নিজের ফাঁসি চান আ.লীগ নেত্রী নাজনীন আলম

আ.লীগ নেত্রী নাজনীন আলম। ছবি: সংগৃহীত

রাকিবুল ইসলাম রাকিব, উপজেলা করেসপন্ডেন্ট, গৌরীপুর (ময়মনসিংহ), বার্তা২৪.কম

একাদশ জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত নারী আসনে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন বঞ্চিত হয়েছেন নাজনীন আলম। তিনি ময়মনসিংহ জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য।

এদিকে মনোনয়ন না পেয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে নিজের ফাঁসি চেয়েছেন নাজনীন আলম। এর আগে জেলা আওয়ামী লীগের এই নেত্রী জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত নারী আসনে সংসদ সদস্য হতে দলীয় মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করে জমা দিয়েছিলেন। গত ৮ ফেব্রুয়ারি রাতে সংরক্ষিত নারী আসনের প্রার্থীদের তালিকা প্রকাশ করা হয়। এ সময় বাদ পড়েন তিনি।

এরই ধারাবাহিকতায় গতকাল শনিবার ৭টা ১১ মিনিটে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে নিজের আইডি থেকে ফাঁসি চেয়ে একটি স্ট্যাটাস দেন নাজনীন আলম। মুহূর্তেই তার সমর্থকরা স্ট্যাটাসটিতে লাইক ও কমেন্ট করে।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Feb/10/1549806399035.jpg

পাঠকদের জন্য স্ট্যাটাসটি হুবহু তুলে ধরা হল:

আমার ফাঁসি চাই..!!

১) কেন হাই কমান্ডের আশ্বাসকে সরল মনে বিশ্বাস করেছিলাম!
২) এলাকাবাসী ও দলীয় নেতাকর্মীদের পাশে থাকার প্রয়োজন কেন অনুভব করেছিলাম!
৩) এমপি/সিনিয়র কোনো নেতার পরিবারের সদস্য কেন আমি হলাম না!
৫) কেন দলের নাম ভাঙিয়ে একটি পয়সা রোজগারের ধান্ধা করিনি!
৬) কেন দলের জন্য কাজ করতে গিয়ে দিনে দিনে নিঃস্ব হতে গেলাম!
৭) কেন জনসমর্থন অর্জনের চেষ্টা করেছিলাম!
৮) কেন দলের ভোট ব্যাংক সমৃদ্ধ করতে সদা তৎপর ছিলাম!
৯) কেন তদবির/তেলবাজি ঠিকমতো করতে পারলাম না!
১০) কেন সমর্থকদের বার বার কাঁদাচ্ছি!!

---সম্ভবত: এ সবই আমার ভুল/অপরাধ.. !
এজন্য আমার শাস্তি হওয়া উচিত।

রোববার (১০ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে স্ট্যাটাসের বিষয়ে জানতে চাইলে জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য নাজনীন আলম বলেন, ‘রাজনীতিতে আবেগ, অনুভূতি ও ভালোবাসার মূল্যায়ন নেই। রাজনীতি তার নিজস্ব গতিতে চলে। মনোনয়ন বঞ্চিত হওয়ার পর অসংখ্য নেতা-কর্মীরা যোগাযোগ করছে, ফোন করছে, কান্না-কাটি করছে। কিন্তু আমি তাদের কথার জবাব দিতে পারছি না। তাদেরকে সান্ত্বনা দিতে পারছি না। তাই অভিমান থেকেই ফেসবুকে এই স্ট্যাটাস দিয়েছি।’

জাতীয় এর আরও খবর

ঢামেক মর্গে ড.কামাল

রাজধানীর চাকবাজার চুড়িহাট্টা অগ্নিকাণ্ডের পোড়া মরদেহ দেখতে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে গিয়েছেন ঐক্যফ্...