মেসির পাশেই পুরো আর্জেন্টিনা দল

সব্যসাচী হাজরা

  • Font increase
  • Font Decrease

মস্কো থেকে: জার্মানি চলে এসেছে। হট ফেবারিট স্পেন ও ব্রাজিল এখন রাশিয়ায়। কাল শুরু হচ্ছে বিশ্বকাপ ফুটবল। ২১তম আসরের চ্যাম্পিয়ন কে হবে এ নিয়ে বাংলাদেশসহ বিশ্বের সর্বত্র চলছে তর্ক-বিতর্ক।

শুধু একজন মানুষ, তিনি এ নিয়ে এখন কথা বলতে চাইছেন না। তিনি আর কেউ নন। তিনি লিওনেল মেসি। আর্জেন্টিনাকে টানা ৩টি বড় টুর্নামেন্টের ফাইনালে তোলার পরও তিনি আশাহত হয়েছেন। আগের বিশ্বকাপের ফাইনালে তো মেসি একাই নিয়ে এসেছিলেন আর্জেন্টিনাকে। এবার অবশ্য আগেভাগে বলেছেন, রাশিয়ায় ফল ভালো না হলে বিদায় বলে দিতে পারেন।

আর্জেন্টিনা মস্কোর গহিন অরণ্যে অনুশীলন করছে। মঙ্গলবার সংবাদ মাধ্যমের সামনে আসেন ইনজুরিতে ছিটকে পড়া রোমেরোর বদলি গোলরক্ষক নাহুয়েল গুজম্যান। তিনি জানান, মেসি এতোদিন দলকে টেনেছেন। এবার মেসিকে সাহায্য করতে পুরো আর্জেন্টিনা প্রস্তুত।

২০১৪ সালে জার্মানি ফাইনাল ম্যাচে ১-০ গোলে আর্জেন্টিনাকে পরাজিত করেছিল। এবারের বিশ্বকাপে গ্রুপ সহজ নয়। এই ‘ডি’ গ্রুপে আইসল্যান্ড, নাইজেরিয়া ও ক্রোয়েশিয়া রয়েছে। ক্রোয়েশিয়া ও নাইজেরিয়া ভয়ঙ্কর। আর আইসল্যান্ড ইউরো ২০১৬ চ্যাম্পিয়নশিপে কোয়ার্টার ফাইনালে উঠেছিল। আর্জেন্টিনার এই গোলরক্ষক সব জানেন ও বোঝেন।

তবে মেসির পাশে খেলতে পেরে রোমাঞ্চিত গুজম্যান। তিনি বলেন, মেসি আমার কাছে মনে হয় মাঠের চেয়ে অনুশীলনে বেশি পরিশ্রম করে। বড় খেলোয়াড় হওয়ার এটাই শর্ত। পুরো দলের সাথে একেবারে মিশে যায় সে। একজন গ্রেট খেলোয়াড় এমনই। তার সঙ্গে ভাববিনিময় করতে পেরে ভালো লাগছে। আমি গর্বিত। আমাদের পুরো দলটি তাকে সাহায্য করার জন্য মুখিয়ে আছে। আমরা মেসিকে জ্বলে উঠতে সাহায্য করব।

মেসির অভিজ্ঞতা বড় সম্পদ বলে মনে করেন গুজম্যান। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেছেন, মেসির বিশ্বকাপ খেলার অভিজ্ঞতা রয়েছে। আর এটাই ইতিবাচক ব্যাপার। আমার কাছে মনে হয় আমরা এবার কিছু একটা করে দেখাতে পারবো। সম্প্রতি সে অনুশীলন করেছে। প্রতিদিনও নতুন কিছু করেছে। আমরা এখন ভালো কিছুর অপেক্ষায়।’

১৬ জুন লিওনেল মেসিদের প্রতিপক্ষ আইসল্যান্ড। এরপর ক্রোয়েশিয়া ও নাইজেরিয়ার ম্যাচ। মেসির জ্বলে ওঠার অপেক্ষায় বিশ্বেও ফুটবল রোমান্টিকরা।  

 

আপনার মতামত লিখুন :