Barta24

বুধবার, ২৪ জুলাই ২০১৯, ৯ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

রেজিস্ট্রি অফিসে দুর্নীতি চক্র ভেঙে দেওয়ার নির্দেশ আইনমন্ত্রীর

রেজিস্ট্রি অফিসে দুর্নীতি চক্র ভেঙে দেওয়ার নির্দেশ আইনমন্ত্রীর
মতবিনিময় সভায় বক্তব্য দেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক / ছবি: বার্তা২৪
স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

সাব-রেজিস্ট্রি ও জেলা রেজিস্ট্রি অফিসগুলোতে দুর্নীতির দুষ্ট চক্র ভেঙে ফেলার নির্দেশ দিয়েছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক।

তিনি বলেছেন, ‘আপনারা মাঠ পর্যায়ে চাকরি করেন। আমি সেখানে চাকরি করি না। তাই দুর্নীতির সিন্ডিকেট ভাঙতে অবশ্যই আপনাদেরকে পদক্ষেপ নিতে হবে। এতে প্রতিবন্ধকতা এলে আমি সহযোগিতা করব।’

রোববার (৩ মার্চ) রাজধানীতে বিচার প্রশাসন প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটে নিবন্ধন অধিদফতরে আয়োজিত এক মতবিনিময় সভায় তিনি এসব কথা বলেন। স্বচ্ছতা ও জনবান্ধব পরিসেবা নিশ্চিতকরণের লক্ষ্যে এ মতবিনিময় সভার আয়োজন করা হয়।
আইনমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা কেন এই মানষিকতা তৈরি করতে পারব না যে, আমরা ঘুষ খাব না, আমরা সততার সঙ্গে কাজ করব এবং জনগণকে যথার্থ সেবা দিব। এটি কঠিন কাজ নয়। আপনারা আমাকে এ কাজ করে দেখান আমি আপনাদের আনুষঙ্গিক প্রটেকশন এবং প্রিভিলেজ দিব।’

তিনি বলেন, ‘জনগণের দাবি দুর্নীতির বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে। এ দাবী কেন? ২৬ বছর জিয়াউর রহমান, এরশাদ ও খালেদা জিয়া এই দেশ চালিয়েছেন। জনগণের অবস্থা হয়েছিল গরীব থেকে গরীবতর। তখন যারা সরকার চালিয়েছে তারা ছেড়া গেঞ্জি থেকে রাজ প্রাসাদ বানিয়েছে। কিন্তু শেখ হাসিনার সরকার যে উন্নয়ন করেছে সেটা সব মানুষের কাছে পৌঁছিয়েছি। এই পৌঁছানোর কারণে আজকে মানুষের প্রয়োজন একটা সুস্থ সমাজ। সুস্থ সমাজ করতে গেলে যেটা হয়, সেটা হচ্ছে দুর্নীতিমুক্ত সমাজ। সে জন্যই সাব-রেজিস্ট্রি অফিস থেকে মানুষের চাহিদা অনেক বেড়ে গেছে।’

আনিসুল হক বলেন, ‘আপনাদের সম্মান যত বৃদ্ধি করা হবে মানুষের চাহিদা কিন্তু ততই বাড়বে। এই চাহিদা পূরণ করা এবং এই সম্মান বজায় রাখতে গেলে আপনাদের সকলকে দুর্নীতিমুক্ত হতেই হবে। আর আপনারা সৎ ও দুর্নীতিমুক্ত থাকলে কেউ আপনাদের হয়রানি করতে পারবে না।’

সাব-রেজিস্ট্রারদের ও জেলা রেজিস্ট্রারদের সৎ থাকার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, ‘জননেত্রী শেখ হাসিনা আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা করতে চান। তিনি তাঁর বাবা-মা ও ভাইদের হত্যাকাণ্ডের পর ২১ বছর বিচার পাননি। ১৪ বছর মামলা চালিয়ে সেই বিচার আদায় করেছেন।’

মন্ত্রী বলেন, ‘নিবন্ধন পরিদফতরকে অধিদফতরে উন্নীত করা হয়েছে। জেলা রেজিস্ট্রারদের গাড়ি প্রদানের বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন রয়েছে, নতুন সাব-রেজিস্ট্রি অফিস ভবন নির্মাণ করা হয়েছে। অফিসগুলোর ক্যাটাগরি পুনর্বিন্যাশ করা হয়েছে। বদলির ক্ষেত্রে শৃঙ্খলা ফিরে আনা হয়েছে। কর্মচারীদের বেতন-ভাতা প্রায় শতভাগ বৃদ্ধি করা হয়েছে। নকল নবীশদের পারিশ্রমিক বৃদ্ধি করা হয়েছে প্রয়োজনে আরও বৃদ্ধি করা হবে। তারা যাতে প্রতিমাসে পারিশ্রমিক পান সে ব্যবস্থাও করা হয়েছে। শূন্যপদে ১৫০জন সাব-রেজিস্ট্রার নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।’

