Alexa

তিনশ প্লাস রান তাড়া, বাংলাদেশের বড় সমস্যা!

তিনশ প্লাস রান তাড়া, বাংলাদেশের বড় সমস্যা!

বিশ্বকাপে কঠিন চ্যালেঞ্জের মুখে পড়বেন টাইগার ব্যাটসম্যানরা

এককথায় প্রায় সবার বিশ্লেষণ শেষ হচ্ছে এক জায়গায় এসে-এবারের বিশ্বকাপ হবে রান উৎসবের বিশ্বকাপ! প্রতি ম্যাচেই প্রচুর রান হবে। আগে ব্যাটিং করলে তিনশ’র বেশি রান তুলতে হবে। পরে ব্যাট করলে তিনশ প্লাস স্কোর তাড়া করে ম্যাচ জিততে হবে।

বিশ্বকাপের আগেভাগে সেই তিনশ প্লাস রান করা অথবা এমন রান তাড়া করে ম্যাচ জেতার প্রস্তুতিটা বেশ কয়েকটা দলের হয়ে গেলো। সাম্প্রতিক সময়ে এই শক্তি পরীক্ষায় সবচেয়ে ভালোভাবে উত্তীর্ন হয়েছে ইংল্যান্ড। পাকিস্তানের বিপক্ষে চার ম্যাচের প্রতিটিতেই আগে ব্যাট করতে নেমে তিনশ প্লাস রান তুলেছে। অথবা রান তাড়ায় নেমে তিনশ’র বেশি রানের টার্গেট টপকে গেছে। সেই সিরিজে পাকিস্তান কোনো ম্যাচ জিততে না পারলেও তাদের ব্যাটসম্যানরা তিনশ প্লাস স্কোর ঠিকই গড়েছে।

স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজে শ্রীলঙ্কাও এই অভ্যাসটা দেখিয়েছে। আফগানিস্তান তাদের প্রথম ওয়ানতে আয়ারল্যান্ডের কাছে হারলেও পরের ম্যাচেই তিনশ’র বেশি রান তুলে ম্যাচ জিতেছে।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের সর্ব সাম্প্রতিক ওয়ানডে রেকর্ড তেমন ভালো নয়, কিন্তু বড় স্কোর গড়ার অভ্যাস ঠিকই দেখিয়েছে তারাও। আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথম উইকেট জুটিতেই ৩৬৫ রানের বিশ্বরেকর্ড গড়েছে তারা। ম্যাচে তুলেছে ৩৮১ রান। যা ওয়ানডে ক্রিকেটে তাদের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ স্কোর।

বাংলাদেশ তাদের সর্বশেষ চারটি ওয়ানডেতে দাপট দেখিয়ে ম্যাচ জিতেছে ঠিকই। প্রতিটি ম্যাচেই রান তাড়া করে জিতেছে। এবং বেশ বড় রানও বটে। আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে ২৯২ রান তাড়া করেছে সহজেই। ফাইনালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের দেয়া ২৪ ওভারে ২১০ রান পেরিয়ে গেছে সাত বল হাতে রেখেই।

তবে ক্রিকেটে একটা চিরসত্য হলো যখন দল জিততে থাকে তখন দুর্বলতাগুলো ঠিক চিহ্নিত হয় না। চোখে পড়ে না। আয়ারল্যান্ডের তিনজাতি ক্রিকেটে ট্রফি জয়ের সাফল্য বিশ্বকাপ প্রস্তুতিতে বাংলাদেশকে আত্মবিশ্বাস দিচ্ছে ঠিকই, কিন্তু বিষয় যখন তিনশ বা তারচেয়েও বেশি রান তোলা অথবা সেটা তাড়া করে জেতা-তখন সেই তালিকায় বাংলাদেশ ব্যাকবেঞ্চার!

