Barta24

বুধবার, ২৬ জুন ২০১৯, ১২ আষাঢ় ১৪২৬

English Version

সাকিব দল না পেলেও সেন্ট কিটসে আফিফ

সাকিব দল না পেলেও সেন্ট কিটসে আফিফ
সিপিএলে দল পেলেন বাংলাদেশের তরুণ অলরাউন্ডার আফিফ হোসেন ধ্রুব
সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (সিপিএল) সপ্তম আসরে দল পাননি সাকিব আল হাসান। শুধু তিনিই নন, বিশ্ব ক্রিকেটে টি-টুয়েন্টির বড় বিজ্ঞাপন হিসেবে পরিচিত রশিদ খান, জোফরা আর্চার, ক্রিস লিনদেরও কেউ কিনেনি। তারকাদের অবজ্ঞার এই নিলামে বুধবার দল পেয়ে গেলেন বাংলাদেশের তরুণ ক্রিকেটার আফিফ হোসেন ধ্রুব। অবশ্য সাকিবসহ অন্য তারকা ক্রিকেটাররা জাতীয় দল ও ইউরো লিগে খেলা নিয়ে ব্যস্ত থাকার সম্ভাবনা আছে এ কারণেই নাকি দলগুলো আগ্রহ দেখায়নি!

ড্রাফটে ছিল ১৯ টাইগার ক্রিকেটার নাম। যারা হলেন-তারা হলেন- সাকিব আল হাসান, এনামুল হক বিজয়, মুশফিকুর রহিম, লিটন কুমার দাস, জাকির হাসান, আরিফুল হক, আফিফ হোসেন ধ্রুব, জুবায়ের হোসেন লিখন, তামিম ইকবাল, ইমরুল কায়েস, মেহেদী হাসান মিরাজ, তাসকিন আহমেদ, মোহাম্মদ মিঠুন, সাব্বির রহমান, আবুল হাসান রাজু, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, আবু হায়দার রনি, সাইফ হাসান ও মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন।

এরমধ্যে ১৩তম রাউন্ড শেষে দল পেয়ে যান অলরাউন্ডার আফিফ। তাকে দলে টেনেছে সেন্ট কিটস এন্ড নেভিস প্যাট্রিয়টস। কার্লোস ব্রাথওয়েট, এভিন লুইসের সতীর্থ হলেন এই টাইগার ক্রিকেটার।

গত বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল) ব্যাট হাতে যোগ্যতার পরিধি দেখিয়েছেন আফিফ। সিলেট সিক্সার্সের হয়ে তিনি ১২ ম্যাচে ২০.৬৬ গড় ও ১২৪.০০ স্ট্রাইক রেটে তুলেন ২৪৮ রান। ১৯ বছর বয়সী আফিফ ক্যারিয়ারের একটি আন্তর্জাতিক টি-টুয়েন্টি ম্যাচ খেলে নিয়েছেন ১ উইকেট।

এর আগে সিপিএলে বাংলাদেশ থেকে নাম লিখিয়েছিলেন সাকিব, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, তামিম ইকবাল ও মেহেদী হাসান মিরাজ। সাকিব বার্বাডোস ট্রাইডেন্টস ও জ্যামাইকা তালাওয়াহস দুই দলের হয়ে মাতিয়েছেন মাঠ। গতবার সিপিএলে দল পেলেও শেষদিকে সরে দাঁড়ান সাকিব। মাহমুদউল্লাহও অবশ্য কয়েকটি ম্যাচ খেলেন।

পঞ্চম আসরে মেহেদী হাসান মিরাজ ছিলেন শাহরুখ খানের দল ত্রিনবাগো নাইট রাইডার্সে। যদিও কোন ম্যাচ খেলার সুযোগ হয়নি এই অলরাউন্ডারের।

এ বছরের সিপিএল শুরু হবে ৪ সেপ্টেম্বর থেকে। ১২ অক্টোবর ফাইনালে শেষ লড়াই।

আপনার মতামত লিখুন :

১৬৯৩ নারী ফুটবলারের চেয়ে দ্বিগুণ বেতন মেসির!

