অবসরেই যাচ্ছেন অর্থমন্ত্রী, লিখবেন আত্মজীবনী

অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত/ছবি: বার্তা২৪

অবসরেই যাচ্ছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। বর্তমান সরকারের অর্থমন্ত্রী হিসেবে এটা তার শেষ দায়িত্ব পালন। এখান থেকেই বর্ণাঢ্য রাজনৈতিক জীবনের অবসান ঘটাবেন তিনি। তবে ভবিষ্যতে সরকারের অন্য কোনো দায়িত্ব পালন করতে পারেন তিনি। অবসর জীবনে তিনি কী করবেন- সে পরিকল্পনাও করে রেখেছেন।

মঙ্গলবার (৭ নভেম্বর) দুপুরে মন্ত্রণালয়ে তার কক্ষে বার্তা২৪.কম’র সঙ্গে বিশেষ সাক্ষাতকারে এসব কথা বলেন খ্যাতনামা এই বাংলাদেশি অর্থনীতিবিদ, রাজনীতিবিদ, লেখক এবং ভাষাসৈনিক। নিয়মানুযায়ী বুধবারই ছিল সরকারের দ্বিতীয় মেয়াদের শেষ দিন। এরপর থেকে নির্বাচনকালীন সরকার শুরু হওয়ার কথা।

অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘রু‌টিন কাজ আর আমার দ্বারা সম্ভব হবে না। প্রধানমন্ত্রী আমার অবসরে যাওয়ার প্রস্তাবে রাজি হয়েছেন। তবে তিনি জানিয়েছেন অন্য কোনো কাজ দেবেন আমাকে। এমনকি আমাকে নির্বাচনের কাজ করতে হতে পারে। এজন্য আমি নির্বাচনী প্রচারণায় থাকছি।’

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2018/Nov/08/1541668761051.jpg

তিনি আরো বলেন, ‘আমি পরবর্তী সরকারে কোনো দায়িত্বে থাকছি না। তবে ওই সরকারে আমার ভূমিকা হবে দায়িত্বহীন।’

‘রাজনীতিতে না থাকলেও মনোনয়নপত্র কিনবেন অর্থমন্ত্রী’ গণমাধ্যমে প্রকাশিত এমন সংবাদের ব্যাখায় তিনি বলেন, ‘আসলে ডামি মনোনয়ন জমা দেবো আমি। এটা প্রত্যেকবারই হয়। কোনো প্রার্থী সমস্যায় পড়লে আরেকজন থাকেন। আমি গতবার যখন মনোনয়ন জমা দিয়েছিলাম তখনও দলের পক্ষ থেকে আরেকজন ডামি মনোনয়ন দিয়েছিলেন। এটা দলের প্রয়োজনে করা হয়।’

সুতরাং আসন্ন নির্বাচনে সিলেট-১ আসনে আওয়ামী লীগ থেকে অন্য কোনো প্রার্থীকে মনোনয়ন দেওয়া হবে। তবে কাকে মনোনয়ন দেওয়া হতে পারে সে বিষয়টি স্পষ্ট করেননি আবুল মাল আবদুল মুহিত। তবে তার ছোট ভাই ড. আবুল মোমেন ও সাবেক মেয়র বদর উদ্দিন আহমদ কামরানের নাম বেশ জোরেসোরে শোনা যাচ্ছে।

আওয়ামী লীগ আবার ক্ষমতায় আসলে অর্থমন্ত্রী কে হবেন- এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘এর উত্তর দেয়াটা কঠিন, বোঝা যাচ্ছে না। তবে বর্তমান অর্থপ্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নানের সুযোগ রয়েছে। কারণ তার বাড়িও সিলেটের সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরে।’

সিলেটে তার ছবিসহ পোস্টার সাটানোর বিষয়ে তিনি বলেন, ‘সিলেটে আমার নামে প্রচুর পোস্টার। এটা কে লাগিয়েছে? আমার ভাইকে আমি জিজ্ঞাসা করেছিলাম। সেও জানে না। কে এর জন্য টাকা দিয়েছে? আমাকে এটা খুঁজে বের করতে হবে।’

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2018/Nov/08/1541668777777.jpg

তিনি জানান, নতুন বছরের বই মেলায় তার একটি ইংরেজি বই আসছে। বইটির নাম হবে ‘মুহিত’স নলেজস বুক’। আর অবসরে গিয়েই সিলেট বিষয়ক একটি বই লিখবেন তিনি। ওই বইয়ে গৌড়গোবিন্দের আগের সিলেটের ইতিহাস থাকবে। একই সঙ্গে আত্মজীবনীমূলক বইও লিখছেন তিনি। গুরুত্বপূর্ণ অধ্যায়গুলো লেখা শেষ। ১৯৭২ সাল পর্যন্ত সময়কার ঘটনা লেখা শেষ হয়েছে। এরমধ্যে অনেক ঘটনাবহুল বর্ণনা রয়েছে। সেখানে পুরো মুক্তিযুদ্ধের সময়কার কথা লেখা হয়েছে।

বইটিতে ৩১টি অধ্যায় থাকবে। শেষ হয়েছে ১-১০ম অধ্যায় ও মাঝের কয়েকটি অধ্যায়ের কাজ।

অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত সবার কাছে বহুমুখী প্রতিভায় ভাস্বর, বর্ণিল গুণাবলী, সৎ, ন্যায়নিষ্ট, কর্মযোগী ও স্পষ্টভাষী বিরল ব্যক্তিত্ব হিসেবে পরিচিত। দুই মেয়াদে টানা ১০ বার (২০০৯-২০১৮) বাজেট পেশ করার রেকর্ড করেছেন তিনি। এমনকি বাংলদেশে প্রথম পরিবেশ আন্দোলনও তিনি শুরু করেছিলেন।

জাতীয় এর আরও খবর