Alexa

নির্বাচনের মাঠেও বাজিমাত গম্ভীরের

নির্বাচনের মাঠেও বাজিমাত গম্ভীরের

প্রথমবার অংশ নিয়েই লোকসভার সদস্য হলেন গৌতম গম্ভীর

তারা প্রত্যেকেই খেলার মাঠের সেরা তারকা। কেউ ক্রিকেটার। কেউবা আবার বক্সার কিংবা শুটার! ভারতের লোকসভা নির্বাচনে লড়েছিলেন বেশ কয়েকজন ক্রীড়াবিদ। কিন্তু সফল হতে পারেন নি অনেকেই। তাদের মধ্যে ব্যতিক্রম গৌতম গম্ভীর। রাজনীতির মাঠে নাম লিখিয়েই সফল। প্রথমবার অংশ নিয়েই হয়ে গেলেন লোকসভার সদস্য।

ক্যারিয়ারে দুটো বিশ্বকাপ উঠেছে তার হাতে। ২০০৭ সালে টি-টুয়েন্টি ও ২০১১ ওয়ানডে বিশ্বকাপ। এবার এই ক্রিকেটারটিই দেখা গেল রাজধানীর ময়দানে। গৌতম গম্ভীর গত মার্চে যোগ দেন বিজেপিতে। এবার নরেন্দ্র মোদীর উৎসবে সামিল তিনিও। পূর্ব দিল্লি লোকসভা কেন্দ্র থেকে বিজেপির হয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন তিনি। ৫৫.৩ শতাংশ ভোট পেয়ে হারিয়েছেন কংগ্রেসের অরবিন্দর সিংকে।

রাজনীতিতে বেশ পুরনো আরেক ক্রিকেটার কীর্তি আজাদ। ১৯৮৩ সালের বিশ্বকাপজয়ী এই তারকা ২০১৪ লোকসভা নির্বাচনে বিজেপির হয়ে লড়েন। কিন্তু এবার দল বদলে কংগ্রসে নাম লেখান তিনি। বিজেপির উৎসবে উড়ে গেলেন তিনি। পশুপতি নাথ সিংয়ের কাছে হেরে গেলেন কীর্তি আজাদ।

ভারতীয় বক্সিংয়ের পরিচিত মুখ বিজেন্দ্রর সিং। অলিম্পিকে দেশটির হয়ে জিতেছেন ব্রোঞ্জ পদক। এই বক্সার দক্ষিণ দিল্লি লোকসভা কেন্দ্র থেকে জাতীয় কংগ্রেসের টিকিটে নির্বাচনে নামেন। কিন্তু হতাশ হতে হয় তাকে। মাত্র ১৫.২ শতাংশ ভোট পেয়ে লড়াই তৃতীয় তিনি।

তবে রাজ্যবর্ধন সিং রাঠোরের মুখে ঠিকই হাসি থাকল। ভারতের হয়ে অলিম্পিকে রৌপ্যজয়ী শুটার বিজেপির হয়ে লড়েছেন এবারো। ২০১৪ লোকসভা নির্বাচনে জিতে ক্রীড়ামন্ত্রী হয়েছিলেন তিনি। এবার বিজেপির হয়েই জয়পুর গ্রামীণ লোকসভা কেন্দ্র বড় ব্যবধানেই ভোটযুদ্ধে পাশ রাঠোর। ৬৩.৮৩ শতাংশ ভোট পেয়েছেন সাবেক এই শুটার।

দিল্লি কমনওয়েলথ গেমসের স্বর্ণপদক জয়ী কৃষ্ণা পুনিয়া। অ্যাথলিট ট্র্যাক অ্যান্ড ফিল্ডে ঝড় তোলা এই তারকাটি এবারের লোকসভা নির্বাচনে প্রার্থী ছিলেন। কংগ্রেসের হয়ে লড়াইয়ে হার মানেন তিনি রাজ্যবর্ধন সিং রাঠোরের কাছে।

আপনার মতামত লিখুন :