১৬৯৩ নারী ফুটবলারের চেয়ে দ্বিগুণ বেতন মেসির!
মেসির বিশাল বেতন নিয়ে উদ্বেগ জাতিসংঘের

লিওনেল মেসিকে নিয়ে সমালোচনা করার মতো মানুষের অভাব নেই। কোনো সংস্থা আর্জেন্টাইন ফুটবল জাদুকরকে নিয়ে সমালোচনামুখর হবে তা কিন্তু ভাবাই যায় না। অতীতে এমনটা না হলেও এবার তেমন তিক্ত অভিজ্ঞতার মুখোমুখি হতে হল বার্সার এ মেগাস্টারকে।

মেসির সমালোচনা করেছে জাতিসংঘের সহযোগী সংস্থা ইউনাইটেড ন্যাশনস উইমেন। পাঁচবারের ব্যালন ডি’অর জয়ী ফুটবল মহাতারকা মেসির প্রতি তাদের অভিযোগ তার মাঠের পারফরম্যান্স নিয়ে নয়। তার বিশাল অঙ্কের বেতনই বাধিয়েছে যত গন্ডগোল।

আসলে সেটাও কোনো সমস্যা নয়। সমস্যাটা নারী-পুরুষ ফুটবলারদের বেতন বৈষম্য। বৈষম্যের উদাহরণ টান গিয়ে মেসির বেতনের কথা উঠে এসেছে সংস্থাটির অভিযোগে।

নারী ফুটবল থেকে পুরুষ ফুটবলে বেতন বৈষম্যটা আকাশ-পাতাল তফাত। নারী ফুটবলকে সমান গুরুত্ব না দেওয়া ও বেতন বৈষম্যের কারণে চলতি বিশ্বকাপে দর্শক হয়ে আছেন অ্যাডা হ্যাজারবার্গ। যা নরওয়ের জন্য বড় এক ধাক্কা। কারণ হ্যাজারবার্গ শুধু এবারের ব্যালন ডি’অর জয়ীই নন, লিঁওর হয়ে টানা চারটি চ্যাম্পিয়নস লিগও জিতেছেন এ তারকা ফুটবলার।

বিশ্বে ক্লাব ফুটবল থেকে সবচেয়ে বেশি বেতন পান বার্সেলোনার মহা তারকা মেসি। কর ছাড়া বছরে তার বেতন ৮৪ মিলিয়ন ডলার।

জাতিসংঘের ফেসবুক পেজের এক ছবি পোস্ট করাতেই স্পষ্ট হয়েছে তা। ইউরোপের ৭টি সেরা লিগে খেলা ১৬৯৩ জন নারী ফুটবলারদের সবার যে বেতন পান। তার দ্বিগুণ পান মেসি একাই!

ওই নারী ফুটবলারদের মোট বাৎসরিক বেতন ৪২.৬ মিলিয়ন ডলার। আর মেসি একাই পান ৮৪ মিলিয়ন ডলার!

ফিফা নারী বিশ্বকাপ চলার সময় খেলাধুলায় মেয়েদের সমান বেতনের দাবি করে আন্দোলনের ডাক দিয়েছে ইউনাইটেড নেশনস উইমেন।

বেতন বৈষম্য নিয়ে এমনিতেই সরব নারী ফুটবলাররা। বিশ্বকাপের শেষ আটে উঠা যুক্তরাষ্ট্রের ২৮ জন ফুটবলার মামলা করেছেন তাদের ফুটবল ফেডারেশনের বিরুদ্ধে। ক্ষতিপূরণের দাবি বিশ্বকাপ শেষে সমাধানের আশ্বাস দিয়ে অ্যালেক্স মরগান,মেগান র‍্যাপিনু ও কার্লি লয়েডদের আপাতত শান্ত রেখেছে ফেডারেশন।


