‘শিক্ষকরা ছেলেমেয়েদের বইয়ের পৃষ্ঠায় আটকে ফেলেছেন’

উবায়দুল হক, ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট
ছবি: বার্তা২৪

ছবি: বার্তা২৪

  • Font increase
  • Font Decrease

শিক্ষক-অভিভাবকরা ছেলেমেয়েদের ক্লাসের বইয়ের পৃষ্ঠার মধ্যে আটকে ফেলেছেন বলে হতাশার কথা ব্যক্ত করেছেন সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর।

তিনি আক্ষেপ করে বলেন, ‘বইয়ের পৃষ্ঠার বাইরেও আলাদা একটি জগৎ আছে। পৃথিবীটা অনেক বড় ও সুন্দর, সেই সৌন্দর্যের স্বাদ আমাদের সন্তানদের দিতে না পারলে তারা সুন্দর মানুষ হয়ে গড়ে উঠবে না। সে চিন্তা-ভাবনা থেকে শিক্ষক-অভিভাবকরা একদম সরেই গেছে।’

বুধবার (২৪ অক্টোবর) রাতে ময়মনসিংহের টাউনহল প্রাঙ্গণে প্রথমবারের মত তিন দিনব্যাপী জাতীয় ভাটিয়ালী সঙ্গীত উৎসবের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে নিজের হতাশার কথা জানান সংস্কৃতিমন্ত্রী।

তবে আশার বাণীও শোনান তিনি। বলেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী এ ব্যাপারে অত্যন্ত সচেতন, আর সচেতন বলেই তিনি ক্রমাগত আমাদের সংস্কৃতি ক্ষেত্রে সুযোগ-সুবিধা বৃদ্ধি করে চলেছেন।’

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2018/Oct/25/1540463141280.jpg

মন্ত্রী বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী যে স্বপ্ন দেখাচ্ছেন তা বাস্তবায়ন করতে হলে আমাদের সন্তানদের সংস্কৃতির চেতনায় গড়ে তুলতে হবে। তা যদি না পারি তাহলে আমরা যে উন্নত বাংলাদেশের কথা বলছি সেটি অর্জন করা সম্ভব হবে না। যারা শিল্প-সংস্কৃতি ভালোবাসেন এই সংখ্যাটা যত বেশী বৃদ্ধি পাবে ততই সমাজটা মানবিক হবে। এ সংখ্যাটা বৃদ্ধি করাই আমাদের কাজ।’

ভাটিয়ালী-ভাওয়াইয়া’র প্রস্তাবনা বিষয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘ভাটিয়ালী ও ভাওয়াইয়া দুটিরই প্রস্তাব হয়েছিলো দুটি একাডেমি করার সেটি নিয়ে আমরা ভাবছি, কিভাবে কি করা যায়। আমার মনে হয় দুই অঞ্চলে দুটি করা গেলে তাতে অনেক কাজ করা সম্ভব হবে।’

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন, জাতীয় ভাটিয়ালী সঙ্গীত উৎসব উদযাপন কমিটির সদস্য সচিব সারওয়ার কামাল রবীন। ‘ভাটিয়ালী : নিঃসঙ্গ মাঝির অন্তরঙ্গ সুরের ভেলা’ শীর্ষক নিবন্ধ উপস্থাপন করেন শিক্ষক ও গবেষক ছড়াকার স্বপন ধর।

আলোচনা করেন, বাংলা একাডেমির উপ-পরিচালক ড. আমিনুর রহমান সুলতান, জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গীত বিভাগের প্রফেসর ড. জাহিদুল কবির, প্রফেসর সুমিতা নাহার  ও চারণ আখড়ার সাধারণ সম্পাদক পিন্টু সাহা।

জাতীয় ভাটিয়ালী সঙ্গীত উৎসব উদযাপন কমিটির আহবায়ক প্রফেসর ড. মো. আনোয়ারুল ইসলামের সভাপতিত্বে আরও বক্তব্য রাখেন, ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশনের নবনিযুক্ত প্রশাসক মো. ইকরামুল হক টিটু, জেলা প্রশাসক ড. সুভাষ চন্দ্র বিশ্বাস, জেলা আ.লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট জহিরুল হক খোকা।

আলোচনা শেষে সঙ্গীত পরিবেশন করেন উপমহাদেশের প্রখ্যাত শিল্পী প্রয়াত আব্দুল আলীমের ছেলে আজগর আলীম ও মেয়ে নুরজাহান আলীম। এছাড়াও ময়মনসিংহ, নেত্রকোণা, সুনামগঞ্জ ও সিলেট জেলার বাউল শিল্পীরা ভাটিয়ালী সঙ্গীত পরিবেশন করেন। তিন দিনব্যাপী এ অনুষ্ঠান শেষ হবে আগামী ২৬ অক্টোবর (শুক্রবার)।