Barta24

রোববার, ২৫ আগস্ট ২০১৯, ১০ ভাদ্র ১৪২৬

English

ক্রিকেট সরিয়ে সেনাবাহিনীতে ধোনি!

ক্রিকেট সরিয়ে সেনাবাহিনীতে ধোনি!
দুমাস নিজের রেজিমেন্টকে নিয়েই ব্যস্ত থাকবেন ধোনি
স্পোর্টস ডেস্ক
বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

ভারতের বিশ্বকাপ মিশন শেষেই গুঞ্জনটা ছড়িয়ে পড়েছিল। ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে নাও যেতে পারেন মহেন্দ্র সিং ধোনি। অবশেষে সেই গুঞ্জনটাই আলোর মুখ দেখল। আসন্ন ক্যারিবিয়ান সফর থেকে নিজেকে সরিয়ে নিলেন ভারতের সাবেক এ অধিনায়ক।

তাহলে কি অবসর নিচ্ছেন ভারতের এ উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান? স্বাভাবিকভাবে এ প্রশ্নটা সামনে চলে আসে। কিন্তু না ক্রিকেট ক্যারিয়ারকে পুরোপুরি না বলছেন এখনই। তবে এখন কী করবেন ধোনি? আসলে এখন ক্রিকেট থেকে বিশ্রাম নিবেন তিনি। ক্রিকেট থেকে নিলেও কাজের ব্যস্ততা থেকে ঠিক বিশ্রাম নিচ্ছেন না ধোনি।

বিশ্রামের মাঝেই নিজের বকেয়া কাজটা সেরে নিবেন বিশ্বের অন্যতম সেরা এ ফিনিশার। পেশায় একজন ক্রিকেটার হলেও তিনি একই সঙ্গে টেরিটোরিয়াল আর্মির প্যারাসুট রেজিমেন্টের অনারারি লেফটেন্যান্ট কর্ণেল।

কিন্তু ক্রিকেটের টানা ব্যস্ততার জন্য দেশের সেনাবাহিনীকে সময় দিতে পারেন না ধোনি। এই সুযোগে আগামী দুমাস নিজের রেজিমেন্টকে নিয়েই ব্যস্ত সময় পার করবেন তিনি। খবরটা নিশ্চিত করেছেন ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিসিআই) এক শীর্ষ কর্মকর্তা।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ওই বিসিসিআই কর্মকর্তা জানান, ‘ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফর থেকে ধোনি নিজেকে সরিয়ে নিয়েছেন। আগামী দুই মাস নিজের প্যারামিলিটারি রেজিমেন্টের হয়ে কাজ করবেন তিনি।’

ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরের জন্য দল বাছাই করতে রোববার বৈঠকে বসছে নির্বাচক কমিটি। ঠিক তার আগেই নিজের সিদ্ধান্তটা জানিয়ে দিলেন ৩৮ বছরের ধোনি।

ওই কর্মকর্তা একই সঙ্গে নিশ্চিত করেছেন, এই মুহূর্তে ক্রিকেট থেকে অবসর নিচ্ছেন না ধোনি, ‘ধোনি এখন ক্রিকেট ক্যারিয়ারকে বিদায় বলছেন না। আগে থেকে প্রতিশ্রুতি দেওয়ায় দুই মাসের ছুটি নিয়ে নিজের প্যারামিলিটারি রেজিমেন্টে কাজ করবেন তিনি।’

সিনিয়র ওই কর্মকর্তা আরো যোগ করেন, ‘আমরা তার সিদ্ধান্তটা অধিনায়ক বিরাট কোহলি ও নির্বাচক কমিটির প্রধান এমএসকে প্রসাদকে জানিয়ে দিয়েছি।’

ধারণা করা হচ্ছে, ধোনি না থাকায় উইন্ডিজ সফরে ক্রিকেটের তিন সংস্করণে উইকেটের পিছনের জায়গাটা দখল করবেন রিশব পান্থ। আর টেস্টে পান্থের ব্যাক-আপ হিসেবে থাকবেন ঋদ্ধিমান সাহা।

আপনার মতামত লিখুন :

শ্রীলঙ্কার জালে ৭ গোল বাংলাদেশের

শ্রীলঙ্কার জালে ৭ গোল বাংলাদেশের
আরেকটি জয় তুলে নিয়েছে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৫ দল

