাচের নীচে। ফুটবল লিকসের প্রতিবেদনেও এনিয়ে ছিল অনেক তথ্য। দুটি ক্লাবই গত কয়েক মৌসুমে তাদের আয়ের তুলনায় ব্যয় করেছে কয়েকগুণ বেশি। এই কাজটিই ফিন্যান্সিয়াল ফেয়ার প্লে’র আইন বহির্ভূত।

এর আগেও এমন কাণ্ডে শাস্তি পেয়েছে সিটি। ২০১৪ সালে ফিন্যান্সিয়াল ফেয়ার প্লে নিয়ম ভাঙার তাদের ৬০ মিলিয়ন ইউরো জরিমানা করা হয়। এবার আর্থিক অসঙ্গতি ধরা পড়লে নিশ্চিত নিষিদ্ধ হবে প্রিমিয়ার লিগের এই ক্লাবটি।

যদিও ম্যানসিটি কর্তৃপক্ষ এরইমধ্যে জানিয়ে দিয়েছে, অভিযোগ পুরোটাই মিথ্যে। উয়েফার এমন তদন্তকে স্বাগত জানিয়েছে তারা।

আপনার মতামত লিখুন :