Barta24

সোমবার, ২২ জুলাই ২০১৯, ৭ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

বগুড়ায় ডিবি পরিচয়ে ৫লাখ টাকা ছিনতাই

বগুড়ায় ডিবি পরিচয়ে ৫লাখ টাকা ছিনতাই
ডিবি পরিচয়ে ছিনতাইকারী, ছবি: বার্তা২৪
ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট
নন্দীগ্রাম
বার্তা২৪


  • Font increase
  • Font Decrease

বগুড়ার নন্দীগ্রামে ডিবি পুলিশ পরিচয়ে ব্যবসায়ীর কাছ থেকে ৫ লাখ টাকা ছিনতাই করে পালানোর সময় স্থানীয় জনগণ মাইক্রোবাসসহ ৫ ছিনতাইকারীকে আটক করে পুলিশে দিয়েছে।

আটককৃতদের কাছ থেকে ছিনতাই করা ৫লাখ টাকা ছাড়াও উদ্ধার করা হয়েছে ১জোড়া হ্যান্ডকাপ, ১টি ওয়ারলেস সেট,ও ১টি খেলনা পিস্তল।

মঙ্গলবার (০৮ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় নন্দীগ্রাম উপজেলার চাকলমা বাজারে এঘটনা ঘটে।

স্থানীয়রা জানায়, নন্দীগ্রাম উপজেলার দমদমা গ্রামের ধান ব্যবসায়ী জাহাঙ্গীর আলম বাবু মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে ইসলামী ব্যাংক থেকে ৫ লাখ টাকা উত্তোলন করে। এরপর তিনি সিএনজি চালিত অটোরিকশা যোগে বাড়ি ফিরছিলেন। বিকেল ৫ টার দিকে নামুইট নামক স্থানে মাইক্রোবাস (ঢাকা মেট্রো ট-১৯-২৯৩৮) যোগে ডিবি পুলিশধারীরা জাহাঙ্গীর হোসেন বাবুকে হ্যান্ডকাপ লাগিয়ে মাইক্রোবাসে উঠিয়ে নেয়। অটোরিকশা চালক ঘটনাটি বাবুর পরিবারকে জানায়। তারা নন্দীগ্রাম থানায় এবং বগুড়া ডিবিতে খোঁজ নিয়ে বাবুর সন্ধান পায় না।

এক পর্যায় গ্রামের লোকজন সংগঠিত হয়ে বিভিন্ন সড়কে মাইক্রোবাসটি খুঁজতে থাকে। সন্ধ্যার পর উপজেলার চাকলমা বাজারে মাইক্রোবাসটি দেখে লোকজন ঘেরাও করে। এসময় ডিবি পুলিশ পরিচয়ধারীরা পালানোর চেষ্টা করলে জনগণ তাদের গণধোলাই দিয়ে আটক করে রাখে। খবর পেয়ে নন্দীগ্রাম থানা পুলিশ তাদেরকে থানায় নিয়ে যায়।

আটককৃতরা হচ্ছেন মাইক্রোবাস চালক সুরুজ(৩৫), ভুয়া ডিবি পুলিশ ফরহাদ উদ্দিন(৩৫), সুমন (৩০),সাহাব উদ্দিন (৪৫) এবং ইকবাল হোসেন(৪০)

নন্দীগ্রাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নাসির উদ্দিন বার্তা২৪কে বলেন, গ্রেফতারকৃতরা আন্তঃজেলা ছিনতাইকারী চক্রের সদস্য। ৫ জনের বাড়ি ৫ জেলায়। তাদের হেফাজত থেকে ব্যবসায়ী বাবু এবং ছিনতাইকরা ৫লাখ টাকা উদ্ধার করা হয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন :

রোহিঙ্গা সঙ্কট সমাধানে ন্যামের কাছে আহ্বান

রোহিঙ্গা সঙ্কট সমাধানে ন্যামের কাছে আহ্বান
ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

মিয়ানমার যেন রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নেয় এবং রোহিঙ্গা সঙ্কটের স্থায়ী সমাধান করে সে বিষয়ে জোট নিরপেক্ষ দেশসমূহের (ন্যাম) সদস্যসহ মিয়ানমারের প্রতিবেশী দক্ষিণ-পূর্ব এশীয় এসোসিয়েশন (আসিয়ান) ভুক্ত দেশসমূহ তথা আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে আরও অধিক এবং অব্যাহতভাবে প্রচেষ্টা গ্রহণ করার আহ্বান জানালেন জাতিসংঘে নিযুক্ত বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেন।

রোববার (২১ জুলাই) ভেনিজুয়েলার রাজধানী কারাকাসে ন্যাম কোর্ডিনেটিং ব্যুরো এর মন্ত্রী পর্যায়ের সভায় বক্তব্য প্রদানকালে এ আহ্বান জানান তিনি।

উল্লেখ্য ন্যাম মিনিস্ট্রিয়ালের এবারের প্রতিপাদ্য ছিল ‘আন্তর্জাতিক আইনের প্রতি শ্রদ্ধা প্রদর্শনের মাধ্যমে শান্তি এগিয়ে নেওয়া ও সুসংহত করা’।