এখন পর্যন্ত খেলা নিজেদের ৩৬২টি ওয়ানডে ম্যাচে বাংলাদেশ মাত্র ১৩ বার তিনশ বা তারচেয়ে বেশি রান তুলেছে। সর্বোচ্চ রান ৩২৯। তবে বাংলাদেশের তিনশ’র বেশি রান তুলেও বাংলাদেশ ম্যাচ বাঁচাতে পারেনি-এমন নজিরও আছে দুটো। ঢাকার মাঠে ৩২৬ রান তুলেও পাকিস্তানের কাছে সেই ম্যাচ হেরেছে বাংলাদেশ। আবার ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ৩০৫ রানের সঞ্চয় নিয়েও ম্যাচ বাঁচাতে পারেনি দল। ২০১৭ সালের আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে ওভালে সেই ম্যাচ ইংল্যান্ড অনায়াসে ৮ উইকেটে জিতে নেয়।

-আর তিনশ বা তারচেয়ে বেশি রান তাড়া করে বাংলাদেশের ম্যাচ জয়ের রেকর্ড খুঁজতে হ্যারিকেন বাতিতে অনেক তেল ঢালতে হবে! রেকর্ড বলছে, ওয়ানডে ক্রিকেটে বাংলাদেশ তিনশ বা তারচেয়ে বেশি রান তাড়া করে ম্যাচ জিতছে মাত্র তিন খানা।

তাও আবার সর্বশেষটা চার বছর আগের। ২০১৫ সালের বিশ্বকাপে নেলসনে স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে ৩১৮ রান তাড়া করে ম্যাচ জিতে বাংলাদেশ ৬ উইকেটে, ১১ বল বাকি থাকতে। তারও আগে ২০১৩ সালের ৩ নভেম্বর ফতুল্লায় নিউজিল্যান্ডের ৩০৭ রান টপকে যায় বাংলাদেশ ৪ উইকেট হাতে রেখে। আর সর্বপ্রথম তিনশ বা তারচেয়ে বেশি রানের টার্গেট টপকে বাংলাদেশ ম্যাচ জিতেছিলো ২০০৯ সালের ১৬ অগাস্ট।

পরিসংখ্যানেই প্রমাণ তিনশ বা তারচেয়ে বেশি রান তাড়া করে ম্যাচ জয়ে বাংলাদেশ খুব একটা অভ্যস্ত নয়। আর আফগানিস্তান ছাড়া বিশ্বকাপের অন্যান্য দলগুলোর তিনশ রান তোলা এবং তারচেয়ে বেশি রান তাড়া করে ম্যাচ জেতার রেকর্ড বেশ সমৃদ্ধ।

১৯৮৭ সালের ১৩ অক্টোবর থেকে আজকের তারিখ পর্যন্ত ওয়ানডেতে সাড়ে তিনশ বা তারচেয়ে বেশি রানের ম্যাচ হয়েছে ১২৭টি। এর মধ্যে চারশর ওপর রানই হয়েছে ২০টি ম্যাচে। আর ওয়ানডেতে চারশ রান তোলায় সবচেয়ে বেশি মুন্সীয়ানার পরিচয় দিয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা ও ভারত। দক্ষিণ আফ্রিকা ওয়ানডে ক্রিকেটে চারশ রান তুলেছে সর্বোচ্চ ৬ বার। ভারতের এই রেকর্ড আছে পাঁচবার। ইংল্যান্ড চারশ রানের হাসিতে স্কোরবোর্ড সাজিয়েছে ৪বার। শ্রীলঙ্কা ও অস্ট্রেলিয়া দু’বার করে এবং নিউজিল্যান্ডের নাম এই তালিকায় মাত্র একবার।

মজার রেকর্ড হলো অস্ট্রেলিয়া তাদের ওয়ানডে ক্রিকেটে সর্বোচ্চ ৪৩৪ রান তুলেও কিন্তু ম্যাচ বাঁচাতে পারেনি। ২০০৬ সালের ১২ মার্চ জোহানেসবার্গের সেই ম্যাচেই দক্ষিণ আফ্রিকা ৪৩৮ রান তুলে ম্যাচ জিতে নেয়!

-তাহলে কি বুঝলেন, ওয়ানডে ক্রিকেটে ৪৩৪ রানও নিরাপদ কোনো সঞ্চয় নয়!

চারশ রান তোলার দক্ষতার প্রশ্নে ইংল্যান্ডও নিজেদের শ্রেষ্ঠত্ব দাবি করতে পারে। রেকর্ড তো তাদের পক্ষেই। এখন পর্যন্ত ওয়ানডে ক্রিকেটের সর্বোচ্চ দুটি স্কোর ৪৮১/৬ ও ৪৪৪/৩ রানের মালিক যে তারাই!

কি জানি বাপু, এই বিশ্বকাপে এমন বিশাল সব স্কোরের রেকর্ডও অক্ষুণ্ন থাকে কিনা?

আপনার মতামত লিখুন :