Barta24

রোববার, ২৫ আগস্ট ২০১৯, ১০ ভাদ্র ১৪২৬

English

নাম্বার ওয়ানেই আছেন সাকিব

নাম্বার ওয়ানেই আছেন সাকিব
বিশ্বকাপে ঝড় তুলে শীর্ষস্থান ধরে রাখলেন সাকিব আল হাসান
সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট
বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

প্রত্যাশার সঙ্গে যেন প্রাপ্তির দেখা হল। শীর্ষস্থানেই যে তিনি থাকবেন তা নিশ্চিত ছিল আগেই। বিশ্বকাপে অসাধারণ ক্রিকেটের পসরা সাজিয়ে আলোচনাতেই ছিলেন সাকিব আল হাসান। সেই সাফল্যে নিজের জায়গা ধরে রাখলেন এই অলরাউন্ডার। বিশ্বকাপ শুরুর আগেই আফগানিস্তানের রশিদ খানকে সরিয়ে আইসিসি ওয়ানডে র‌্যাংকিংয়ের নাম্বার ওয়ান অলরাউন্ডার হয়েছিলেন সাকিব। টুর্নামেন্ট শেষেও ক্রিকেটের সর্বোচ্চ সংস্থার রায়ে তিনিই এক নম্বরে।

তবে অনেকটা পিছিয়ে পড়েছেন রশিদ খান। বিশ্বকাপে ব্যাটে-বলে ব্যর্থ এই অলরাউন্ডার দুই থেকে নেমে গেলেন পাঁচে! অন্যদিকে বেশ এগিয়েছেন বেন স্টোকস। ইংল্যান্ডের বিশ্বকাপ জয়ের অন্যতম নায়ক আছেন দুই নম্বরে।

শীর্ষে থাকা সাকিবের পয়েন্ট ৪০৬। দুই নম্বরে থাকা স্টোকসের (৩১৯) চেয়ে অনেক এগিয়ে বাংলাদেশের এই অলরাউন্ডার। এবারের বিশ্বকাপে ৮ ইনিংসে দুই সেঞ্চুরি ও পাঁচ হাফ-সেঞ্চুরিতে তার রান ৬০৬। ৩টিতে ম্যাচসেরা আর টুর্নামেন্টে সর্বাধিক গড় ৮৬.৫৭। এখানেই শেষ নয়, বল হাতে নেন ১১ উইকেট। এই সাফল্যে আইসিসির বিশ্বকাপ দলেও আছেন সাকিব।

আইসিসি ওয়ানডে অলরাউন্ডারদের তিনে রয়েছেন আফগানিস্তানের মোহম্মদ নবি। তার পয়েন্ট ৩১০। চারে আছেন পাকিস্তানের ইমাদ ওয়াসিম (৩০০)। এরপরই রশিদ খান (২৮৯)।

ওয়ানডে ব্যাটসম্যানদের ব়্যাংকিংয়ের শীর্ষেও অবশ্য কোন পরিবর্তন হয়নি। আগের মতোই নাম্বার ওয়ানে আছেন ভারতের বিরাট কোহলি। দুইয়ে রয়েছেন বিশ্বকাপে ৫ সেঞ্চুরির বিশ্বরেকর্ড গড়া রোহিত শর্মা। ৮৮৬ রেটিং পয়েন্ট নিয়ে ব্যাটসম্যানদের মধ্যে এক নম্বরে আছেন অধিনায়ক কোহলি। পাঁচ পয়েন্ট কম নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে রোহিত।

তিন নম্বরে পাকিস্তানের ব্যাটসম্যান বাবর আজম (৮২৭)। চার নম্বরে দক্ষিণ আফ্রিকার অধিনায়ক ফাফ ডু প্লেসিস (৮২০)। এরপরই নিউজিল্যান্ডের রস টেলর (৮১৭)।

