Alexa

ফাইনালে খেলবেন সাকিব, যদি না...!

ফাইনালে খেলবেন সাকিব, যদি না...!

বাংলাদেশ আয়ারল্যান্ডে তিনজাতি ক্রিকেট ম্যাচে সাকিবের হঠাৎ ইনজুরি/ ছবি: সংগৃহীত

প্রথম ম্যাচে ৮ উইকেটের জয়। দ্বিতীয় ম্যাচ ৫ উইকেটে। তৃতীয় ম্যাচে জিতল বাংলাদেশ ৬ উইকেটে। তিন ম্যাচে দাপুটে জয়। তিন ম্যাচের কোনো সময়ে মনে হয়নি বাংলাদেশ ছাড়া এই ম্যাচে প্রতিপক্ষের জেতার সম্ভাবনা আছে। এমনই একতরফা ভঙ্গিতে জিতে টুর্নামেন্টের ফাইনালে উঠে বাংলাদেশ। দলের শুরুর এবং মাঝের প্রায় সব ব্যাটসম্যান বড় রান পেয়েছেন। বোলাররাও ভালো পারফর্ম করেছেন।

ঠিক যাকে বলে সবকিছু পাওয়া। তাই পেয়েছে বাংলাদেশ আয়ারল্যান্ডে তিনজাতি ক্রিকেটের পেছনের তিন ম্যাচে। প্রতিটা ম্যাচের শেষে এসে অধিনায়ক দলের প্রশংসা করছেন। বিষয়টা বেশ স্বস্তির। তবে ফাইনালের আগে অস্বস্তির কাঁটা একটাই-সাকিবের হঠাৎ ইনজুরি!

আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে বুধবারের ম্যাচে ব্যাটিংয়ের সময় পিঠের চোটে সমস্যায় পড়েন সাকিব। ততক্ষণে ম্যাচে তার হাফ সেঞ্চুরি হয়ে গেছে। ফিজিও মাঠে এসে তার পিঠে খানিকটা ম্যাসাজও করেন। ঔষুধও খান সাকিব। উঠেও দাঁড়ান। কিন্তু পিঠের পেশির সেই চোটের অস্বস্তিটা দূর হয়নি। যেহেতু দল ততক্ষণে ম্যাচ জয়ের কাছাকাছি পৌঁছে গেছে প্রায়, তাই বাড়তি ঝুঁকি না নিয়ে সাকিব ড্রেসিংরুমে ফিরে আসেন। স্কোরবোর্ডে তার নামের পাশে লেখা হয়-সাকিব রিটায়ার্ট হার্ট।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/May/16/1557987204311.jpg

তার এই সর্বশেষ ইনজুরির মাত্রাটা কতখানি, সেটা জানার জন্য বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে। তবে প্রাথমিক তথ্য অনুযায়ী জানা গেছে-পিঠের পেশির এই চোট খুব বড় কোনো সমস্যা নয়। হঠাৎ করে এক রকম আবহাওয়া থেকে পুরো অন্য ধাঁচের আবহাওয়ায় খেলতে গেলে অনেকের পেশির সহনীয় ক্ষমতায় এমন সমস্যা তৈরি হতেই পারে। সম্ভবত সাকিবও সেই সমস্যায় পড়েছেন। যদি পিঠের পেশির তন্তুতে বেশি টান না পড়ে তবে সামান্য বিশ্রামেই এই সমস্যা কাটিয়ে ওঠার কথা সাকিবের।

অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজাও তাই বলেছেন-‘টেনশনের কিছু নেই।’ শুক্রবারের ফাইনালে সাকিবকে রেখেই ম্যাচ পরিকল্পনা সাজাচ্ছে বাংলাদেশ। অবশ্য ফাইনালের আগে বৃহস্পতিবার দলের অনুশীলন থেকে সাকিব বিশ্রামে থাকছেন। সাকিবের এই চোটের হাল হকিকত এবং এটি দীর্ঘমেয়াদি বাড়তি কোনো সমস্যা তৈরি করবে কিনা-সেই প্রশ্নের উত্তর আগে পেতে চায় টিম ম্যানেজমেন্ট। তাৎক্ষণিকভাবে দলের ফিজিও’র কাছ থেকে অবশ্য ইতিবাচক ইঙ্গিতই মিলেছে। ফাইনাল বলেই সাকিব নিজেও এই ম্যাচে খেলতে আগ্রহী। তবে বিশ্বকাপের আগে যাতে এই চোট বাড়তি কোনো সমস্যা তৈরি না করে সেদিকেও সতর্ক  কোচ বাংলাদেশ দলের।

তিনজাতি টুর্নামেন্টের ফাইনালে খেলার চেয়ে সাকিবকে যে বাংলাদেশের বেশি প্রয়োজন বিশ্বকাপের মাঠেই।

 

আপনার মতামত লিখুন :