বয়সভিত্তিক ফুটবলে দাপটের সঙ্গে এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ। স্বপ্নের ফুটবল খেলছে কিশোররা। তার পথ ধরে এবার উড়িয়ে দিয়েছে শ্রীলঙ্কাকে। দ্বীপ দেশটির বিপক্ষে তুলে নিয়েছে দুর্দান্ত এক জয়।

ছেলেদের সাফ অনূর্ধ্ব-১৫ চ্যাম্পিয়নশিপে বাংলাদেশ পেয়েছে টানা দ্বিতীয় জয়। কলকাতার কল্যাণী স্টেডিয়ামে রোববার বাংলাদেশের কিশোররা ৭-১ গোলে উড়িয়ে দিয়েছে শ্রীলঙ্কাকে। আল আমিন সরকার করেছেন পাঁচ গোল!

ভারতে চলমান এই টুর্নামেন্টে শুরু থেকে শেষ অব্দি অপ্রতিরোধ্য গতিতেই খেলে গেছে চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ। তবে প্রথম গোলটি পেতে অপেক্ষা করতে হয়েছে ৩২তম মিনিট পর্যন্ত। গোল উৎসবের শুরুটা করেন আল আমিন সরকার।

তারপর ৪২তম মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন দলের অধিনায়ক রাকিবুল ইসলাম। বিরতির আগেই আরেকটি গোল পেয়ে যায় দল। এবার ম্যাচে নিজের দ্বিতীয় গোলটি তুলে নেন আল আমিন। দ্বিতীয়ার্ধে দলের পক্ষে চার নম্বর গোলটি করেন আল মিরাদ।

কিন্তু এরপরই স্রোতের বিপরীতে একটি গোল হজম করে বাংলাদেশ। শ্রীলঙ্কার গোলদাতা ইনসান মোহাম্মদ মিহরান। কিন্তু ৫৯তম মিনিটে ঠিকই আরও এগিয়ে যায় দল। এবার  পেনাল্টি থেকে গোল করে হ্যাটট্রিক পূর্ণ করেন আল আমিন। পরে আরেকটি গোল করেন তিনি। ৬৭তম মিনিটে নিশানা খুঁজে নেন ফরোয়ার্ড রাব্বী হোসেন। ৭০তম মিনিটে শেষ গোলটি করেন আল আমিন সরকার।

এর আগে টুর্নামেন্টে ভুটানকে ৫-২ গোলে উড়িয়ে শিরোপা ধরে রাখার মিশন শুরু করে বাংলাদেশের কিশোর ফুটবলাররা। বাংলাদেশ তৃতীয় ম্যাচটি খেলবে ২৭ আগস্ট, প্রতিপক্ষ নেপাল।

দক্ষিণ এশিয়ার ৫টি দেশ খেলছে সাফ অনূর্ধ্ব-১৫ চ্যাম্পিয়নশিপে। লিগ লড়াই শেষে শীর্ষ দুই দল খেলবে ফাইনালে।

আফগান চ্যালেঞ্জের অপেক্ষায় মিরাজ

আফগান চ্যালেঞ্জের অপেক্ষায় মিরাজ
বাংলাদেশ দলের অলরাউন্ডার মেহেদি হাসান মিরাজ

বাংলাদেশ যখন তাদের প্রথম টেস্ট খেলছে, তখন আফগানিস্তানের অধিনায়ক রশিদ খান দুধের শিশু; বয়স তার দুই! টেস্ট ক্রিকেট বাংলাদেশের অভিষেক ২০০০ সালে। আর আফগানিস্তান টেস্ট ক্রিকেটে পা রাখলো, এই তো সেদিন-গত বছরের ১৪ জুন। সবমিলিয়ে বাংলাদেশের টেস্ট ম্যাচের অভিজ্ঞতা ১১৪ ম্যাচ। আর আফগানিস্তান খেলেছে মাত্র দুটি টেস্ট ম্যাচ।

অভিজ্ঞতা, অর্জন, দক্ষতা- সব ‘বিভাগেই’ বাংলাদেশের চেয়ে অনেক পিছিয়ে আছে আফগানিস্তান। তাই বলে বাংলাদেশ ৫ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হতে যাওয়া আফগানিস্তানের বিপক্ষে একমাত্র টেস্ট সিরিজ নিয়ে আয়েশি হাই তুলছে-এমন কিছু নয়।

বরং একটু বেশিই সিরিয়াস বাংলাদেশ!

