Barta24

রোববার, ২৫ আগস্ট ২০১৯, ১০ ভাদ্র ১৪২৬

English

২০২৮ লস এঞ্জেলস অলিম্পিকে ক্রিকেট!

২০২৮ লস এঞ্জেলস অলিম্পিকে ক্রিকেট!
আইসিসি’র প্রধান নির্বাহী মানু সোহনি
স্পোর্টস এডিটর
বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

পৃথিবীর এতো খেলা আছে অলিম্পিকে, নেই শুধু ক্রিকেট। সেই অভাব এবং শূন্যতা পুরণের উদ্যোগ নিয়েছে এমসিসি’র ক্রিকেট কমিটি। সবকিছু ঠিক থাকলে ২০২৮ সালের লস এঞ্জেলস অলিম্পিকে ক্রিকেট শুরু হতে পারে।

আইসিসি’র প্রধান নির্বাহী মানু সোহনির সঙ্গে বৈঠক শেষে এমসিসি’র ক্রিকেট কমিটির চেয়ারম্যান মাইক গ্যাটিং সাংবাদিকদের এই তথ্য জানান।

গ্যাটিং জানান-‘আমরা এই বিষয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণের জন্য কাজ করছি। আইসিসি’র প্রধান নির্বাহীও আশাবাদি যে ২০২৮ সালের অলিম্পিকে আমরা ক্রিকেটও দেখতে পাবো। ভারত সহ অন্যান্য দেশগুলোকে নিয়ে অলিম্পিকের আসরে ক্রিকেটের আয়োজন করতে পারলে খেলাটার বিশ্বায়ন হবে। এটা সম্ভবপর করতে পারলে ক্রিকেট উন্নতির জন্য তা বেশ বড় একটা পদক্ষেপ হবে।’

গ্যাটিং জানাচ্ছিলেন-‘খুব বেশি নয়, অলিম্পিকে ক্রিকেট হবে দু’সপ্তাহের মতো। মাসখানেকের মতো লম্বা সময় এতে লাগবে না। তাছাড়া প্রতি চার বছর পর একবার। এতো লম্বা সময়ের পরপর মাত্র দু’সপ্তাহের জন্য ক্রিকেট আয়োজন করাটা তেমন সমস্যা হওয়ার কথা নয়। একটু আগে থেকেই পরিকল্পনা করলে অলিম্পিকের জন্য ক্রিকেট অবশ্যই সময় বের করে নিতে আসতে পারবে।’

তবে অলিম্পিকে ক্রিকেটের অভিষেক হওয়ার অনেক আগেই কমনওয়েলথ গেমস কিন্তু ক্রিকেট ঠিকই দেখেছে। ১৯৯৮ সালের কুয়ালালামপুরের কমনওয়েলথ গেমসে ক্রিকেটের অভিষেক হয়। ২০২২ সালে বার্মিংহ্যামে পরবর্তী কমনওয়েলথ গেমসেও মেয়েদের ক্রিকেট থাকছে বলে এমসিসি’র ক্রিকেট কমিটির চেয়ারম্যান মাইক গ্যাটিং নিশ্চিত করেছেন।

পাকিস্তানে বিদেশি দলগুলোর ক্রিকেট সিরিজ ও সফর পুনরায় চালুর প্রস্তাবের পক্ষেও সায় দিচ্ছে এমসিসি ক্রিকেট কমিটি। তবে এ ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত দেয়ার আগে এমসিসি ক্রিকেট কমিটি পাকিস্তানের নিরাপত্তা ব্যবস্থা দেখার জন্য নিরাপত্তা দল পাঠানোর কথাও জানিয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন :

অ্যান্টিগা টেস্টের লাগাম ভারতের হাতে

অ্যান্টিগা টেস্টের লাগাম ভারতের হাতে
কোহলি ও রাহানে উভয়ই হাফসেঞ্চুরি করেছেন, ছবি: সংগৃহীত

অ্যান্টিগা টেস্ট জয়ের অবস্থা প্রায় তৈরি করে ফেলেছে ভারত। তৃতীয়দিন শেষে ম্যাচে তাদের লিড ২৬০ রানের। হারিয়েছে মাত্র ৩ উইকেট। অধিনায়ক বিরাট কোহলি ও অজিঙ্কা রাহানে উইকেটে সেট হয়ে ব্যাট করছেন, হাফসেঞ্চুরি নিয়ে। ৪০০ রানের টার্গেট দিয়ে ইনিংস ঘোষণার অপেক্ষায় ভারত। তবে সেই সঙ্গে তাদের সামনের দু’দিনের বৃষ্টির চিন্তাও মাথায় রাখতে হচ্ছে। সার্বিক হিসেব জানাচ্ছে, নাটকীয় কোনো কিছু না ঘটলে অ্যান্টিগায় ওয়েস্ট ইন্ডিজের কাজ এখন একটাই-ম্যাচ বাঁচানো!

