চরমোনাইতে লাখো মুসল্লির অংশগ্রহণে মাহফিল শুরু



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
চরমোনাইতে লাখো মুসল্লির অংশগ্রহণে মাহফিল শুরু। ছবি: বার্তা২৪.কম

চরমোনাইতে লাখো মুসল্লির অংশগ্রহণে মাহফিল শুরু। ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

বরিশালের চরমোনাইতে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের লাখো মুসল্লির অংশগ্রহণে তিনদিনব্যাপী অগ্রহায়ণের বার্ষিক মাহফিল শুরু হয়েছে।

সোমবার (২৬ নভেম্বর) বাদ জোহর সদর‍ ‍উপজেলার চরমোনাই মাদরাসা ময়দানে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আমির ও চরমোনাই পীর মুফতি সৈয়দ মুহাম্মদ রেজাউল করীমের উদ্বোধনী বয়ানের মধ্যে দিয়ে শুরু হয় এই মাহফিল।

উদ্বোধনী বয়ানে চরমোনাই পীর মুফতি সৈয়দ মুহাম্মদ রেজাউল করীম বলেন, ‘চরমোনাই বার্ষিক মাহফিল দুনিয়ার কোনো উদ্দেশ্য হাসিলের জায়গা নয়। চরমোনাই মাহফিল শুধুমাত্র আল্লাহকে পাওয়ার জন্য সঠিক পথ দেখানোর জায়গা।’

তিনি বলেন, ‘যদি কোনো ভাই উদ্দেশ্য হাসিলের নিয়তে চরমোনাইতে এসে থাকেন, তবে তাদের উচিত নিয়ত পরিবর্তন করে আল্লাহকে পাওয়ার জন্য এখানের আলোচনাগুলো শুনে সে অনুযায়ী নিজের জীবনকে পরিচালনা করা।’

চরমোনাই পীর বলেন, ‘চরমোনাই দরবারের প্রধান লক্ষ্য হল মানুষকে পাপের কাজ থেকে মুক্ত করে নেকের কাজ করতে উৎসাহিত করা। অপরাধ জগতে পা দেয়া মানুষকে সোনার মানুষে পরিণত করে দেশে শান্তি প্রতিষ্ঠা করা।’

চরমোনাই বার্ষিক মাহফিলের মিডিয়া সমন্বয়ক কে এম শরীয়াতুল্লাহ বার্তা২৪.কমকে জানান, চরমোনাইয়ের মরহুম পীর আল্লামা সৈয়দ এছহাক (রহ.) প্রতিষ্ঠিত চরমোনাই মাদরাসায় প্রতি বছর অগ্রহায়ণ ও ফাল্গুন মাসে ২টি বার্ষিক মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। প্রতি বছরের ধারাবাহিকতায় এ বছরও অগ্রহায়ণের মাহ্ফিল শুরু হয়েছে। তাছাড়া মাহফিলের শুরুর দিন সকালেই আগত মুসল্লিদের জন্য নির্ধারিত ২টি মাঠ কানায় কানায় পরিপূর্ণ হয়ে গেছে।

তিনি আরও জানান, চরমোনাইয়ের বার্ষিক মাহফিলে অংশ নেয়া মুসল্লিদের চিকিৎসার জন্য ১০০ শয্যা বিশিষ্ট অস্থায়ী হাসপাতালে ৪০ জন বিশেষজ্ঞ ডাক্তার সেবা প্রদান করছে। এছাড়াও মাহফিলের শৃঙ্খলা নিশ্চিত করতে নিজস্ব প্রায় ৪ হাজার স্বেচ্ছাসেবক দিন রাত পরিশ্রম করছে।

প্রসঙ্গত, সোমবার (২৬ নভেম্বর) শুরু হওয়া তিনদিনব্যাপী এই মাহফিল বৃহস্পতিবার (২৯ নভেম্বর) সকালে আখেরি মোনাজাতের মাধ্যমে শেষ হবে।