নিবন্ধন অধিদফতরের মহাপরিদর্শক খান মো. আব্দুল মান্নানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন- লজিসলেটিভ ও সংসদ বিষয়ক বিভাগের সিনিয়র সচিব মোহাম্মদ শহিদুল হক, আইন ও বিচার বিভাগের সচিব আবু সালেহ শেখ মো. জহিরুল হক, যুগ্ম সচিব বিকাশ কুমার সাহা।

আপনার মতামত লিখুন :

যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাসে চাঁদে অবতরণের ৫০তম বার্ষিকী উদযাপন

যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাসে চাঁদে অবতরণের ৫০তম বার্ষিকী উদযাপন
চাঁদে অবতরণের ৫০তম বার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে আর্ল আর. মিলার, ছবি: সংগৃহীত

মহাকাশযান অ্যাপোলো-১১ এর চাঁদে অবতরণের ৫০তম বার্ষিকী উদযাপন করেছে বাংলাদেশে অবস্থিত যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাস।

এ উপলক্ষে মঙ্গলবার (২৩ জুলাই) ঢাকার আমেরিকান সেন্টারে দিনব্যাপী এ অনুষ্ঠান উদ্বোধন করেন বাংলাদেশে নিযুক্ত যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত আর্ল আর. মিলার।

বুধবার (২৪ জুলাই) সকালে ঢাকাস্থ মার্কিন দূতাবাস এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এ কথা জানায়।

উদ্বোধনী বক্তব্যে রাষ্ট্রদূত মিলার নভোচারী নিল আর্মস্ট্রংয়ের সেই বিখ্যাত উক্তি উদ্ধৃত করেন। উক্তিটি হলো-(একজন) মানুষের জন্য এটি একটি ছোট পদক্ষেপ, কিন্তু মানবজাতির জন্য এক বিশাল লাফ।’

দিনব্যাপী অনুষ্ঠানে প্রায় ৪০০ শিক্ষার্থী এবং অতিথি ১০টি আয়োজনে অংশ নেন। এগুলোর মধ্যে ছিল নাসায় কর্মরত বাংলাদেশি-আমেরিকান প্রকৌশলী, বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর নারী পাইলট, যুক্তরাষ্ট্রে সফররত বিজ্ঞান বিষয়ক একজন দূত এবং রোবোটিক্স বিষয়ের প্রশিক্ষকদের অংশগ্রহণে আলোচনা অনুষ্ঠান।

‘এডুকেশনইউএসএ’র কর্মীরা উপস্থিত ছাত্রছাত্রীদের যুক্তরাষ্ট্রের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ে লেখাপড়া করতে উৎসাহিত করেন। এরই মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রে প্রায় ৭,৫০০ বাংলাদেশি শিক্ষার্থী লেখাপড়া করছেন।

a
 চাঁদে অবতরণের ৫০তম বার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানের একটি মুহূর্ত, ছবি: সংগৃহীত

 

অনুষ্ঠানগুলোর ফাঁকে দর্শনার্থীরা নাসার বিভিন্ন ছবি এবং অ্যাপোলো-১১ মিশন ও তিন নভোচারীর ‘জায়ান্ট লিপ’ বিশ্ব ভ্রমণের ঐতিহাসিক স্মারকগুলোর প্রতিলিপির প্রদর্শনী দেখেন। নিদর্শনগুলোর মধ্যে ছিল বাংলা এবং ইংরেজি সংবাদপত্রে প্রকাশিত খবরের ক্লিপিং। চাঁদে অবতরণের মাত্র নয় সপ্তাহ পরে নিল আর্মস্ট্রং, মাইকেল কলিন্স এবং এডউইন ‘বাজ’ অলড্রিন ‘জায়ান্ট লিপ’ বিশ্ব সফরে বের হন। মাত্র ৩৯ দিনে ২৪টি দেশের ২৭টি শহর সফর করেছিলেন তারা- যার মধ্যে ছিল ১৯৬৯ সালের অক্টোবরে ঢাকায় যাত্রাবিরতিও।