প্রথম ইনিংসে ভারতের চেয়ে খুব বেশি পিছিয়ে ছিল না ওয়েস্ট ইন্ডিজ। শেষের দিকে অধিনায়ক জেসন হোল্ডার ৩৯ রান করে ব্যবধান কমিয়ে আনেন। ভারতের ২৯৭ রানের জবাবে ওয়েস্ট ইন্ডিজ গুটিয়ে যায় ২২২ রানে।

দ্বিতীয় ইনিংসেও যথারীতি ভারতের ওপেনাররা ব্যর্থ। আগারওয়াল ফিরলেন ১৬ রানে। রাহুল করলেন ৩৮। ওয়ানডাউনে চেতশ্বর পুজারাও টানা ব্যর্থ। ৮১ রানে ৩ উইকেট হারানো ভারতকে পথ দেখালেন অধিনায়ক বিরাট কোহলি ও অজিঙ্কা রাহানে। দু’জনেই হাফসেঞ্চুরি করে দলকে দ্বিতীয় ইনিংসে বড় স্কোরের পথে নিয়ে চলেছেন। তাদের চতুর্থ উইকেট জুটিতে যোগ হয়েছে হার না মানা ১০৪ রান। তৃতীয়দিন শেষ করে ভারত ৩ উইকেটে ১৮৫ রান তুলে।

সংক্ষিপ্ত স্কোর: ভারত ১ম ইনিং: ২৯৭/১০ (৯৬.৪ ওভারে, রাহুল ৪৪, আগরওয়াল ৫, পুজারা ২, কোহলি ৯, রাহানে ৮১, বিহারি ৩২, পান্থ ২৪, জাদেজা ৫৮, রোচ ৪/৬৬, গ্যাব্রিয়েল ৩/৭১, চেজ ২/৫৮)। ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১ম ইনি: ২২২/১০ (৭৪.২ ওভারে, ব্রাভো ১৮, চেজ ৪৮, হোপ ২৪, হেটমায়ার ৩৫, হোল্ডার ৩৯, ঈশান্ত ৫/৪৩)। ভারত দ্বিতীয় ইনিংস: ১৮৫/৩(৭২ ওভারে, রাহুল ৩৮, আগারওয়াল ১৬, পুজারা ২৫, কোহলি ৫১*, রাহানে ৫৩*, রোচ ১/১৮)
*তৃতীয়দিন শেষে।

লিভারপুলের জয়, ম্যানইউয়ের হার

লিভারপুলের জয়, ম্যানইউয়ের হার
মোহাম্মদ সালাহর উদযাপন (ইনসেটে মাতিপ), ছবি: সংগৃহীত

মাঠের লড়াইয়ে জ্বলে উঠলেন মোহাম্মদ সালাহ। পেলেন জোড়া গোল। মিশরীয় ফুটবল রাজপুত্রের এ দাপুটে পারফরম্যান্সে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে ঘরের মাঠে লিভারপুল ৩-১ গোলে ধরাশায়ী করেছে আর্সেনালকে। তবে অঘটনের শিকার হয়েছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। নিজেদের মাঠে ক্রিস্টাল প্যালেসের কাছে ২-১ গোলে হার মেনেছে কোচ ওলে গুনার শোলসজায়েরের দল।

দ্য অ্যানফিল্ডে লিভারপুলকে ৪১তম মিনিটে এগিয়ে দেন জোয়েল মাতিপ। আট মিনিট বাদে পেনাল্টি থেকে গোল ব্যবধান ২-০ তে নিয়ে যান কোচ জুর্গেন ক্লপের শিষ্য সালাহ। ৫৮তম মিনিটে নিজের জোড়া গোল পূর্ণ করেন দ্য রেড শিবিরের এ তারকা ফরওয়ার্ড।

ম্যাচ শেষের বাঁশি বাজার ৫ মিনিট আগে কোচ উনাই এমেরির গানারদের হয়ে একটি গোল শোধ করেন লুকাস তোরেইরা।

শনিবার রাতের অন্য ম্যাচে ওল্ড ট্রাফোর্ডে ৩২তম মিনিটেই জর্ডান আইয়ুর গোলে এগিয়ে যায় অতিথি ক্রিস্টাল প্যালেস। ম্যাচ শেষ হওয়ার এক মিনিট আগে রেড ডেভিলদের সমতায় ফেরান ড্যানিয়েল জেমস।

কিন্তু ইনজুরি টাইমে ম্যানইউ ফুটবলারদের হৃদয় ভেঙে দেন ক্রিস্টাল প্যালেসের ফুলব্যাক প্যাট্রিক ফন অ্যানহোল্ট (৯০+৩)। তার জয়সূচক গোলেই ১৯৮৯ সালের পর প্রথম বারের মতো ওল্ড ট্রাফোর্ডে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ল ক্রিস্টাল প্যালেস। কোচ রয় হজসনের কাছে যা ‘বীরত্ব গাঁথা জয়’।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র