অধিকৃত ফিলিস্তিনী ভূখণ্ডে আন্তর্জাতিক আইন ও আন্তর্জাতিক মানবাধিকার আইনের লঙ্ঘন এবং ফিলিস্তিনী জনগণের প্রতি দীর্ঘ নিপীড়নের কথা উল্লেখ করে স্থায়ী প্রতিনিধি বলেন, শুধু উদ্বেগ প্রকাশ করে ফিলিস্তিনসহ বিশ্বের অন্যান্য স্থানে সংঘটিত এ জাতীয় অমানবিক ও বর্বর কর্মকাণ্ডের পুনরাবৃত্তি রোধ করা সম্ভব নয়। দেশগুলো যাতে আন্তর্জাতিক আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হয় আমাদেরকে অবশ্যই তা নিশ্চিত করতে হবে; আর মানবতার বিরুদ্ধে অপরাধ সংগঠনকারীদের দায়-দায়িত্ব নিরূপণের মাধ্যমে বিচারের আওতায় আনতে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে হবে যেমনটি প্রযোজ্য মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গাদের উপর সংঘটিত মানবতার বিরুদ্ধে অপরাধের ক্ষেত্রে।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯৭৩ সালে জোট নিরপেক্ষ সম্মেলনে যোগদানের যে যুগান্তকারী সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন তা স্মরণ করে মোমেন বলেন, 'বাংলাদেশ এখনও জাতির পিতার সেই নীতি-আদর্শ ও জোট নিরপেক্ষ আন্দোলনের কর্মকাণ্ড থেকে অনুপ্রাণিত হয় যা আজকের বিশ্বে চলমান অস্ত্রের বিস্তার, শুধু নিরাপত্তার ক্ষেত্রে

সর্বশেষ প্রযুক্তিসমূহের ব্যবহারের আধিক্য, জলবায়ু পরিবর্তন, আন্ত:সাংস্কৃতিক সংঘাত ইত্যাদি চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় প্রযোজ্য হতে পারে।

আফ্রিকা, এশিয়া, ওশেনিয়া, ল্যাটিন আমেরিকা, ইউরোপ ও ক্যারিবিয়ান অঞ্চলের ৮৫টি দেশের ১৬ জন মন্ত্রীসহ উচ্চ-পর্যায়ের প্রতিনিধিগণ এই মিনিস্ট্রেরিয়াল সভায় যোগ দেন।

ভেনিজুয়েলার পররাষ্ট্রমন্ত্রী জর্জ অ্যার্রিয়াজা মন্টসের্রাট এ সভায় সভাপতিত্ব করেন। সভাটিতে ভেনিজুয়েলার প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরো বক্তব্য প্রদান করেন।

কোথায় হারাল ট্যাক্সি ক্যাবটি!

কোথায় হারাল ট্যাক্সি ক্যাবটি!
সাভার আমিনবাজারের সালেহপুর ব্রিজ থেকে তুরাগ নদে পড়ে যায় ট্যাক্সি ক্যাবটি

রোববার রাত সোয়া ৮টার দিকে সাভারের আমিনবাজারের সালেহপুর এলাকায় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে একটি ট্যাক্সি ক্যাব তুরাগ নদে পড়ে যায়। গাড়িটিকে উদ্ধারে রাতভর অভিযান চালিয়ে এখনও সন্ধান পাননি ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের ডুবুরিরা।

ট্যাক্সি চালক ও এর যাত্রীদের ভাগ্যে কী ঘটেছে—তাও নিশ্চিত করে জানাতে পারেননি উদ্ধারকারীরা।

ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে আমিনবাজারের সালেহপুর সেতু থেকে রোববার (২১ জুলাই) রাতে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে তুরাগ নদে পড়ে নিঁখোজ হয় চলন্ত ট্যাক্সি ক্যাবটি।
https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jul/22/1563759394746.jpg
খবর পেয়ে পুলিশ এবং ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে উদ্ধার অভিযান পরিচালনা করে।

সাভার জোনের দায়িত্বপ্রাপ্ত ট্রাফিক পরিদর্শক আবুল হোসেন বলেন, সেতুর আগে নিরাপত্তামূলক ছোট খুঁটি বেঁকে গেছে। এতে ট্যাক্সি ক্যাবটি নদীতে পড়ে ডুবে গেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। তবে এতে কতজন যাত্রী ছিলেন, তা জানা যায়নি।

আমিনবাজার পুলিশ ফাঁড়ির দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এবং উপ-পরিদর্শক (এসআই) জামাল হোসেন বলেন, এ ঘটনার পর খবর পেয়ে থানা-পুলিশ, নৌপুলিশ, ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল উদ্ধার অভিযান শুরু করে।

ফায়ার সার্ভিসের কমান্ডার আনোয়ারুল হক বলেন, ঘটনাস্থলে ডুবুরি দল উপস্থিত হয়েছে। তবে এখনও পর্যন্ত ট্যাক্সি ক্যাবের সন্ধান পাওয়া যায়নি। এ ঘটনায় কাউকে উদ্ধারও করা যায়নি।
https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jul/22/1563759426063.jpg
ট্রাফিক পুলিশের আমিনবাজার বক্সের ইনচার্জ কামরুল ইসলাম বলেন, প্রাথমিকভাবে সড়কে লাগানো সিসিটিভি ক্যামেরার ফুটেজ দেখে আমরা নিশ্চিত হয়েছি যে, একটি ট্যাক্সি ক্যাব নদে পড়ে নিমজ্জিত হয়েছে।

উল্লেখ্য, ২০১০ সালের ১১ অক্টোবর ওই সেতু থেকে তুরাগ নদে বৈশাখী পরিবহনের একটি যাত্রীবাহী বাস পড়ে গিয়েছিল। ওই ঘটনায় ১৫ যাত্রী নিহত হন।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র