Alexa

শ্রীলঙ্কা স্বস্তিতে, ‘পয়েন্ট হারিয়ে’ হতাশ বাংলাদেশ

শ্রীলঙ্কা স্বস্তিতে, ‘পয়েন্ট হারিয়ে’ হতাশ বাংলাদেশ

ম্যাচ পরিত্যক্ত, হতাশ বাংলাদেশ কোচ স্টিভ রোডস

চারটি ম্যাচ খেলেছে শ্রীলঙ্কা। তিনটিই বৃষ্টিতে পড়েছে। যার দুটি বৃষ্টিতে মাঠেই গড়ায়নি। সেই দুই ম্যাচ থেকে শ্রীলঙ্কা পেয়েছে দুই পয়েন্ট। আর কার্ডিফে আফগানিস্তানের বিপক্ষে বৃষ্টিবিঘ্নিত ম্যাচে জয় পেয়েছে শ্রীলঙ্কা। দুটি ম্যাচ বৃষ্টিতে বাতিল। তারপরও শ্রীলঙ্কা স্বস্তিতে!

-প্রশ্ন উঠছে কেন?

উত্তর এই দুটো ম্যাচ মাঠে গড়ালে শ্রীলঙ্কা হয়তো বা কোনো পয়েন্টই পেতো না! হারতো! ব্রিস্টলে বৃষ্টির কারণে যে দুটো ম্যাচ শ্রীলঙ্কার বাতিল হয়েছে সেই দুই ম্যাচে তাদের প্রতিপক্ষ ছিলো পাকিস্তান ও বাংলাদেশ।

শ্রীলঙ্কা তো এই দুটো ম্যাচই হারতো!

তাই কোনো পয়েন্ট না পাওয়ার চেয়ে অন্তত একটা পয়েন্ট পাওয়া গেছে তাতেই খুশি। তাতেই স্বস্তি। ম্যাচ শেষে শ্রীলঙ্কান অধিনায়ক দ্বিমুথ করুনারত্নে বলছিলেন-‘আমরা এখানে ক্রিকেট খেলতে এসেছি। তবে কখনো কখনো ম্যাচের পয়েন্ট ভাগাভাগি হয়। এটাও ভালো। কিন্তু সেই সঙ্গে আমি এটাও জানিয়ে দিতে চাই-আমরা ফ্রি’তে পয়েন্ট পেতে চাই না। ম্যাচে খেলে, জিতেই পয়েন্ট পেতে চাই। দুভার্গ্যক্রমে বৃষ্টিতে খেলা হলো না এখানে। কি আর করা, এই ম্যাচের এক পয়েন্ট পেয়েই আমরা খুশিমনে পরের ম্যাচে খেলতে যাচ্ছি।’

আর বৃষ্টিতে পয়েন্ট হারানো বাংলাদেশ কোচ স্টিভ রোডস তার হতাশা চেপে রাখার কোনো চেষ্টাই করলেন না-‘খুবই হতাশ আমরা। অন্তত আশায় ছিলাম যে কার্টেল ওভারের ম্যাচও যাতে হয়। কিন্তু বৃষ্টি তো সেই সুযোগই দিলো না। এই ম্যাচে আমাদের টার্গেট ছিলো দুই পয়েন্ট। আমরা জানি শ্রীলঙ্কা ভালো দল। কিন্তু আমরা বৃষ্টিতে বাতিল হওয়া এই ম্যাচকে দেখছে এক পয়েন্ট হারানোর ম্যাচ হিসেবে!

যা নিয়ন্ত্রণ করা যায় না তা নিয়ে আক্ষেপ ছাড়া আর করার কি আছে? পরের ম্যাচের জন্য তৈরি হচ্ছে বাংলাদেশ। প্রথম চার ম্যাচ থেকে তিন পয়েন্ট পাওয়া বাংলাদেশের সামনে এখন সেমিফাইনালের সমীকরণ বেশ কঠিন।

পরের পাঁচ ম্যাচের চারটা অন্তত জিততে হবে। ১৭ জুন টন্টনের মাঠে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়েই শুরু হোক পুরো পয়েন্ট অর্জনের পথচলা!

আপনার মতামত লিখুন :