Barta24

বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০১৯, ৩ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

ধ্বংসস্তূপ থেকে ঘুরে দাড়িয়ে নিউজিল্যান্ড ২৩৭

ধ্বংসস্তূপ থেকে ঘুরে দাড়িয়ে নিউজিল্যান্ড ২৩৭
মাত্র তিন রানের জন্য শতরান পেলেন না নিসাম
এম. এম. কায়সার
স্পোর্টস এডিটর
বার্তা২৪.কম
বার্মিংহ্যাম
ইংল্যান্ড থেকে


  • Font increase
  • Font Decrease

একটা ব্যাটিং জুটিই বদলে দিলো নিউজিল্যান্ডের ইনিংসের চেহারা! ধ্বংসস্তূপ থেকে ঘুরে দাড়িয়ে বার্মিংহ্যামের এজবাস্টনের নিউজিল্যান্ডের ২৩৭ রানের স্কোর কি ম্যাচ জেতার মতো হলো? লাঞ্চ বিরতিতে স্কোরবোর্ডের দিকে তাকিয়ে সেই প্রশ্নটা উঠতেই পারে!

তবে যে কায়দায় তারা শুরুর বিপর্যয় কাটিয়ে শেষ পর্যন্ত ২৩৭ রান জমা করতে পেরেছে সেটাই নিউজিল্যান্ড ইনিংসের সৌন্দর্য! ২৬.২ ওভারে ৮৫ রানে ৫ উইকেট হারানো দল ৫০ ওভার শেষে ৬ উইকেটে ২৩৭ রান দেখে আপাতত স্বস্তি খুঁজতেই পারে।

শুরুর চার ব্যাটসম্যানের মধ্যে তিনজনই সিঙ্গেল ডিজিটে আউট হওয়ার পর নিউজিল্যান্ড অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন নিজের খেলা বদলে ফেলেন। রানের চেয়ে উইকেটে টিকে থাকাই তখন বেশি জরুরি। সেই কাজই করেন তিনি। উইলিয়ামসন সেই সময় কাটিয়ে যখন বড় রানের দিকে যাবেন-তখনই আউট! ৪১ রানে উইলিয়ামসন ফিরতে পরের দিকে ব্যাটসম্যান বলতে তখন মাত্র দুজন- জিমি নিশাম ও কলিন ডি গ্রান্ডহোম। তবে শেষের এই দুজনেই ব্যাট হাতে যা করলেন তাতেই এজবাস্টনের পেস বোলিং সহায়ক উইকেটে পাকিস্তানকে চ্যালেঞ্জ জানানোর মতো সঞ্চয় তুলে নিলো নিউজিল্যান্ড, সম্ভবত।

যে উইকেটে নিউজিল্যান্ডের মতো সুশৃঙ্খল ব্যাটিং লাইন আপের দলের রান তুলতে হাঁসফাঁস করতে হয়েছে, সেখানে আজীবন বিশৃঙ্খল হিসেবে পরিচিত পাকিস্তানের ব্যাটিং খুব সহজেই ‘পার’ পাবেন কিভাবে?

আর তাই নিউজিল্যান্ডের ২৩৭ রানের মাঝারি মানের স্কোরও এই ম্যাচে প্রতিপক্ষ পাকিস্তানের জন্য যে অনেক বড় কিছু!

৮৫ রানে ৫ উইকেট হারানোর পর নিউজিল্যান্ডকে পথ দেখান জিমি নিসাম ও কলিন ডি গ্র্যান্ডহোম। দুই অলরাউন্ডার হাফসেঞ্চুরি করেন। ষষ্ঠ উইকেট জুটিতে দুজনে যোগ করেন ১৩২ রান। তাও আবার মাত্র ২১.২ ওভারে। এই জুটির রান রেট ৬.১৮! জুটিতে যোগ হওয়া রানে দুজনের অবদানও একেবারে সমানে সমান, ৬৪ করে। মুলত এই দুজনের ব্যাটিংই দলকে শুধু উদ্ধারই করলো না; নিয়ে গেলো স্বস্তিকর উচ্চতায়। জিমি নিসাম ৫ বাউন্ডারি ও ৩ ছক্কায় ১১২ বলে অপরাজিত থাকেন ৯৭ রানে।

