ভারতের কোচের সংক্ষিপ্ত তালিকায় তিন দেশি, তিন বিদেশি

স্পোর্টস এডিটর, বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম
ভারতের তালিকায় থাকা তিন বিদেশি কোচ টম মুডি, ফিল সিমন্স ও মাইক হেসন, ছবি: সংগৃহীত

ভারতের তালিকায় থাকা তিন বিদেশি কোচ টম মুডি, ফিল সিমন্স ও মাইক হেসন, ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

দরখাস্ত পড়েছিল বেশ। কিন্তু সেই তালিকা ছেঁটে সংক্ষিপ্ত করেছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড। কোচ পদের জন্য ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের টেবিলের সংক্ষিপ্ত সেই তালিকায় এখন নাম মাত্র ছয়জনের। যেখানে আছেন তিন বিদেশি। আর বাকি তিনজন পুরোই ভারতীয়।

নামগুলো শুনি। বিদেশি তালিকায় আছেন- নিউজিল্যান্ডের সাবেক কোচ মাইক হেসন, শ্রীলঙ্কার সাবেক কোচ টম মুডি এবং আফগানিস্তানের সাবেক কোচ ফিল সিমন্স। দেশি তিনজন হলেন-বিশ্বকাপে ভারতের কোচ রবি শাস্ত্রী, সাবেক ফিল্ডিং কোচ রবিন সিং এবং সাবেক ম্যানেজার লালচান্দ রাজপুত।

এই ছয়জনকেই সাক্ষাতকারে ডাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড। হাফডজন এই কোচ বোর্ডের উপদেষ্টা ক্রিকেট কমিটির কাছে তাদের প্রস্তাবনা পেশ করবে। সেই প্রেজেন্টেশন দেখে কমিটি তাদের সিদ্ধান্ত জানাবে। এই ক্রিকেট কমিটির চেয়ারম্যান হলেন- ভারতের ১৯৮৩ সালের বিশ্বকাপ জয়ী দলের অধিনায়ক কপিল দেব। ধারণা করা হচ্ছে চলতি সপ্তাহের মধ্যেই অথবা সামনের সপ্তাহে নতুন কোচের নাম ঘোষণা করবে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড।

কপিল দেবের সঙ্গে এই উপদেষ্টা ক্রিকেট কমিটিতে থাকছেন ভারতের সাবেক কোচ অংশুমান গায়কোয়াড় ও মহিলা দলের সাবেক অধিনায়ক শান্তা রাঙ্গাস্বামী।

দেশি নাকি বিদেশি কোন কোচকে এবার ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড বেছে নেয়- সেটা এখনো পরিষ্কার নয়। তবে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে যাওয়ার আগে ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলি জানিয়ে গেছেন, 'বিশ্বকাপে ব্যর্থতা স্বত্বেও আমি রবি শাস্ত্রীকেই কোচ হিসেবে দেখতে চাই।'

রবি শাস্ত্রীসহ বিশ্বকাপে ভারতের কোচিং স্টাফদের আরও ৪৫ দিনের চাকরির মেয়াদ বাড়িয়েছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড। ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে যাতে দল কোচহীন না হয়ে যায়- সেজন্যই এই ব্যবস্থা।

ভারতীয় দলের ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফর শেষ হবে ৩ সেপ্টেম্বর।

ভারতের কোচের সংক্ষিপ্ত তালিকায় যে তিন বিদেশি রয়েছেন তারা প্রত্যেকেই নিজ ক্ষেত্রে সফল এবং দক্ষ। অস্ট্রেলিয়ার সাবেক অলরাউন্ডার টম মুডি কোচ হিসেবে শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট দলের দায়িত্ব পালন করেছেন লম্বা সময় ধরে। বর্তমানে আইপিএলে সানরাইজার্স হায়দরাবাদের কোচের দায়িত্বও সামাল দিচ্ছেন দক্ষতার সঙ্গেই।

মাইক হেসেন নিউজিল্যান্ড দলকে ২০১৫ সালের বিশ্বকাপের ফাইনালে তুলে আনেন।

ফিল সিমন্স ক্রিকেটার হিসেবেও ছিলেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের ম্যাচ উইনার। কোচ হিসেবে তার ওয়েস্ট ইন্ডিজ, আয়ারল্যান্ড এবং আফগানিস্তানকে কোচিং করানোর অভিজ্ঞতা আছে। ২০১৬ সালের টি-টুয়েন্টি বিশ্বকাপের ট্রফি জেতে ওয়েস্ট ইন্ডিজ তার সফল কোচিংয়েই।

লালচান্দ রাজপুতের কোচিং ক্যারিয়ারও বেশ সমৃদ্ধ। ২০০৭ সালের টি-টুয়েন্টি বিশ্বকাপ জয়ী ভারতীয় দলের কোচ ছিলেন রাজপুত। তাছাড়া আফগানিস্তান এবং আয়ারল্যান্ড জাতীয় দলের কোচের দায়িত্বও পালন করেছেন তিনি।

আপনার মতামত লিখুন :