Barta24

রোববার, ২১ জুলাই ২০১৯, ৬ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

অবৈধ সম্পদ ভোগ করতে পারবেনা দুর্নীতিবাজদের উত্তরসূরিরা

অবৈধ সম্পদ ভোগ করতে পারবেনা দুর্নীতিবাজদের উত্তরসূরিরা
ছবি: বার্তা২৪
স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

দুর্নীতির মাধ্যমে অর্জিত অবৈধ সম্পত্তি ভোগ করতে পারবে না দুর্নীতিবাজদের উত্তরসূরিরা বলে মন্তব্য করেছেন দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) মহাপরিচালক প্রশাসন মুনীর চৌধুরী।

বৃহস্পতিবার (২৪ জনুয়ারি) দুর্নীতি দমন কমিশন কার্যালয়ে দুদক চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদের সভাপতিত্বে নবগঠিত অপরাধ লব্ধ সম্পত্তি ব্যবস্থাপনা ইউনিটের কার্যক্রম নিয়ে এক জরুরি সভা শেষে এ মন্তব্য করেন দুদক মহাপরিচালক।

তিনি আরো বলেন, দুর্নীতির মাধ্যমে দুর্নীতিবাজরা রাষ্ট্র ও  জনগণের সম্পত্তি ভোগ করে থাকেন। তাই সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করে জনগণের কাছে ফিরিয়ে দেয়া হবে আমাদের মূল কাজ।

তদন্ত চলাকালীন সময়ে সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করতে পারেন কিনা সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নে দুদকের আইন শাখার মহাপরিচালক মঈদুল ইসলাম বলেন, তদন্ত চলাকালীন সময় দুদক দুর্নীতির সাথে জড়িত এমন অভিযোগে অভিযুক্ত ব্যক্তিদের সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করতে পারে এমন আইন দুটো আছে এবার সে আইন আরো শক্তভাবে বাস্তবায়ন করা হবে।

তিনি আরো বলেন, দুর্নীতি দমন কমিশনের যে সকল মামলার আসামিরা মারা গেছেন কিন্তু অবৈধ সম্পত্তি রয়ে গেছে এসব সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করার জন্য আইনি পদক্ষেপ নেয়া হবে।

এ সময় দুদকের অপরাধ লব্ধ সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত ব্যবস্থাপনা ইউনিটের পরিচালক খন্দকার এনামুল বাছির ,গোয়েন্দা ইউনিটের পরিচালক, আইন বিভাগের পরিচালক, বিশেষ তদন্ত বিভাগের পরিচালকসহ অন্যান্য ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে সকালে নীলফামারী জেলা থেকে আশিকুর রহমান নামে এক আনসার সদস্য দুদকের কর্মকর্তাকে ঘুষ দেয়ার সময় হাতেনাতে গ্রেফতার করে দুদক গোয়েন্দারা। তার বিরুদ্ধে চট্টগ্রামে খাগড়াছড়িতে দায়িত্বে থাকা অবস্থায় ই-টেন্ডার জালিয়াতিতে জড়িত থাকারও অভিযোগ রয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন :

ধর্মীয় দৃষ্টিকোণ থেকে কেউ অবিচারের স্বীকার হননি: গণপূর্তমন্ত্রী

ধর্মীয় দৃষ্টিকোণ থেকে কেউ অবিচারের স্বীকার হননি: গণপূর্তমন্ত্রী
সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপ করেন গৃহায়ণ ও গণপূর্তমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

প্রিয়া সাহার অভিযোগ সঠিক নয় উল্লেখ করে ধর্মীয় দৃষ্টিকোণ থেকে কেউ অবিচারের স্বীকার হননি বলে দাবি করেছেন গৃহায়ণ ও গণপূর্তমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম।

রোববার (২১ জুলাই) দুপুরে সচিবালয়ে নিজ দফতরে তিনি সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন।

গণপূর্তমন্ত্রী বলেন, ‘আমার নির্বাচনী এলাকায় একজনও গুম হয়নি। হিন্দু-মুমলিম-বৌদ্ধ সবার সহাবস্থান রয়েছে। ধর্মীয় দৃষ্টিকোণ থেকে কেউ অবিচারের স্বীকার হননি। প্রিয়া সাহা যে অভিযোগ করেছেন, তা অসত্য এবং উদ্দেশ্য প্রণোদিত। অসৎ কোন পরিকল্পনা থেকেও এটি করতে পারেন।’

তিনি আরও বলেন, ‘প্রিয়া বালার যেহেতু কোনো সম্পত্তি নেই, সেহেতু তার সম্পত্তি নিয়ে যাওয়া কিংবা আগুন দেওয়ার সুযোগ নেই। তিনি বলেছেন মুসলিম মৌলবাদীরা এ ঘটনা ঘটিয়েছে- এটি সঠিক নয়, এটা অসত্য। আমার এলাকায় মৌলবাদীর অবস্থান নেই। সেখানে শান্তিপূর্ণ অবস্থান রয়েছে।’