ম্যাচে নিজের প্রথম বলেই উইকেট পেয়ে পাকিস্তানি পেসার মোহাম্মদ আমির নাটকীয় পরিস্থিতির তৈরি করেন। পাওয়ার প্লে’তে ৩ উইকেট হারানো নিউজিল্যান্ড হঠাৎ যেন পথহারা! আরেক বাঁহাতি পেসার শাহীন আফ্রিদি তার নিখুঁত নিশানা ও দুর্দান্ত গতিতে নিউজিল্যান্ডের শুরুর ব্যাটিং এলোমেলো করে দেন। টানা সাত ওভারের স্পেলে শাহীন আফ্রিদি তিন উইকেট তুলে নেন। এসময় তার বোলিং বিশ্লেষণ ছিলো ৭-৩-১১-৩!

পাকিস্তানের আরেকবার বিখ্যাত বাঁহাতি ওয়াসিম আকরামের বিশ্বকাপ স্মৃতি ফিরিয়ে এনেছিলেন শাহীন আফ্রিদি এই ম্যাচে।

সংক্ষিপ্ত স্কোর: নিউজিল্যান্ড : ২৩৭/৬ (৫০ ওভারে, মনরো ১২, উইলিয়ামসন ৪১, টেলর ৩, লাথাম ১, নিসাম ৯৭*, গ্র্যান্ডহোম ৬৪, স্যান্টার ৫, শাহীন আফ্রিদি ৩/২৮, আমির ১/৬৭, শাদাব খান ১/৪৩)।

আপনার মতামত লিখুন :

লর্ডসেই জেসন রয়ের টেস্ট অভিষেক!

লর্ডসেই জেসন রয়ের টেস্ট অভিষেক!
আইরিশদের বিপক্ষে টেস্ট দলে ডাক পেলেন জেসন রয়

ব্যাট হাতে আলো ছড়িয়েছেন বিশ্বকাপে। উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান হিসেবে সংগ্রহ করেছেন ৪৪৩ রান। ইংল্যান্ডের বিশ্বকাপ জয়ের মিশনে রেখেছেন অগ্রণী ভূমিকা। সুবাদে এ টপ-অর্ডার ব্যাটসম্যান ডাক পেলেন টেস্ট ক্রিকেটে। তা আবার প্রথবারের মতো।

২০১৫ সালে ৮ মে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে ডাবলিনে রয়ের ওয়ানডে অভিষেক। আর টি-টুয়েন্টিতে রঙিন জার্সিতে দেশের হয়ে মাঠে নামেন তার আগের বছর। বার্মিংহামে ২০১৪ সালের ৭ সেপ্টেম্বর ভারতের বিপক্ষে। কিন্তু এতো দিনেও তার লাল বলের ক্রিকেটের খেলা হয়নি।

আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে একমাত্র টেস্টের জন্য ঘোষিত দলে ডাক পেয়েছেন রয়। সব কিছু ঠিক থাকলে লর্ডসে হয়ে যাবে তার টেস্ট অভিষেক। তার মতো সমারসেট অলরাউন্ডার লুইস গ্রেগরিও প্রথমবারের মতো টেস্ট দলে জায়গা করে নিয়েছেন।

ইংল্যান্ডের সর্বোচ্চ টেস্ট উইকেট শিকারি জেমস অ্যান্ডারসনও দলে অন্তর্ভূক্ত হয়েছেন। যদি চলতি মাসের শুরুর দিকে তিনি কাফ ইনজুরিতে পড়েছেন। অলরাউন্ডার বেন স্টোকস ও উইকেটরক্ষক জস বাটলার খেলছেন না আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে একমাত্র টেস্টে।

তবে দল থেকে ছিটকে গেছেন ফাস্ট বোলার মার্ক উড ও জোফরা আর্চার। দুজনেই পেশিতে টান পেয়েছেন। ধারণা করা হচ্ছে, ডারহামের উডকে চার-ছয় সপ্তাহ মাঠের বাইরে থাকতে হবে। রোববার ফাইনালে চোট পান তিনি। অ্যাশেজ সিরিজকে সামনে রেখে বিশ্রামে রাখা হয়েছে আর্চারকে।

