অবসর উড়িয়ে দিয়ে সামনে চোখ মেসির

স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
জাতীয় দলের জার্সিতে মেসির এমন ছবি যেন চেনা দৃশ্য

জাতীয় দলের জার্সিতে মেসির এমন ছবি যেন চেনা দৃশ্য

  • Font increase
  • Font Decrease

আর্জেন্টিনাকে এবারও শিরোপা উপহার দিতে পারলেন না লিওনেল মেসি। ২০১৫ ও ২০১৬ কোপা আমেরিকার ফাইনালে তার ট্রফি হাতছাড়া হয়েছে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন চিলির কাছে। ২০১৪ সালে ব্রাজিল বিশ্বকাপে বিশ্বসেরা হওয়ার স্বপ্ন ভেঙে ছিল জার্মানির কাছে। এবারের কোপা আমেরিকায় ফুটবল জাদুকরের আর্জেন্টিনাকে ০-২ গোলে হতাশ করল স্বাগতিক ব্রাজিল।

প্রিয় দল আলবিসেলেস্তে হার মানলেও হতাশায় ভেঙ্গে পড়ছেন না সুপারস্টার মেসি। হালও ছেড়ে দিচ্ছেন না। মাতৃভূমিকে মেজর ফুটবল আসরের ট্রফি উপহার দিতে নামতে চান এখন নতুন অভিযাত্রায়। জাতিয় দল থেকে অবসর ভাবনা নেই তার। আর এজন্য জাতীয় দলের ফুটবলারদের সঙ্গে বোঝাপড়া বাড়ানোর লক্ষ্যে দেশের হয়ে খেলতে চান আরো বেশি ম্যাচ।

মেসির দল বার বার ব্যর্থ হচ্ছে শিরোপা জয়ের মিশনে। কারণটাও বুঝতে পেরেছেন তিনি। বুঝতে পেরেছেন দলের সঙ্গে কম সময় দেওয়াটাই কাল হয়ে দাঁড়িয়ে তাদের জন্য। তাই দল নিয়ে নতুন কর্মপরিকল্পনার কথাই জানালেন মেসি, ‘জাতীয় দল যদি আমার সহায়তা চায়, যে করেই হোক তা করব আমি। এ দলের সঙ্গে খেলে আনন্দ পেয়েছি। ম্যাচের ফল হয়তো আমাদের বিপক্ষে চলে গেছে। কিন্তু আমরা প্রমাণ করেছি, প্রয়োজনের সময় আমরা দাপটে পারফর্ম করতে পারি।’

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jul/03/1562143317149.jpg

মেসি ব্রাজিলের দুর্ভেদ্য রক্ষণদূর্গে চিড় ধরাতে পেরেছেন বেশ কয়েক বার। কিন্তু প্রতিপক্ষের ডিফেন্ডাররা কোনো ছাড় না দেওয়ায় এবং সুযোগ কাজে লাগাতে না পারায় গোলের দেখা পায়নি সার্জিও আগুয়েরো-লাওতারো মার্তিনেজরা।

কিন্তু তারপরও ব্রাজিলের রক্ষণ দৃঢ়তা উপেক্ষা করে দলের দুরন্ত পারফরম্যান্সের প্রশংসায় মাতলেন পাঁচ বারের এ ব্যালন ডি’অর জয়ী, ‘আমার দৃষ্টিতে, আজ (বুধবার) আমরা ভালো খেলেছি। আমাদের চেষ্টায় কোনো কমতি ছিল না। প্রমাণ করেছি ব্রাজিল আমাদের চেয়ে সেরা দল নয়।’

কোপা আমেরিকার সেমি-ফাইনাল থেকে বিদায় নিয়েও সতীর্থদের পারফরম্যান্সে খুশী মেসি। বিপরীতে বার্সেলোনার এ প্রাণভোমরা অসন্তুষ্ট মাঠের রেফারির পারফরম্যান্স নিয়ে।

পাওনা দুটি পেনাল্টি থেকে বঞ্চিত হওয়ার আক্ষেপও ঝরে পড়ল এলএম টেনের কন্ঠে, ‘ব্রাজিল একটু আগেই লিড নিয়ে ফেলে। কিন্তু আগুয়েরো ন্যায্য পেনাল্টি পায়নি। আমার মতে, ওটামেন্ডি ও আর আগুয়েরোর দুটো পেনাল্টিই আমাদের প্রাপ্ত্য। কিন্তু আমাদের বঞ্চিত করা হয়েছে।’

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jul/03/1562143336366.jpg

আক্ষেপ করেই ক্ষান্ত থাকেননি মেসি। ম্যাচ অফিসিয়ালদের সমারলোচনায় মুখর হয়ে উঠেন তিনি, ‘ম্যাচ অফিসিয়ালরা খুব বাজে ভাবে খেলা পরিচালনা করেছে। প্রয়োজন থাকলেও ভিএআর-এর সহায়তা নেননি রেফারি। এমনটা বিশ্বাস করার মতো নয়।’

শত চেষ্টা করেও গোলের দেখা না পাওয়াটাকে দুর্ভাগ্য হিসেবেই দেখছেন মেগাস্টার মেসি, ‘চেষ্টার কোনো ত্রুটি ছিল না আমাদের। কিন্তু ভাগ্যের ফেরে গোল পায়নি আমরা। গোলপোস্ট অন্তত দুবার আমাদের হতাশ করেছে।’

বৃহস্পতিবার ভোর ৬টায় দ্বিতীয় সেমি-ফাইনালে পেরুর বিপক্ষে মাঠে নামবে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন চিলি। এ ম্যাচের বিজয়ীরা রোববার রাতে ফাইনালে মোকাবেলা করবে ব্রাজিলকে।

আপনার মতামত লিখুন :