রেজাউল করিম বলেন, ‘সাম্প্রতিক আমার গ্রাম চরবানিয়ারির প্রিয়া সাহা মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কাছে অভিযোগ করেছেন। তিনি বিবাহ সূত্রে যশোরের অধিবাসী। চরবানিয়ারি গ্রামে তিনি বসবাস করেন না, এবং এই গ্রামে তার কোনো সম্পত্তি নেই। এখানে তার বাবা ও ভাইয়ের সম্পত্তি আছে। তাদের একটা পরিত্যক্ত ঘরে রাতে আগুন লাগে, সেটি কেন্দ্র করে তার ভাই জগদিস বিশ্বাসের কেয়ার টেকার অমলেস বিশ্বাস একটি অভিযযোগ দায়ের করেন। কোনো ব্যক্তির নাম সেখানে উল্লেখ করা হয়নি। এজহারে কোনো মৌলবাদীর কথাও উল্লেখ করা হয়নি।’

তিনি বলেন, ‘আমার এলাকায় প্রিয়া সাহার কোনো জমি কেউ দখল করেনি, আগুনও দেয়নি। জেলা হিন্দু-বৌদ্ধ, খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ জানিয়েছেন প্রিয়া সাহার বক্তব্যের প্রতিবাদে তারা মানবন্ধন করবেন। প্রিয়া সাহার এনজিও আছে, সেটির পিরোজপুর সভাপতি বলেছেন তার পিরোজপুর ইউনিট বিলুপ্ত করেছে। প্রিয়া সাহার সঙ্গে তাদের কোনো সম্পর্ক নেই বলে জানিয়েছে।’

প্রিয়া সাহার বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহের দুই মামলা খারিজ

প্রিয়া সাহার বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহের দুই মামলা খারিজ
ডোনাল্ড ট্রাম্পের কাছে নালিশ করছেন প্রিয়া সাহা (বামে)/ ছবি: সংগৃহীত

১৮ জুলাই মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কাছে ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের উপর নির্যাতনের মিথ্যা তথ্য উপস্থাপন করায় প্রিয়া সাহার বিরুদ্ধে ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে আবেদনকৃত দুই মামলা খারিজ করে দিয়েছেন আদালত।

রোববার (২১ জুলাই) সকালে ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন ম্যাজিস্ট্রেট মো. জিয়াউর রহমানের আদালতে এবং অ্যাডভোকেট ইব্রাহিম খলিল ম্যাজিস্ট্রেট আবু সুফিয়ান মো. নোমানের আদালতে এ মামলা দায়ের করেছিলেন।

ওই সময় আদালত বাদীর জবানবন্দি গ্রহণ করে আদেশ পরে দিবেন বলে জানিয়েছিলেন। বিকালে আদালত মামলার দুটি আবেদনই খারিজ করে দেন।

আদালত তার আদেশে বলেন, রাষ্ট্রদ্রোহ মামলার বাদী সরকারি লোক না হওয়ায় মামলাটি খারিজ করা হলো।

গত ১৮ জুলাই হোয়াইট হাউসে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে আমেরিকার প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ধর্মীয় নিপীড়নের শিকার বিশ্বের ১৯টি দেশের ২৭ জনের সঙ্গে কথা বলেন।

উক্ত অনুষ্ঠানে ট্রাম্পের সঙ্গে বাংলাদেশি প্রিয়া সাহার কথোপকথনের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়।

প্রিয়া সাহা, মার্কিন রাষ্ট্রপতি ডোনাল্ড ট্রাম্পকে বলেন, ‘আমি বাংলাদেশ থেকে এসেছি এবং সেখানে ৩৭ মিলিয়ন (৩ কোটি ৭০ লাখ) হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান এরইমধ্যে উধাও হয়ে গেছে হয়েছে। এখনও এক কোটি ৮০ লাখ আছে। যার মধ্যে ১৭ লাখ শিশু এবং অন্যান্য ধর্মাবলম্বী মানুষ বসবাস করে। আমাদেরকে সাহায্য করুন। আমি আমার ঘর হারিয়েছি, জমি হারিয়েছি। ইতোমধ্যেই আমার বাড়ি-ঘর দখল করেছে। জ্বালিয়ে দিয়েছে। কিন্তু আমরা সরকার থেকে এর কোনো বিচার পাই নাই। আমরা বাংলাদেশেই থাকতে চাই। আমরা বাংলাদেশ ছাড়তে চাই না। দয়া করে আমাদের সাহায্য করুন।’

এ সময় ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রিয়া সাহাকে জিজ্ঞাসা করেন, এসব কারা ঘটাচ্ছে? জবাবে প্রিয়া সাহা বলেন, ইসলামী মৌলবাদী শক্তি। তারা সবসময়ই রাজনৈতিক ছত্রছায়া পেয়ে আসছে।’

মামলায় প্রিয়া সাহার বক্তব্যকে রাষ্ট্রদ্রোহী উল্লেখ করে এ মামলা দায়ের করা হয়।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র