বাশারকে ছুঁয়ে ফেললেন মাশরাফি



সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট বার্তা২৪.কম
সোমবার টন্টনে টস করতে নেমেই নতুন উচ্চতায় পা রাখেন মাশরাফি

সোমবার টন্টনে টস করতে নেমেই নতুন উচ্চতায় পা রাখেন মাশরাফি

  • Font increase
  • Font Decrease

আরো একটি অর্জন যোগ হয়েছে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মতুর্জার নামের পাশে। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ম্যাচে সোমবার মাঠে নেমেই স্পর্শ করলেন হাবিবুল বাশার সুমনকে। এতোদিন বিশ্বকাপে বাংলাদেশকে সবচেয়ে বেশি ম্যাচে নেতৃত্ব দেওয়ার রেকর্ডটা ছিল শুধুই বাশারের। তার সেই অর্জনে ভাগ বসালেন মাশরাফি।

টন্টনে উইন্ডিজের বিপক্ষে টস করতে নেমেই নতুন এই উচ্চতায় উঠে গেছেন ম্যাশ। ২০০৭ ওয়েস্ট ইন্ডিজ বিশ্বকাপে নেতৃত্বে ছিলেন বাশার। যেখানে ৯টি ম্যাচে টাইগারদের নেতৃত্ব দিয়েছেন তিনি। সাফল্যটাও মন্দ নয় তার। ভারত ও দক্ষিণ আফ্রিকা ছাড়াও বারমুডার বিপক্ষেও জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে দল।

মাশরাফি এবার নিয়ে মোট দুটি বিশ্বকাপে নেতৃত্ব দিচ্ছেন বাংলাদেশকে। এর আগে ২০১৫ সালে অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ড বিশ্বকাপে নড়াইল এক্সপ্রেসের নেতৃত্বে দুর্দান্ত ক্রিকেট খেলেছে টাইগাররা। প্রথমবারের মতো দল পেয়ে যায় কোয়ার্টার ফাইনালের টিকিট।

দুই বিশ্বকাপে খেলা মাশরাফি রোববার অধিনায়ক হিসেবে খেললেন বিশ্বকাপে নিজের নবম ম্যাচ। সবকিছু ঠিক থাকলে ২০ জুন অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টস করতে নেমেই রেকর্ডটা নিজের নেবেন মাশরাফি।

বিশ্বকাপ ইতিহাসে টাইগারদের প্রথম অধিনায়ক আমিনুল ইসলাম বুলবুল। ১৯৯৯ বিশ্বকাপে নেতৃত্বে ছিলেন তিনি। তার অধিনায়কত্বে দল খেলে ৫টি ম্যাচ। এরপর ২০০৩ বিশ্বকাপের ৬ ম্যাচে খালেদ মাসুদ পাইলট ছিলেন অধিনায়ক। আর ২০১১ বিশ্বকাপের অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। তিনি নেতৃত্ব দেন ৭টি ম্যাচে।

সবচেয়ে বেশি মাচে নেতৃত্বের সঙ্গে জয়ের রেকর্ডটাও মাশরাফির দখলে। মোট ৪ ম্যাচে জয় এনে দিয়েছে তিনি। বিশ্বকাপে তিনটি করে ম্যাচ জিতেছে অধিনায়ক সাকিব ও বাশারের নেতৃত্বে। আমিনুল দুটি জয়ে এনে দেন। কিন্তু পাইলট একটি ম্যাচেও জেতাতে পারেন নি দলকে!