২৪ জুলাই লর্ডসে আইরিশদের বিপক্ষে একমাত্র টেস্ট খেলবে ইংল্যান্ড। এবারই প্রথম ক্রিকেটের দীর্ঘতম সংস্করণে মুখোমুখি হচ্ছে দুদল। ১ আগস্ট থেকে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে অ্যাশেজ সিরিজ শুরুর আগে হোম সামারে এটাই ইংল্যান্ডের প্রথম লাল বলের ম্যাচ।

বিশ্বকাপ জয়ী অনেক ক্রিকেটার আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্ট থেকে বিশ্রাম পেলেও ১৬ জনের প্রাক-অ্যাশেজ অনুশীলন ক্যাম্পে রয়েছে তারা।

আয়ারল্যান্ড টেস্টে ইংল্যান্ড দল: জো রুট (অধিনায়ক), মঈন আলি, জেমস অ্যান্ডারসন, জনি বেয়ারস্টো, স্টুয়ার্ট ব্রড, ররি বার্নস, স্যাম কুরান, জো ডেনলি, লুইস গ্রেগরি, জ্যাক লিচ, জেসন রয়, ওলি স্টোন এবং ক্রিস ওকস।

প্রাক-অ্যাশেজ ক্যাম্পে ইংল্যান্ড দল: জো রুট (অধিনায়ক), মঈন আলি, জেমস অ্যান্ডারসন, জনি বেয়ারস্টো, স্টুয়ার্ট ব্রড, ররি বার্নস, জস বাটলার, স্যাম কুরান, জো ডেনলি, লুইস গ্রেগরি, জ্যাক লিচ, জেসন রয়, বেন স্টোকস, ওলি স্টোন, ক্রিস ওকস ও মার্ক উড।

খুলনার হয়ে মাঠ মাতাবেন ওয়াটসন

খুলনার হয়ে মাঠ মাতাবেন ওয়াটসন
খুলনা টাইটানসে নাম লেখালেন শেন ওয়াটসন

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন ২০১৬ সালে। তবে ক্রিকেটে ঠিকই ব্যস্ত রেখেছেন নিজেকে। খেলছেন ফ্রাঞ্চাইজি টুর্নামেন্টে। তার অংশ হিসেবে এবার বাংলাদেশেও আসছেন শেন ওয়াটসন। আগামী বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল) খুলনা টাইটানসের হয়ে খেলবেন এই অস্ট্রেলিয়ান অলরাউন্ডার।

এ বছরই বিগ ব্যাশ সরিয়ে নিয়েছেন নিজেকে। হাতে এখন অফুরন্ত সময় ওয়াটসনের। তাইতো খুলনার প্রস্তাবে হাসিমুখেই হ্যাঁ বলে দিলেন তিনি।

খুলনা টাইটানস বৃহস্পতিবার তাদের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে সুখবরটা দিয়ে লিখেছে, ‘গর্বের সঙ্গে আপনাদের সামনে শহরের নতুন টাইটানকে উপস্থাপন করছি। অস্ট্রেলিয়ার অলরাউন্ডার শেন ওয়াটসন খুলনা টাইটানসের সরাসরি বিদেশি চুক্তির একজন ক্রিকেটার হিসেবে বিপিএল ২০১৯-২০ মৌসুম খেলবেন।’

সবকিছু ঠিক থাকলে আগামী ডিসেম্বরে শুরু হবে বিপিএল। মাস পাঁচেক আগেই বিশ্বকাপ জয়ী অলরাউন্ডার ওয়াটসনকে দলে টানল খুলনা।

এদিকে খুলনায় নাম লিখিয়ে ৩৮ বছর বয়সী ওয়াটসনও দিলেন একটি ভিডিও বার্তা। তিনি বলেন, ‘আমি শেন ওয়াটসন। আমার কাছে দারুণ এক রোমাঞ্চকর খবর আছে। বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের আসন্ন মৌসুমে খুলনা টাইটান্সের হয়ে খেলতে আসবো আমি। বিপিএলে খেলতে যারপরনাই রোমাঞ্চিত হয়ে আছি। বিপিএল এমন একটা টুর্নামেন্ট- যেখানে সবসময় খেলতে চেয়েছি। শেষ পর্যন্ত সুযোগটা হয়েই গেল।’

খুলনা গত আসরে লিগ পর্ব টপকাতে পারেনি। এবার সেই ব্যর্থতা সামলে শিরোপা জেতার জন্যই প্রস্তুত হচ্ছে!

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র