২২ জুলাই আমেরিকান সেন্টারের নিয়মিত আয়োজন মিউজিক বাজ-এ ব্যান্ডদল ‘আনসার্টেনটি প্রিন্সিপাল’ হলভর্তি দর্শকের সামনে চাঁদের থিম নিয়ে সঙ্গীত পরিবেশন করে। এছাড়া ৪৪,০০০ এর বেশি মানুষ ফেসবুক লাইভের মাধ্যমে (@bangladesh.usembassy) দূর থেকে অনুষ্ঠানটি উপভোগ করেন।

s
 চাঁদে অবতরণের ৫০তম বার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানের একটি মুহূর্ত, ছবি: সংগৃহীত

 

যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাস চাঁদে অবতরণ করার ৫০তম বার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে ২০ থেকে ২৫ জুলাই ছয়টি স্থানে ৫০টি অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে। স্থানগুলো হচ্ছে ঢাকার আমেরিকান সেন্টার, ধানমন্ডির এডওয়ার্ড এম. কেনেডি সেন্টার ফর পাবলিক সার্ভিস অ্যান্ড দ্য আর্টস (ইএমকে সেন্টার) এবং চট্টগ্রাম, খুলনা, রাজশাহী ও সিলেটের আমেরিকান কর্নার। সারা দেশে যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাসের আওতাধীন এ স্থানগুলোতে প্রতিবছর আয়োজিত হয় ১,৬০০টির বেশি শিক্ষা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। এতে যোগ দেন ২২০,০০০ মানুষ।

রোবট দিয়ে বোমা পরীক্ষা, বিস্ফোরণে নিষ্ক্রিয়

রোবট দিয়ে বোমা পরীক্ষা, বিস্ফোরণে নিষ্ক্রিয়
ঘটনাস্থলে বোম ডিসপোজাল ইউনিট ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

রাজধানীর খামারবাড়িস্থ বঙ্গবন্ধু চত্বরের পাশেই যে বোমা সাদৃশ্য বস্তু শনাক্ত করা হয়, সেটার অবস্থান ও শক্তি বোঝার জন্য রোবট দিয়ে পরীক্ষা করেছে বোমা নিষ্ক্রিয়কারী দল (বোম ডিসপোজাল ইউনিট)।

পরবর্তীতে বিস্ফোরণের মধ্য দিয়ে ওই বোমাগুলো নিষ্ক্রিয় করে বোম ডিসপোজাল ইউনিট। এ সময় বিকট শব্দে চারপাশ কেঁপে ওঠে।

বুধবার (২৪ জুলাই) রাত ৩টার দিকে তেজগাঁও জোনের সহকারী কমিশনার মাহামুদ হাসান বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম-কে এসব তথ্য নিশ্চিত করেন।

রোবট দিয়ে বোমা পরীক্ষা, বিস্ফোরণে নিষ্ক্রিয়

তিনি বলেন, 'সেখানে বোমা সদৃশ্য বস্তু রয়েছে, জানার পর জায়গাটি নিরাপত্তা বেষ্টনী দিয়ে ঘেরাও করে রাখা হয়। ওই বোমাগুলো কতটুকু কার্যকর আর কেমন অবস্থায় আছে তা জানার জন্য পরীক্ষা-নিরীক্ষা করার জন্য রোবট পাঠানো হয়। সেটা মনিটরে দেখে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়।'

পুলিশের এ কর্মকর্তা বলেন, 'বোম ডিসপোজাল ইউনিট একটি বিস্ফোরণের মাধ্যমে ওই বোমগুলো নিষ্ক্রিয় করতে সক্ষম হয়। এ সময় বিকট শব্দ হয়। সেখানে মোট পাঁচটি অক্ষত বোম ছিল।'

তিনি আরও বলেন, 'বোমা নিষ্ক্রিয়ের পর তার কিছু অংশবিশেষ বোম ডিসপোজাল ইউনিট সংগ্রহ করে নিয়ে গেছে। পরবর্তীতে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে জানানো হবে এগুলো কি ধরনের বোমা ছিল।'

উল্লেখ্য, এর আগে রাজধানীর খামারবাড়ি এলাকার কাছাকাছি দুই জায়গা থেকে বোমা সদৃশ বস্তুর সন্ধান পায় পুলিশ।

আরও পড়ুন: রাজধানীতে বোমা সদৃশ বস্তু উদ্ধার

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র