Barta24

বুধবার, ১৭ জুলাই ২০১৯, ২ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

শাহজালাল (রহ:) এর মাজার জিয়ারত করলেন ঐক্যফ্রন্ট নেতারা

শাহজালাল (রহ:) এর মাজার জিয়ারত করলেন ঐক্যফ্রন্ট নেতারা
শাহজালাল (রহ:) এর মাজার জিয়ারত করলেন ঐক্যফ্রন্ট নেতারা
সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট
বার্তা ২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ সিলেট এসে পৌঁছে হযরত শাহজালাল (রহ:) এর মাজার জিয়ারত করেছেন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নেতারা।

এই টিমে আছে কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি আবদুল কাদের সিদ্দিকী, মহাসচিব হাবিবুর রহমান বীর প্রতীক, গণফোরামের কার্যকরী সভাপতি অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মহসিন মন্টু, জেএসডি সভাপতি আ স ম আব্দুর রবসহ শীর্ষ নেতৃবৃন্দ।

সোমবার (১৪ জানুয়ারি) সকাল পৌনে ১২ টায় হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে সিলেট ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর এসে পৌঁছান তারা।

মাজার জিয়ারত শেষে নেতৃবৃন্দ জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট নেতারা দুপুরে সিলেটের বালাগঞ্জে নির্বাচনী সহিংসতায় নিহত ছাত্রদল নেতা সায়েমের বাড়িতে যাবেন। সেখানে তারা কিছুক্ষণ অবস্থান করবেন ও পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে কথা বলবেন। বিকেলে তাদের ঢাকায় ফেরার কথা রয়েছে।

গত ৩০ ডিসেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ভোট চলাকালে বিকেল পৌনে ৪টার দিকে (সিলেট-৩) বালাগঞ্জ উপজেলার আজিজপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে দুই পক্ষের সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ হয়ে প্রাণ হারান সায়েম আহমদ সোহেল। পরিবারের দাবি পুলিশের গুলিতে প্রাণ হারান সুহেল।

আপনার মতামত লিখুন :

ন্যায্য মূল্যে ধান কিনতে ডিসিদের সহায়তা চান কৃষিমন্ত্রী

ন্যায্য মূল্যে ধান কিনতে ডিসিদের সহায়তা চান কৃষিমন্ত্রী
সচিবালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলছেন কৃষিমন্ত্রী ড. মো. আব্দুর রাজ্জাক/ ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

আগামী বছর থেকে বোরো মৌসুমে ন্যায্য মূল্যে ধান কিনতে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য জেলা প্রশাসকদের (ডিসি) সহায়তা চেয়েছেন কৃষিমন্ত্রী ড. মো. আব্দুর রাজ্জাক।

বুধবার (১৭ জুলাই) বিকালে সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ সম্মেলন কক্ষে ডিসি সম্মেলনের চতুর্থ দিনের সপ্তম অধিবেশন শেষে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন।

আব্দুর রাজ্জাক বলেন, ‘এই বোরো মৌসুমে ধানের দাম অনেক কম। ফলে কৃষকরা অনেক ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন। চার লাখ টন চাল কেনার যে লক্ষ্যমাত্রা রয়েছে, মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের বলেছি সরাসরি যেন কৃষকদের কাছ থেকে ধান কেনা হয়। এবার ধান কেনা প্রভাবমুক্ত ছিল।’

কৃষিমন্ত্রী বলেন, ‘বড় সমস্যা হলো গুদাম নেই, আর উৎপাদন খরচও বেশি। কৃষিকে যান্ত্রিকীকরণের জন্য প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, দুই থেকে তিন হাজার কোটি টাকা প্রণোদনা দেবেন। ইতোমধ্যে নীতিগত সিদ্ধান্ত হয়েছে, তার জন্য ইতোমধ্যে ৯ হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ রাখা হয়েছে।’

চালের লাভ মিল মালিকদের কাছে যায় উল্লেখ বরে তিনি বলেন, ‘এবার বলেছি, আগামী বছর থেকে মিলারকে যদি ৫০০ টন চাল দিই তাহলে তাদের ৫০০ টন ধানও কিনতে হবে। এই লিস্ট আমরা করে দেবে। আমরা মিটার কিনে দেবে। সেটা ঠিক থাকলে মিলারের কাছ থেকে দাম নেবে।’

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jul/17/1563367062406.gif

‘ডিসিদের অনুরোধ করেছি আগামীতে বোরো আমরা যেন বিপুল ধান প্রত্যক্ষভাবে কিনতে পারি। সেজন্য আমরা একটি নীতিমালাও করব। এটি কেবিনেটে অনুমোদন করে, সুনির্দিষ্ট নীতিমালা আইনের মাধ্যমে এক্ষেত্রে অগ্রসর হতে চাচ্ছি।’