তালিকার ১৯ নম্বরে রয়েছেন বাংলাদেশের মুশফিকুর রহিম। সাকিব ২২ নম্বরে।

ওয়ানডে বোলারদের ব়্যাংকিংয়ে আগের মতোই শীর্ষ জাসপ্রিত বুমরাহ। ভারতের এই পেসারের রেটিং পয়েন্ট ৮০৯। দুই নম্বরে নিউজিল্যান্ডের ট্রেন্ট বোল্ট (৭৪০)। তিনে দক্ষিণ আফ্রিকার কাগিসো রাবাদা (৬৯৪)। এরপরই অস্ট্রেলিয়ার প্যাট কামিন্স (৬৯৩) ও দক্ষিণ আফ্রিকার ইমরান তাহির (৬৮৩)।

বোলারদের তালিকায় ১৫ নম্বরে আছেন টাইগার পেসার মুস্তাফিজুর রহমান। সাকিব ২৮ নম্বরে।

দল হিসেবে শীর্ষেই আছে নতুন বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ড। এরপরই ভারত। তিন নম্বরে রানার্সআপ নিউজিল্যান্ড। চারে অস্ট্রেলিয়া। পাঁচ নম্বরে দক্ষিণ আফ্রিকা। ছয়ে পাকিস্তান। তারপরই আছে বাংলাদেশ দল। শ্রীলঙ্কা রয়েছে ৮ নম্বরে। নবম ও দশমস্থানে যথাক্রমে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও আফগানিস্তান।

আপনার মতামত লিখুন :

আঘাতের ধকল কাটিয়ে মাঠে ফিরছেন স্মিথ

আঘাতের ধকল কাটিয়ে মাঠে ফিরছেন স্মিথ
নেটে ব্যাট হাতে নিজেকে ঝালিয়ে নিচ্ছেন স্টিভেন স্মিথ, ছবি: সংগৃহীত

মাঠের লড়াইয়ে ফিরতে যাচ্ছেন স্টিভেন স্মিথ। তবে প্রতিযোগিতামূলক কোনো ম্যাচে নয়। চলতি অ্যাশেজ সিরিজের অংশ হিসেবে ডার্বিশায়ারের বিপক্ষে একটি ট্যুর ম্যাচ খেলবেন বিশ্বের অন্যতম সেরা এ ব্যাটসম্যান।

ঘাড়ে বলের আঘাতের ধকল ইতোমধ্যে কাটিয়ে উঠেছেন স্টিভেন স্মিথ। এখন শতভাগ ফিট তিনি। পুরোপুরি সুস্থ হয়েই অস্ট্রেলিয়ার তারকা এ ব্যাটসম্যান রোববার নেমে পড়েছেন ব্যাটিং অনুশীলনে। সেই দুর্ঘটনার পর এই প্রথম ব্যাট হাতে বোলারদের মোকাবেলা করলেন তিনি।

ডার্বিতে তিন দিনের এ প্রস্তুতি ম্যাচ শুরু হচ্ছে বৃহস্পতিবার। ম্যাচটি খেলেই ওল্ড ট্রাফোর্ডে হতে যাওয়া চতুর্থ টেস্টে খেলার পথ সুগম করতে চান স্মিথ। ম্যানচেস্টারে টেস্ট ম্যাচটি মাঠে গড়াবে ৪ সেপ্টেম্বর।

ড্র হওয়া দ্বিতীয় ও লর্ডস টেস্টে ইংলিশ পেসার জোফরা আর্চারের ঘন্টায় ৯২ মাইল বেগে ছুড়া বাউন্সারের আঘাতে মাঠে লুটিয়ে পড়ে ছিলেন স্মিথ। রিটায়ার্ড হার্ট হয়ে মাঠ ছেড়ে ফের ব্যাট হাতে নেমে সবাইকে অবাক করে দেন। কিন্তু পরে আঘাতজনিত জটিলতা দেখা দেওয়ায় টেস্টের পঞ্চম দিন আর মাঠেই নামেননি। তার বদলে খেলেন মারনাস লাবুশেন। ছিটকে যান অ্যাশেজের চলমান তৃতীয় ও হেডিংলি টেস্ট থেকে।

