Barta24

রোববার, ২১ জুলাই ২০১৯, ৬ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

ইমরান খানের পরামর্শ শুনলেন না সরফরাজ!

ইমরান খানের পরামর্শ শুনলেন না সরফরাজ!
সরফরাজদের পাশে আছেন প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান
সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

বিশ্বকাপ জয়ী অধিনায়ক তিনি। ইংল্যান্ডের কন্ডিশনে খেলার অভিজ্ঞতাটাও বেশ সমৃদ্ধ। সেই ইমরান খান এখন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী। ভারতের বিপক্ষে ম্যাচের আগে টুইটারে সরফরাজ আহেমদকে বেশ কিছু পরামর্শ দিয়েছিলেন তিনি। অথচ অগ্রজের একটি টিপস কানেই নেননি পাকিস্তান অধিনায়ক।

ইমরান খান টুইটে সরফরাজকে উদ্দেশ্য করে লিখেছিলেন, ‘পিচ যদি ভেজা না থাকে, তাহলে অবশ্যই টস জিতলে ব্যাটিং নিতে হবে। একইসঙ্গে আক্রমণাত্মক ক্রিকেট খেলতে হলে দলে স্পেশালিস্ট বোলার-ব্যাটসম্যান রাখতে হবে।’

উইকেট শুকনো থাকলেও রোববার ম্যানচেস্টারে সরফরাজ টসে জিতে বোলারদের হাতেই বল তুলে দেন। এরপর ভারত ব্যাটিংয়ে নেমে দুর্দান্ত খেলে যাচ্ছে। অবশ্য সরফরাজের ওপর আস্থা আছে ইমরানের। টুইটারে লিখেছেন, ‘ভারত-পাকিস্তান ম্যাচে দুই দল বড় চাপে থাকবে।  যারা মানসিকভাবে শক্তিশালী হতে পারবে জিতবে তারাই। পাকিস্তানের সরফরাজের মতো দৃঢ়চেতা একজন অধিনায়ক রয়েছে।’

টুইটার অ্যাকাউন্টে ইমরান খান আরো লিখেছেন, ‘আমি যখন খেলা শুরু করি তখন মনে করতাম জয়ের জন্য ৭০ ভাগ চাই প্রতিভা আর ৩০ ভাগ মানসিক শক্তি। যখন আমি ক্যারিয়ার শেষ করি তখন এই হার ফিফটি-ফিফটি! এখন আমি বন্ধু সুনীল গাভাস্কারের সঙ্গে একমত যে বড় ম্যাচ জিততে হলে আজকের দিনে চাই ৬০ ভাগ মানসিক শক্তি, আর ৪০ ভাগ প্রতিভা।’

একইসঙ্গে দুই বৈরি দলের লড়াইয়ে আগে সাহসও দিয়েছেন ইমরান। এই কিংবদন্তি ক্রিকেটার লিখেছেন, ‘হারের ভয় মন থেকে দূর করতে হবে। হারের ভয় দলে নেতিবাচক প্রভাব ফেলে। সাহসী মনই ফল পক্ষে আনতে পারে।’

ইমরান মেনে নিয়েছেন রোববারের লড়াই ভারত ফেভারিট। এ কারণেই অনুজদের বললেন, তোমরা শেষ বল পর্যন্ত লড়াই করবে, নিজেদের সেরাটা দেবে। ‘মাঠে সত্যিকারের ক্রীড়াবিদের মতো মাথা উঁচু করে খেলবে। দেশের মানুষের দোয়া সব সময়ই তোমাদের সঙ্গে রয়েছে। গুড লাক।’

এরপরই সরফরাজের দলের উদ্দেশ্যে ইমরান বলেছেন, ভারত ফেবাটির টিম তাই হারের ভয় মন থেকে দূর করে খেলায় মনোযোগ দাও। শেষ বল পর্যন্ত লড়াই করে যাও।

কিন্তু ইমরানের সেই টস জিতে ব্যাটিং করার পরামর্শ রাখতে পারেননি পাকিস্তান অধিনায়ক। ম্যানচেস্টারে গত দুই দিন ধরে বেশ বৃষ্টি হচ্ছে। পিচ ও আউট ফিল্ড অনেকটাই ভেজা, যে কারণে তিনি টস জিতে ফিল্ডিং নিয়েছেন। অবশ্য ইমরানের টুইটেও আভাস ছিলো পরিস্থিতি ‍বুঝে সিদ্ধান্ত নেয়ার। হয়তো সেটাই করেছেন সরফরাজ।

আপনার মতামত লিখুন :

টিভিতে ব্যাডমিন্টন-কাবাডি রোমাঞ্চ

টিভিতে ব্যাডমিন্টন-কাবাডি রোমাঞ্চ
এবারের উইম্বলডনের ট্রফি উঠেছে নোভাক জোকোভিচ ও সিমোনা হালেপের হাতে

