এমপি হবেন তিনি, তবে এখনও খবর জানেন না মোমেন

সাব্বির আহমেদ, সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
সাবেক রাষ্ট্রদূত আবদুল মোমেন, ছবি: সংগৃহীত

সাবেক রাষ্ট্রদূত আবদুল মোমেন, ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত আসন্ন সংসদ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা না করার চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। তার জায়গায় নির্বাচনে লড়বেন ছোট ভাই ড. এ কে আবদুল মোমেন। কিন্তু মোমেন এখনও জানেন না এ সিদ্ধান্তের কথা। বর্তমানে নিউইয়র্ক সফরে রয়েছেন তিনি। সেখান থেকে বার্তা২৪.কমকে বাংলাদেশ সময় বিকেল ৩টায় হোয়াটস্যাপে বলেন, ‘আমি জানি না। এখন মাত্র ভোর ৫টা। খবরটি আগে জেনে নেই। পরে জানাচ্ছি।’

বৃহস্পতিবার (৬ সেপ্টেম্ব) মন্ত্রণালয়ে অর্থমন্ত্রী ও সিলেট ১ আসনের সংসদ সদস্য আবুল মাল আবদুল মুহিত সাংবাদিকদের বলেন, নির্বাচনকালীন সরকারে সম্ভবত আমি থাকছি। কারণ আমি তো আর নির্বাচন করছি না।’

তিনি আবারও বললেন, ‘হ্যাঁ আমি সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত করেছি। আমার ভাই (সাবেক রাষ্ট্রদূত আবদুল মোমেন) নির্বাচন করবে, আমি তার সমর্থক হয়ে কাজ করবো।’

তবে অর্থমন্ত্রী এ নিয়ে বেশ কয়েকবার তার মত পাল্টালেন। মাত্র কয়েকমাস আগেও তিনি বলেছিলেন, তিনি নির্বাচন করবেন। তার আগে তিনি বলেছিলেন, নির্বাচন করবেন না। এবার আবার বললেন, চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়ার কথা। যে সিদ্ধান্তে তিনি নন, তার ভাই নির্বাচন করবেন।

তার ভাই আবদুল মোমেন জাতিসংঘে বাংলাদেশের সাবেক স্থায়ী প্রতিনিধি ছিলেন। অভিজ্ঞ কূটনীতিক ড. এ কে আবদুল মোমেন ২০১৬ সালে যুক্তরাষ্ট্র থেকে ফিরে আসার পর রাজনীতিতে নামবেন বলে ঘোষণা দিয়েছিলেন। তিনি তা আর হয়ে উঠেনি। বর্তমানে তিনি চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করছেন।

এদিকে আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় সূত্র থেকে জানা গেছে, কূটনৈতিক ও অর্থনীতিবিদ এমন দু’জন আসন্ন নির্বাচনে সিলেটে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেতে যাচ্ছেন।

এদের একজন অর্থমন্ত্রী অথবা তার ভাই আর সিলেট- ৫ আসনে অর্থমন্ত্রী পরিবারের আত্মীয় এবং ওই এলাকার বাসিন্দা রুপালী ব্যাংকের সাবেক চেয়ারম্যান এবং এনজিও সংস্থা সীমান্তিকের প্রতিষ্ঠাতা ড. আহমদ আল কবীর। তিনি অর্থনীতিবিদ হিসেবেও পরিচিত। আর রাজনৈতিকভাবে যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য।

সে হিসেবে সিলেট- ১ সংসদীয় আসনে আবদুল মোমেন আর সিলেট-৫ আসনে ড. আহমদ আল কবির আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন পাওয়ার কথা শোনা যাচ্ছে।

গত সপ্তাহের শেষ দিকে সিলেটে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় দলের সফরে ড. আহমদ আল কবীরও ছিলেন। যুব লীগের কেন্দ্রীয় প্রেসিডিয়াম সদস্য কবীর নিজ এলাকায় স্থানীয় আওয়ামী লীগের সমর্থনের কথা জানিয়েছেন।

ড. আহমদ আল কবীর বার্তা২৪.ডটকম কে বলেন, সিলেট অঞ্চলের গুরুত্বপূর্ণ দুই মন্ত্রীও তাকে সমর্থন দিয়েছেন। নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতার জন্য সব প্রস্তুতি নিয়েছেন।

বর্তমানে সিলেট-৫ আসন জাতীয় পার্টির এমপি সেলিম উদ্দিনের দখলে। কোনো প্রার্থী না থাকায় ওই আসনে গতবার প্রতিদ্বন্দ্বিতা ছাড়া নির্বাচিত হন যুক্তরাজ্য প্রবাসী সেলিম উদ্দিন।