Alexa

অগ্নিযুগের বিপ্লবী দেবেন্দ্রনাথ ঘোষের মৃত্যুবার্ষিকী

অগ্নিযুগের বিপ্লবী দেবেন্দ্রনাথ ঘোষের মৃত্যুবার্ষিকী

দেবেন্দ্রনাথ ঘোষ, ছবি: সংগৃহীত

উপমহাদেশের সশস্ত্র স্বাধীনতা সংগ্রামের ইতিহাসে দেবেন্দ্রনাথ ঘোষ এক বিপ্লবী পুরুষের নাম। শৈশব থেকে আমৃত্যু তিনি সংগ্রাম করে গেছেন। শুধু সশস্ত্র সংগ্রামের সংগঠক নয়, সমাজসেবায়, কর্মনিষ্ঠায় ও সততায় দেবেন্দ্রনাথ ঘোষ আজও এক দৃষ্টান্ত স্বরূপ ব্যক্তিত্ব।

শুক্রবার (১১ জানুয়ারি) এই সংগ্রামী ব্যক্তিত্বের ২০তম মৃত্যুবার্ষিকী। ১৯৯৯ সালের আজকের এই দিনে বিপ্লবী দেবেন্দ্র নাথ ঘোষের জীবনাবসান ঘটে।

বৃটিশদের বিরুদ্ধে সশস্ত্রবাদী যুদ্ধ, নিপীড়ক পাকিস্তানের স্বৈরশাসনের বিরুদ্ধে আন্দোলন সংগ্রাম করে জীবনের এক চতুর্থাংশ (প্রায় ২৬ বছর) জেলখানাতেই কাটান তিনি।

১৯৫০ সালে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সাথেও জেল খেটেছেন দেবেন্দ্র ঘোষ। বহু সংগ্রামী নেতার সাথে জেল জীবনে তাঁর সান্নিধ্যে এসেছিলেন।

স্বাধীন বাংলাদেশে ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের হত্যাকাণ্ডের পর তৎকালীন সামরিক শাসক ৮৫ বছর বয়সে তাকে জেলে নিক্ষেপ করেছিল। প্রায় ১ বছর জেল জুলুম ভোগ করে ছাড়া পান তিনি।

অতি বৃদ্ধ হয়েও ৯০ এর পরবর্তী স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলন থেকে শুরু করে সামাজিক সকল কর্মকাণ্ড থেকে তিনি বিচ্যুত হননি। সামরিক শাসন ও স্বৈরাচারদের বিরুদ্ধে যখন কেউ কথা বলতেন না তখন তিনি নিশ্চুপ থাকতে পারতেন না।

শান্ত স্বভাবের এই মানুষটিই হয়ে উঠতেন অনলবর্ষী বক্তা। একাধারে তিনটি রাষ্ট্রের জেল জীবন ভোগ করে তিনি হয়েছিলেন 'সংগ্রামী পুরুষ'।

এদিকে বিপ্লবী দেবেন্দ্রনাথ ঘোষের ২০ তম মৃত্যুবার্ষিকীতে নানা কর্মসূচি গ্রহণ করেছে বিপ্লবী দেবেন ঘোষ স্মৃতি রক্ষা কমিটি।

কমিটির উদ্যোগে শুক্রবার (১১ জানুয়ারি) সকাল ১০টায় বরিশাল মহাশ্মশানে পুষ্পস্তবক অর্পণ, বিকেল ৪ টায় আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, ১৮৯০ সালের ২২ এপ্রিল বিপ্লবী দেবেন্দ্র নাথ ঘোষ বরিশাল নগরীর কাউনিয়া ক্লাব রোডের নিজস্ব বাড়িতে জন্মগ্রহণ করেন।

 

আপনার মতামত লিখুন :