পটুয়াখালী-৩: ভিন্ন কৌশলে ভোটারদের কাছে যেতে চান রনি

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
পটুয়াখালী-৩ আসনে ধানের শীষের প্রার্থী গোলাম মাওলা রনি/ ছবি: বার্তা২৪.কম

পটুয়াখালী-৩ আসনে ধানের শীষের প্রার্থী গোলাম মাওলা রনি/ ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

‘প্রথাগত নির্বাচনী প্রচারণা চালাচ্ছি না এবং চালাতেও পারছি না। প্রশাসনের কোনো সহযোগিতা পাচ্ছি না। এলাকায় এখন ভিতিকর পরিস্থিতি বিরাজ করছে। নির্বাচনী প্রচারণার হাজারো কৌশল রয়েছে। প্রতিপক্ষ যে পন্থায় নির্বাচন করছে, সেই পন্থায় করবো না। অন্য একটি পন্থায় জনগণের কাছে যাব। যাতে আমাদের সংঘর্ষ না হয়, মুখোমুখি না হতে হয়।’

নির্বাচনী এলাকায় নিজের অবস্থা সম্পর্কে এভাবেই সাংবাদিকদের অবিহত করেন পটুয়াখালী-৩ (গলাচিপা ও দশমিনা) আসনে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী গোলাম মাওলা রনি। গলাচিপা উপজেলার উলানিয়া বাজারে উপস্থিত নেতাকর্মীদের সামনে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে তিনি এসব কথা বলেন।

বিএনপির অভ্যন্তরীণ কোন্দল অবসানে ইতোমধ্যে হাইকমান্ডের নির্দেশে কাজ শুরু করা হয়েছে বলে জানান রনি। এর আগে রনির সাথে নির্বাচনী একটি সভায় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা বিএনপির সভাপতি শাহজাহান খান। রনির বাসভবনে দেখা যায় পটুয়াখালী জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি গোলাম মোস্তফাকে, তিনিও এ আসনে মনোনয়নপ্রত্যাশী ছিলেন।

স্থানীয় বিএনপি নেতাদের দাবি, দুই একদিনের মধ্যে রনির নির্বাচনী প্রচারণায় অংশ নেবেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি হাসান মামুন।

এদিকে রনির প্রতিপক্ষ আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী এস এম শাহজাদা তার নির্বাচনী প্রচার প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন। প্রতিদিনই বিভিন্ন ইউনিয়নে উঠান বৈঠকসহ নেতাকর্মীদের নিয়ে প্রচারণা চালাচ্ছেন।

পটুয়াখালী-৩ আসনে এবার মোট ভোটার সংখ্যা দুই লাখ ৯৮ হাজার ৪৯৮ জন। এই আসনে ১১৮টি ভোটকেন্দ্রে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। ২০০৮ সালে আওয়ামী লীগ থেকে এ আসনে গোলাম মাওলা রনি প্রথম এমপি নির্বাচিত হন।

এরপর ২০১৪ সালে আওয়ামী লীগ থেকে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় আ.খ.ম জাহাঙ্গির হোসেন এমপি নির্বাচিত হলেও এবার এস এম শাহজাদাকে মনোনয়ন দেয় আওয়ামী লীগ। বর্তমান প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে.এম নূরুল হুদা সম্পর্কে শাহজাদার মামা।