কিউইদের ‘সমস্যা’ দেখিয়ে দিলেন আজহার মাহমুদ

কিউইদের ‘সমস্যা’ দেখিয়ে দিলেন আজহার মাহমুদ
পাকিস্তানের বোলিং কোচ আজহার মাহমুদ

বার্মিংহামে নিউজিল্যান্ডকে হারানোর স্বপ্ন দেখছেন আজহার মাহমুদ। কেননা বিশ্বকাপে নিউজিল্যান্ডের বড় ম্যাচ জয়ের সামর্থ্য নিয়ে সন্দেহ আছে পাকিস্তানের এ বোলিং কোচের। আজ বুধবার কিউইদের বিপক্ষে মাঠে নামছে পাকিস্তান।

পাকিস্তানের হয়ে তিন বিশ্বকাপ খেলা সাবেক এ অলরাউন্ডার বলেন, ‌বিশ্বকাপের প্রথম দিকে ভালো খেলার রেকর্ড আছে নিউজিল্যান্ডের। কিন্তু টুর্নামেন্টের শেষ দিকে চাপে ভেঙে পড়ার নজিরও আছে তাদের। তাই পাকিস্তানের জয়ই ভাসছে এখন তার চোখে।  

পাকিস্তানের সাবেক এ তারকা ক্রিকেটার বলেন, ‌‌‘নিউজিল্যান্ডের ইতিহাসটাই এমন, বিশ্বকাপের মতো মেজর আসরের শুরুর দিকে তারা যখন জিতে তখন জিতেই চলে। কিন্তু যখন কোয়ার্টার ফাইনাল বা সেমি-ফাইনালে যখন কঠিন পরিস্থিতির সামনে দাঁড়ায়, তখন তারা আগের মতো ভালো খেলতে পারে না।’

তার প্রমাণ হিসেবে আজহার মাহমুদ জানান, নিউজিল্যান্ড এখনো বিশ্বকাপ জেতেনি। ছয় বার সেমিফাইনালে খেলেছে তারা। গতবার ফাইনালে অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে পেরে উঠেনি।  

খারাপ দিন সবারই আসে। মাহমুদের প্রত্যাশা আজ মাঠের লড়াইয়ে বাজে সময়টা অপেক্ষা করছে নিউজিল্যান্ডের জন্য, ‌‌‌‘বাজে সময় যে কোনো দলেরই আসতে পারে। প্রত্যেকেরই খারাপ দিন যায়। আশা করি আজ দিনটা খারাপ যাবে কিউইদের।’

বিশ্বকাপের এবারে আসরের সঙ্গে ১৯৯২ বিশ্বকাপের মিল খুঁজে পাচ্ছেন মাহমুদ। কিন্তু তার দল নাকি সেভাবে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার কথা ভাবছে না। কারণ ১৯৯৯ বিশ্বকাপে একই অবস্থানে থেকে শিরোপা জিতেছিল অস্ট্রেলিয়া।  

ক্যাপ্টেন কেন উইলিয়ামসনের দল এখন পর্যন্ত হার মানেনি ইংল্যান্ড ও ওয়েলস বিশ্বকাপে।  ছয় ম্যাচে পাঁচ জয়ে ১১ পয়েন্ট নিয়ে তালিকার দ্বিতীয় স্থানে তারা। ভারতের বিপক্ষে কিউইদের বড় ম্যাচটিই মাঠে গড়ায়নি বৃষ্টির কারণে।  

বিপরীতে শুরুটা বাজে খেলে এখন চাপে আছে পাকিস্তান। দক্ষিণ আফ্রিকাকে বিদায় করে অবশ্য সেমিফাইনালে খেলার আশা জিইয়ে রেখেছে অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদের দল। শেষ চারে উঠতে হলে আজ এজবাস্টনে জয়ের কোনো বিকল্প নেই তাদের সামনে।   

আর ছয় ম্যাচে ২ জয় আর তিন হারে ৫ পয়েন্ট নিয়ে সপ্তম স্থানে পাকিস্তান। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে তাদেরও একটি ম্যাচ মাঠে গড়ায়নি বৃষ্টির কারণে।  


এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র