Alexa

বিশ্বকাপের অপেক্ষাতেই ছিলেন আমির

বিশ্বকাপের অপেক্ষাতেই ছিলেন আমির

ক্যারিয়ার সেরা বোলিং করলেন পাকিস্তানি পেসার মোহাম্মদ আমির

তার নামটা বিশ্বকাপ দলে না দেখে রীতিমতো সমালোচনার ঝড় উঠেছিল। সাবেক ক্রিকেটাররাও তুলোধুনো করেছেন নির্বাচকদের। শেষ পর্যন্ত ঠিকই তাকে নিতে বাধ্য হয় পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি)। এবার সেই আস্থার প্রতিদানই দিচ্ছেন মোহাম্মদ আমির। বিশ্বকাপের বড় মঞ্চে বুধবার ক্যারিয়ারের সেরা বোলিংটাই করলেন এই পেস বোলার।

বুধবার অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে বল হাতে সেই চিরচেনা আমিরেরই দেখা মিলল। ১০ ওভারে ২ মেডেনসহ ৩০ রান দিয়ে নেন ৫ উইকেট।

ফিরিয়ে আনেন ২০১৭ সালে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির স্মৃতি। যেখানে পাকিস্তানের জয়ের অন্যতম নায়ক ছিলেন তিনি। ফাইনালে ভারতের বিপক্ষে ঝলসে উঠেন বাঁহাতি এই বোলার। তারপর অবশ্য অফ ফর্মই সঙ্গী হয়েছে তার। এবার বিশ্বকাপে ফের নিজেকে মেলে ধরছেন তিনি।

বিশ্বকাপে পাকিস্তানের প্রথম ম্যাচে দল হারলেও আমির সফল। ক্যারিবীয়দের তিনটি উইকেটই নেন তিনি। দ্বিতীয় ম্যাচে ফেবারিট ইংল্যান্ডের বিপক্ষে জয়েও আছে তার অবদান। ম্যাচের শেষ দিকে জস বাটলারকে সাজঘরের পথ দেখান তিনি।

বুধবার অজিদের বিপক্ষে টনটনে দারুণ সফল আমির। তার দাপটেই অস্ট্রেলিয়া আটকে যায় ৩০৭ রানে। মোট ১০ উইকেট নিয়ে লকি ফার্গুসনকে (৮) পেছনে ফেলে এবারের বিশ্বকাপের সবোর্চ্চ উইকেট শিকারী তিনিই।

অথচ বিশ্বকাপেই খেলার কথা ছিল না তার। সতীর্থ অন্য ক্রিকেটারদের বাজে পারফরমেন্সের কারণে বিশ্বকাপের জন্য পাকিস্তানের বিশ্বকাপ দলে জায়গা পেয়ে যান তিনি। তাছাড়া ইংল্যান্ডে তার বোলিং অভিজ্ঞতার কথাও মাথায় ছিল নির্বাচকদের।

সেই আস্থার প্রতিদান দিয়ে এখন আমির হয়ে উঠেছেন সরফরাজ আহমেদের সেরা অস্ত্র। বুধবার তাকে সামালই দিতে পারেনি অজি ব্যাটসম্যানরা। অ্যারন ফিঞ্চকে আউট করে ১৪২ রানের উদ্বোধনী জুটি ভাঙেন আমির।

তারপর তুলে নেন শন মার্শ, উসমান খাজা, অ্যালেক্স ক্যারে এবং মিচেল স্টার্কের উইকেট। বিশ্বকাপে প্রথমবারের মতো ৫ উইকেট পেলেন। আর এটিই তার ক্যারিয়ারেরও সেরা বোলিং ফিগার।

বিশ্বকাপে পাকিস্তানের সপ্তম বোলার হিসেবে ম্যাচে তিনি নিয়েছেন ৫ উইকেট। ১৯৮৩ বিশ্বকাপে আবদুল কাদির প্রথম পাকিস্তানি বোলার হিসেবে নেন ৫ উইকেট। প্রতিপক্ষ শ্রীলঙ্কা। এরপর বাংলাদেশের বিপক্ষে ১৯৯৯ বিশ্বকাপে ৫ উইকেট নেন সাকলায়েন মুশতাক। ২০১১ বিশ্বকাপে শহীদ আফ্রিদি দুই ম্যাচে পেয়েছিলেন ৫ উইকেট। সেই বিশ্বকাপেই ৫ উইকেট নেন ওয়াহাব রিয়াজ। প্রতিপক্ষ ছিল ভারত।

এবার অগ্রজ ক্রিকেটারদের পথে হাঁটলেন আমির। আসলে নিজেকে মেলে ধরতে বিশ্বকাপের অপেক্ষাতেই ছিলেন তিনি।

আপনার মতামত লিখুন :