দলের অফস্পিনার কাম লেটঅর্ডার ব্যাটসম্যান মেহেদি হাসান মিরাজও সেই কথাই বললেন-‘মানছি যে অভিজ্ঞতার দিক থেকে আমরা আফগানিস্তানের তুলনায় অনেক এগিয়ে। আমরা টেস্ট খেলছি প্রায় ২০ বছর হতে চলছে। আর ওরা মাত্র বছর খানেক আগে থেকে টেস্ট খেলছে। তবে মনে রাখতে হবে ক্রিকেট ম্যাচে সেই দলই জেতে যারা মাঠের ক্রিকেটে ভালো খেলে। আফগানিস্তানকে হালকা ভাবে নেয়ার কিছু নেই। আমরা আমাদের স্কিল নিয়ে কাজ করছি। দক্ষতা আরো বাড়ানোর চেষ্টা করছি। র‌্যাঙ্কিংয়ে ওরা পিছিয়ে আছে এসব চিন্তা আমরা মাথায় রাখছি না। ভাবছি যে টেস্ট সিরিজে আমাদের প্রভাব বিস্তার করে খেলতে হবে। নিয়ন্ত্রনটা নিজেদের হাতে রাখতে হবে।’

চট্টগ্রাম টেস্টে আফগানিস্তানের বিপক্ষে জয়ের পূর্বশর্ত জানিয়ে দিলেন মিরাজ। এক ম্যাচের এই টেস্ট সিরিজ এবং জিম্বাবুয়েকে নিয়ে তিনজাতি টি-টুয়েন্টি টুর্নামেন্টের জন্য বাংলাদেশ দল ঈদের পর থেকে জোরে সোরে কন্ডিশনিং ক্যাম্প শুরু করেছে। ব্যাটিং- বোলিং- ফিল্ডিংয়ের সঙ্গে প্ল্যানিংয়ের কাজও একত্রিতভাবে সেরে ফেলছে বাংলাদেশ।

র‌্যাঙ্কিংয়ে পিছিয়ে থাকা প্রতিপক্ষের বিপক্ষে খেলতে নামলে উপরে থাকা দলের একটা আশঙ্কা থাকে, আরে পা না আবার পিছলে যায়! তেমন কোনো চাপ কি বাংলাদেশ অনুভব করছে আফগান সিরিজের আগে?

এই প্রশ্নের উত্তরে মিরাজের সহজ ব্যাখা-‘আর্ন্তজাতিক ক্রিকেট মানেই তো চাপ। সেই চাপ যারা সইতে পেরে নিজেদের পারফরমেন্স দেখাতে পারে-তারাই ম্যাচ জিতে।’

দেশের মাটিতে টেস্ট ম্যাচ মানেই তো বাংলাদেশ একাদশে স্পিনারে ঠাসা। কিন্তু প্রতিপক্ষ আফগানিস্তান বলেই সম্ভবত বাংলাদেশ এবার একটু ভিন্ন চিন্তায়, ভিন্ন পরিকল্পনায়। স্পিন উইকেট তৈরি করলেও উল্টো ফলও হতে পারে! আফগানিস্তানের স্পিনাররাও যে দুর্দান্ত।

 এই প্রসঙ্গে মিরাজ রোববার মিরপুরে অনুশীলন শেষে জানান-‘এই ম্যাচে চ্যালেঞ্জের মাত্রাটা আরো বাড়ছে। এই ম্যাচে আমাদের স্পিনারদের ওপরও বাড়তি দায়িত্ব থাকবে যাতে আমরা ম্যাচে প্রভাব ছড়িয়ে খেলতে পারি। দেশের মাটিতে আমরা যাদের সঙ্গেই খেলেছি, আমাদের স্পিনাররা ভালো করেছে। এবারও সেই লক্ষ্যটাই থাকবে। টেস্ট ক্রিকেটে উইকেট থেকে সহায়তা মিললে বোলারদের জন্য কাজটা কিছুটা সহজ হয়ে যায়। তবে উইকেট যেমনই থাক, টেস্ট ক্রিকেটে একই স্পটে লাইন লেন্থ বজায় রেখে বল করতে হয়। তাহলেই উইকেট শিকারের পরিস্থিতি তৈরি হবে। আমার কাছে তো মনে হয় এই ম্যাচটা আমাদের মাটিতে হচ্ছে, আমরা স্পিনাররা তো অবশ্যই কিছুটা সুবিধা পাবো।’

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র