মুক্তিযোদ্ধা ভাতার পরিধি বৃদ্ধি করে বিল পাস

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
সংসদ ভবন- ছবি: সুমন শেখ

সংসদ ভবন- ছবি: সুমন শেখ

  • Font increase
  • Font Decrease

মুক্তিযোদ্ধাদের ভাতার পরিধি বৃদ্ধি করে মুক্তিযোদ্ধা কল্যাণ ট্রাস্ট আইন ২০১৮ বিল পাস হয়েছে। বৃহস্পতিবার (২০ সেপ্টেম্বর) ডেপুটি স্পিকার ফজলে রাব্বি মিয়ার সভাপতিত্বে সংসদের ২২তম অধিবেশনে এ বিল পাস হয়। বিলের ওপর আনীত সংশোধনী, জনমত যাচাই ও বছাই কমিটিতে প্রেরণের প্রস্তাবসমুহ কণ্ঠভোটে নাকচ হয়ে যায়।

বিলে প্রতিরক্ষা বাহিনী, পুলিশ, সশস্ত্র বাহিনীতে কর্মরত ও নিয়মিত আয়ের উৎস থাকা মুক্তিযোদ্ধাদেরও সম্মানীভাতার পাওয়ার অধিকারী হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। বিলে মুক্তিযোদ্ধা ভাতা গ্রহণের ক্ষেত্রে উত্তরাধিকার হিসেবে স্বামী/স্ত্রী/সন্তান/পিতা-মাতার অবর্তমানে মুক্তিযোদ্ধার ভাই-বোনকে ভাতা গ্রহণের অধিকার দেওয়া হয়েছে। বিলটি পাস করার প্রস্তাব করেন মুক্তিযোদ্ধা মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক।

এই বিলে এই বোর্ডের পূর্বানোমদন ছাড়া মুক্তিযোদ্ধা কল্যাণ ট্রাস্ট্রের কোন স্থাবর সম্পত্তি বিক্রয়, হস্তান্তর ও দীর্ঘ মেয়াদী ইজারা প্রদানের সিদ্ধান্ত নেওয়ার এখতিয়ার রহিত করা হয়েছে।

এছাড়াও গ্রামীণ জনগোষ্ঠীর দোড় গোরায় স্বাস্থ্য সেবা পৌঁছে দেওয়ার জন্য ইউনিয়ন পরিষদের ওয়ার্ড পর্যায় পর্যন্ত কমিউনিটি ক্লিনিক স্থাপন ও পরিচালনার জন্য কমিউনিটি ক্লিনিক স্বাস্থ্য সহায়তা ট্রাস্ট বিল ২০১৮ পাস করেছে সংসদ। স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বিলটি পাস করার প্রস্তাব করেন।

এই বিলটি পাস হওয়ার ফলে সরকারের ‘রিভাইটালাইজেশন কমিউনিটি হেলথ কেয়ার ইনিশিয়েটিভ ইন বাংলাদেশ’ শীর্ষক প্রকল্প এবং ‘কমিউনিটি বেইজড হেলথ কেয়ার’ শীর্ষক প্ল্যানের আওতায় স্থাপিত কমিউনিটি ক্লিনিকসমুহ এই আইনের অধীনে ন্যাস্ত হবে।

এই ট্রাস্ট্রের পরিচালনার জন্য একটি উপদেষ্টা কমিটি থাকবে। যার প্রধান হবেন প্রধানমন্ত্রী। এছড়া ট্রাস্ট পরিচালনার জন্য একটি বোর্ড থাকবে। বোর্ডেও প্রধান হবে প্রধানমন্ত্রী মনোনীত কোন সমাজ হিতৈষী ব্যক্তি। প্রধান কার্যালয় থাকবে ঢাকায়।

আপনার মতামত লিখুন :