Alexa

ডিজিটালে রূপ নিচ্ছে বরিশাল সিটি করপোরেশন

ডিজিটালে রূপ নিচ্ছে বরিশাল সিটি করপোরেশন

বরিশাল সিটি করপোরেশনের জন্য কেনা ডিজিটাল যন্ত্রপাতির মোড়ক যাচাই করে দেখছেন করপোরেশনের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা/ ছবি: বার্তা২৪.কম

সিদ্দিকুর রহমান, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম

বরিশাল পৌরসভা থেকে সিটি কর্পোরেশনে উন্নতি হওয়ার পর এই প্রথম বারের মতো নাগরিক সেবায় নগরভবন ডিজিটালে রূপ নিচ্ছে। এরই অংশ হিসেবে ইতোমধ্যে সফটওয়্যারসহ প্রয়োজনীয় আধুনিক ইলেকট্রনিক্স যন্ত্রাংশ বরিশালে এসে পৌঁছেছে।

আর এসব প্রযুক্তির সংযুক্তির ফলে বরিশাল সিটি করপোরেশনের (বিসিসি) রাজস্ব খাত ও হিসাব বিভাগকে সম্পূর্ণ অটোমেশনের আওতায় আসবে। এতে করে করপোশনের কাজের গতি বাড়বে। ফলে সময়ের অপচয় কমার পাশাপাশি কাজের স্বচ্ছতা বৃদ্ধি পাবে।

এদিকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের পাঠানো এসব যন্ত্রাংশ ইতোমধ্যে গ্রহণ করেছেন বিসিসি মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ।

সিটি করপোরেশন সূত্রে জানা গেছে, মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন। এ সময় তাঁর কাছে বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের নানা অব্যবস্থাপনার কথা তুলে ধরার পাশাপাশি বরিশাল শহর ঘিরে নানা উন্নয়ন পরিকল্পনার কথা জানান মেয়র। আর এসব পরিকল্পনা বাস্তবায়নে ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস দেন প্রধানমন্ত্রী।

এদিকে বিসিসিতে আসা আধুনিক প্রযুক্তির এসব যন্ত্রাংশ খুব শীঘ্রই নগর ভবনে স্থাপন করা হবে বলে। ফলে ঘরে বসেই বিভিন্ন বিল পরিশোধসহ নানা সেবা পাবেন নাগরিকরা। এছাড়া কর্পোরেশনের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জন্য চালু করা হচ্ছে ডিজিটাল হাজিরা পদ্ধতি। এতে করে কর্মক্ষেত্রে না এসে বেতন নেওয়ার দিনের অবসান হচ্ছে।

অপরদিকে নগরীর নানা উন্নয়নমূলক কাজ গ্রহণ, অগ্রগতি, ব্যয়সহ সব তথ্যই নগরবাসীর জন্য উন্মুক্ত থাকবে। কোনো নাগরিকের অভিযোগ গ্রহণের পর তাৎক্ষণিক মিলবে সেটির সমাধান। সচল করা হচ্ছে সিটি কর্পোরেশনের ওয়েবসাইট ও ফেসবুক পেজ।

আর এসবের মাধ্যমে কর্পোরেশনের দৈনন্দিন কর্মকাণ্ড ও কর্মপরিল্পনা আপডেটের পাশাপাশি নানা সমস্যা, উন্নয়ন কাজের নানা মতামত তুলে ধরতে পারবেন নাগরিকরা। প্রয়োজনে সিটি মেয়রের সাথে সরাসরি যোগাযোগের সুযোগও থাকছে। আর এসব কাজের আপডেট তথ্য সংরক্ষণে ব্যবহার করা হচ্ছে বিভিন্ন সফটওয়্যার।

বিসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ খায়রুল হাসান জানান, সিটি করপোরেশনের রাজস্ব খাত ও হিসাব বিভাগকে সম্পূর্ণ অটোমেশনের আওতায় নিয়ে আসতে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের একটি প্রকল্পের মাধ্যমে এসব যন্ত্রাংশ বিসিসিতে এসে পৌঁছেছে। এর মধ্যে ৪০টি কম্পিউটার ও প্রিন্টারসহ যাবতীয় আধুনিক যন্ত্রাংশ রয়েছে।

তিনি জানান, এসব স্বয়ংক্রিয় প্রযুক্তি পরিচালনার জন্য করপোরেশনের কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের প্রশিক্ষণও দেওয়া হবে, যা আগামী সপ্তাহে শুরু হবে। আর এই প্রশিক্ষণ কার্যক্রম পরিচালনা করবেন একসেস টু ইনফরমেশনের (এটুআই) কর্মকর্তারা।

জাতীয় এর আরও খবর