কিশোরীকে ধর্ষণ: ‘ভণ্ড’ ফকিরের যাবজ্জীবন

ছবি: প্রতীকী

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বরিশাল, বার্তা২৪.কম

বরিশালের বাকেরগঞ্জে এক কিশোরীকে ধর্ষণের মামলায় ইউনুছ হাওলাদার নামে এক ‘ভণ্ড’ ফকিরের যাবজ্জীবন কারাদণ্ডাদেশ দিয়েছেন আদালত। এছাড়া তাকে ১ লাখ টাকা অর্থদণ্ড অনাদায়ে এক বছরের কারাদণ্ডাদেশ দেওয়া হয়।

মামলা দায়েরের প্রায় ৮ বছর পর বৃহস্পতিবার (৭ ফেব্রুয়ারি) বরিশালের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল আদালতের বিচারক মো. আবু শামীম আজাদ আসামির অনুপস্থিতিতে এ আদেশ দেন।

দণ্ডপ্রাপ্ত ইউনুছ উপজেলার বারঘরিয়া এলাকার মৃত আব্দুল লতিফ চৌকিদারের ছেলে। নির্যাতনের শিকার ওই কিশোরী একই উপজেলার বাসিন্দা।

এজাহার সূত্রে জানা যায়, আসামি ইউনুছ হাওলাদার বিভিন্ন জায়গায় ঘুরে ঝারফুক দিয়ে ফকিরালী চিকিৎসা করে। ২০১০ সালের ২ মে ইউনুছ হাওলাদার একই এলাকার আশ্রাব আলী সিকদারের বাড়ি যায়। এ সময় ওই কিশোরীকে দেখে বলেন, ‘তোকে কেউ ক্ষতি করেছে। তাই তুই দিন-দিন শুকিয়ে যাচ্ছিস। সময় করে আমার কাছে আসিস, আমি চিকিৎসা করলে তুই ভাল হয়ে যাবি।’

তারই ধারাবাহিকতায় ওই বছরের ৩০ জুন রাত ১০টার সময় আসামি ইউনুছ হাওলাদার ওই কিশোরীর বাড়ি যান। পরে চিকিৎসার কথা বলে তিনি কিশোরীকে চেতনা নাশক ঔষধ সেবন করান। পরবর্তীতে কিশোরী অচেতন হয়ে পড়লে ‘ভণ্ড’ ফকির ইউনুছ হাওলাদার তাকে ধর্ষণ করেন।

এ ঘটনায় একই বছর ২১ অক্টোবর ওই কিশোরী বাদী হয়ে ফকির ইউনুছ হাওলাদারকে আসামি করে আদালতে ধর্ষণের অভিযোগ এনে মামলা করে।

ওই বছরের ১৪ নভেম্বর বাকেরগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. হুমায়ুন কবির আসামির বিরুদ্ধে আদালতে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করেন।

আদালতের বিচারক ১০ জন সাক্ষীর সাক্ষ্য গ্রহণ শেষে আসামির বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ প্রমাণিত হলে এ রায় দেন।

জাতীয় এর আরও খবর

ঢামেক মর্গে ড.কামাল

রাজধানীর চাকবাজার চুড়িহাট্টা অগ্নিকাণ্ডের পোড়া মরদেহ দেখতে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে গিয়েছেন ঐক্যফ্...