১২ মাসের বল টেম্পারিং নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে মাঠে ফিরেই দারুণ পারফরম্যান্স দেখিয়েছেন স্মিথ। এজবাস্টনে প্রথম টেস্টের দুই ইনিংসেই পান সেঞ্চুরি (১৪৪ ও ১৪২)।সঙ্গে লর্ডসে সংগ্রহ করেন ৯২ রান।

 

শ্রীলঙ্কার জালে ৭ গোল বাংলাদেশের

শ্রীলঙ্কার জালে ৭ গোল বাংলাদেশের
আরেকটি জয় তুলে নিয়েছে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৫ দল

বয়সভিত্তিক ফুটবলে দাপটের সঙ্গে এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ। স্বপ্নের ফুটবল খেলছে কিশোররা। তার পথ ধরে এবার উড়িয়ে দিয়েছে শ্রীলঙ্কাকে। দ্বীপ দেশটির বিপক্ষে তুলে নিয়েছে দুর্দান্ত এক জয়।

ছেলেদের সাফ অনূর্ধ্ব-১৫ চ্যাম্পিয়নশিপে বাংলাদেশ পেয়েছে টানা দ্বিতীয় জয়। কলকাতার কল্যাণী স্টেডিয়ামে রোববার বাংলাদেশের কিশোররা ৭-১ গোলে উড়িয়ে দিয়েছে শ্রীলঙ্কাকে। আল আমিন সরকার করেছেন পাঁচ গোল!

ভারতে চলমান এই টুর্নামেন্টে শুরু থেকে শেষ অব্দি অপ্রতিরোধ্য গতিতেই খেলে গেছে চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ। তবে প্রথম গোলটি পেতে অপেক্ষা করতে হয়েছে ৩২তম মিনিট পর্যন্ত। গোল উৎসবের শুরুটা করেন আল আমিন সরকার।

তারপর ৪২তম মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন দলের অধিনায়ক রাকিবুল ইসলাম। বিরতির আগেই আরেকটি গোল পেয়ে যায় দল। এবার ম্যাচে নিজের দ্বিতীয় গোলটি তুলে নেন আল আমিন। দ্বিতীয়ার্ধে দলের পক্ষে চার নম্বর গোলটি করেন আল মিরাদ।

কিন্তু এরপরই স্রোতের বিপরীতে একটি গোল হজম করে বাংলাদেশ। শ্রীলঙ্কার গোলদাতা ইনসান মোহাম্মদ মিহরান। কিন্তু ৫৯তম মিনিটে ঠিকই আরও এগিয়ে যায় দল। এবার  পেনাল্টি থেকে গোল করে হ্যাটট্রিক পূর্ণ করেন আল আমিন। পরে আরেকটি গোল করেন তিনি। ৬৭তম মিনিটে নিশানা খুঁজে নেন ফরোয়ার্ড রাব্বী হোসেন। ৭০তম মিনিটে শেষ গোলটি করেন আল আমিন সরকার।

এর আগে টুর্নামেন্টে ভুটানকে ৫-২ গোলে উড়িয়ে শিরোপা ধরে রাখার মিশন শুরু করে বাংলাদেশের কিশোর ফুটবলাররা। বাংলাদেশ তৃতীয় ম্যাচটি খেলবে ২৭ আগস্ট, প্রতিপক্ষ নেপাল।

দক্ষিণ এশিয়ার ৫টি দেশ খেলছে সাফ অনূর্ধ্ব-১৫ চ্যাম্পিয়নশিপে। লিগ লড়াই শেষে শীর্ষ দুই দল খেলবে ফাইনালে।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র