চাষিদের ক্যাটাগরি করা হবে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘প্রান্তিক চাষি, মাঝারি চাষি ও বৃহৎ চাষি- এই তিন ক্যাটাগরি করা হবে। বৃহৎ চাষিদের একটু কম দিলাম, আবার মাঝারি ও প্রান্তিক চাষিদের একটু বেশি সুবিধা দিলাম। ডিসিদের সঙ্গে এ বিষয়ে আলোচনা করেছি। আগামী আমন ও বোরো মৌসুমে চাষিরা ক্ষতিগ্রস্ত না হয়, সেজন্য আমাদের ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।’

ডিসিরা কোনো সমস্যার কথা বলেছেন কি-না জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘তারা বলেছে সহায়তা করবে। ধানের বিষয়টি নিয়ে তারাও চিন্তিত, মাঠ পর্যায়ে ব্যাপক আলোচনা হচ্ছে। এছাড়া তারা বিভিন্ন সমস্যার কথা বলেছেন। আমরা সেগুলোর উত্তরও দিচ্ছি।’

ধান ক্রয়ে রাজনৈতিক প্রভাব কাজ করেনি দাবি করে মন্ত্রী বলেন, ‘এবার আমরা রাজনৈতিক প্রভাবমুক্ত হয়েছি। ডিসি, ইউএনও ও কৃষি অফিসারদের এমন নির্দেশ দিয়েছি, যার ফলে রাজনৈতিক প্রভাব কাজ করেনি, করতে দেওয়া হয়নি।’

প্রত্যাহারের আদেশ না মানায় দুর্গাপুর থানার ওসি স্ট্যান্ড রিলিজ

প্রত্যাহারের আদেশ না মানায় দুর্গাপুর থানার ওসি স্ট্যান্ড রিলিজ
দুর্গাপুর থানার ওসি আব্দুল মোতালেব, ছবি: সংগৃহীত

রাজশাহীর দুর্গাপুর থানার অফিসার ইনচার্জকে (ওসি) আব্দুল মোতালেব প্রত্যাহারের আদেশ না মানায় তাকে স্ট্যান্ড রিলিজের আদেশ দেওয়া হয়েছে।

বুধবার (১৭ জুলাই) সকালে রাজশাহী জেলা পুলিশ সুপার এই আদেশ দেন। জেলা পুলিশের মুখপাত্র ইফতে খায়ের আলম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম-কে জানান, গত ২ জুলাই একজন নারী তার স্বামীর বিরুদ্ধে নির্যাতনের মামলা করতে আসলেও তা নিতে গড়িমসি করার অভিযোগ ওঠে ওসি আব্দুল মোতালেবের বিরুদ্ধে। তিনি অভিযোগ খতিয়ে দেখতে একজন এএসআইকে দায়িত্ব দেন। ওই এএসআই আইনগত ব্যবস্থা না নিয়ে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের নিয়ে মীমাংসার জন্য বৈঠক ডাকেন। তবে ঘটনা মীমাংসা করার আগেই ভুক্তভোগী নারীর স্বামী (অভিযুক্ত) দুবাই চলে যান।

জেলা পুলিশের মুখপাত্র আরও জানান, বিষয়টি জানাজানি হলে এবং ভুক্তভোগীর অভিযোগের প্রেক্ষিতে জনস্বার্থে ওসি আব্দুল মোতালেবকে বদলি করা হয়। তাকে ১৬ জুলাইয়ে পুলিশ লাইনে হাজির হওয়ার আদেশ জারি করা হয়। নির্ধারিত দিনে পুলিশ লাইনে হাজির না হওয়ায় তাকে দুর্গাপুর থানা থেকে স্ট্যান্ড রিলিজের আদেশ দেওয়া হয়।

থানা সূত্র জানায়, রাজশাহীর দুর্গাপুর উপজেলার মহিপাড়া গ্রামের শিমু ইয়াসমিন লিপি নামের এক অন্তঃসত্ত্বা নারীকে শারীরিক নির্যাতন করে তার দুবাই প্রবাসী স্বামী সোহেল রানা। পরে ওই নারী রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে ভর্তি হন। সেখানে অপারেশনের মাধ্যমে তার গর্ভের মৃত সন্তানকে বের করা হয়। চিকিৎসকরা জানান, স্বামীর মারধর ও আঘাতে ওই নারীর গর্ভের সন্তান মারা যায়।

এ ঘটনায় গত ২ জুলাই স্বামীর বিরুদ্ধে নির্যাতনের মামলা করতে গেলে ওসি আব্দুল মোতালেব তা নিতে গড়িমসি করে নারীকে ফিরিয়ে দেন। দ্বিতীয় দফায় অভিযোগ করতে গেলে, অভিযোগের প্রাথমিক সত্যতা জানার পর অভিযোগ নেওয়া হবে মর্মে একজন এএসআইকে দায়িত্ব দেন। তবে সেই এএসআই অভিযুক্তকে দেশ ছেড়ে যাওয়ার সুযোগ করে দেন বলে অভিযোগ ওঠে।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র