রোববার টেলিভিশনের পর্দায় থাকছে ব্যাডমিন্টন রোমাঞ্চ। ওয়ার্ল্ড ট্যুরের লড়াই দেখার সুযোগ থাকছে ক্রীড়াপ্রেমীদের জন্য। ব্যাডমিন্টনের উত্তেজনা দর্শকরা সরাসরি টেলিভিশনের পর্দায় উপভোগ করতে পারবেন দুপুর ১টা থেকে।

দর্শকদের জন্য থাকছে কাবাডি লড়াইও। প্রো কাবাডি লিগের খেলা টেলিভিশনের পর্দায় সরাসরি সম্প্রচার করা হবে রাত ৮টা থেকে

টেনিস অনুরাগীরাও চোখ রাখতে পারেন আজ ছোট পর্দায়। তাদের জন্য থাকছে উইম্বলডন চ্যাম্পিয়নশিপ হাইলাইটস। যেখানে এবার দেখা গেলো নোভাক জোকোভিচ ও সিমোনা হালেপের দাপট।

চলুন দেখে নেই রোববার টেলিভিশনের পর্দায় কখন কী থাকছে-

ব্যাডমিন্টন
এইচএসবিসি বিডব্লিউএফ ওয়ার্ল্ড ট্যুর ২০১৯
সরাসরি দুপুর ১টা
স্টার স্পোর্টস ওয়ান

কাবাডি
ভিভো প্রো কাবাডি লিগ
সরাসরি রাত ৮টা
স্টার স্পোর্টস ওয়ান

টেনিস
উইম্বলডন, হাইলাইটস
রাত সাড়ে দশটা
স্টার স্পোর্টস সিলেক্ট টু

হেরে উৎসব পেছাল বসুন্ধরার

হেরে উৎসব পেছাল বসুন্ধরার
২০ ম্যাচ জয়ের পর হার দেখল বসুন্ধরা কিংস

সামনে ছিল সহজ সমীকরণ-জিতলেই নিশ্চিত বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের শিরোপা! প্রতিপক্ষ শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্র। কিন্তু তাদের বিপক্ষে লক্ষ্য পূরণ হল না। প্রথমবারের মতো লিগ ট্রফি জয়ের উৎসব পিছিয়ে গেল বসুন্ধরা কিংসের। শনিবারের আরেক ম্যাচে সাইফ স্পোর্টিংকে হারিয়ে গাণিতিক হিসাবে টিকে থাকল আবাহনী লিমিটেড।

সিলেট জেলা স্টেডিয়ামে বসুন্ধরাকে ১-০ গোলে হারিয়েছে শেখ রাসেল। লিগে টানা ২০ ম্যাচ অপরাজিত থাকার পর হার দেখল নবাগত এই দলটি। তবে ২১ ম্যাচে ৫৮ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষেই থাকল তারা। শেষ তিন ম্যাচ থেকে ৩ পয়েন্ট পেলেই চ্যাম্পিয়ন দলটি। ৪৫ পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয় স্থানে শেখ রাসেল।

এদিকে দিনের আরেক খেলায় বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে সাইফকে ৪-১ গোলে উড়িয়ে দিয়েছে ঢাকা আবাহনী। ২২ ম্যাচে ১৮ জয়ে ৫৪ পয়েন্ট নিয়ে বসুন্ধরার পরই আছে তারা। ২১ ম্যাচে ৪১ পয়েন্ট নিয়ে চতুর্থ স্থানে সাইফ স্পোর্টিং।

আগের ম্যাচেই মোহামেডানের কাছে আবাহনী হারে ০-৪ গোলে। সেই ধাক্কা সামলে উঠল তারা। তবে সাইফকে ৩৭ মিনিটে এগিয়ে দেন ড্যানিয়েল করদোপা। এরপরই আবাহনী পায় চার গোল। অবশ্য প্রথম দুটিই এসেছে পেনাল্টি থেকে। ৫১ মিনিটে সানডে ও ৫৯ মিনিটে নাবিব নেওয়াজ জীবন তুলে নেন গোল।

এরপর ৬৫ মিনিটে সানডে আরেকটি ও ৮০ মিনিটে মামুনুল ইসলাম গোল করলে হাসিমুখে মাঠ ছাড়ে আবাহনী।

বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে শনিবার লিগের আরেক ম্যাচে চট্টগ্রাম আবাহনীকে ২-০ গোলে হারিয়েছে শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব। আরেক খেলায় ময়মনসিংহের রফিক উদ্দিন ভূইয়া স্টেডিয়ামে আরামবাগ ক্রীড়া সংঘ ৬-৩ গোলে হারিয়েছে রহমতগঞ্জ মুসলিম ফ্রেন্ডস অ্যান্ড সোসাইটিকে।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র