Alexa

‘সুরভি’র বাহিরে ঠিক, ভেতরে ভুল

‘সুরভি’র বাহিরে ঠিক, ভেতরে ভুল

রংপুরের সুরভি উদ্যানের নামফলকে লেখা ভুল বানান ‘সুরভী’/ ছবি: বার্তা২৪.কম

রংপুর মহানগরীর প্রাণকেন্দ্রে অবস্থিত কালেক্টরেট সুরভি উদ্যান। ১৯৯০ সালে প্রতিষ্ঠিত এই উদ্যানটির নামের ভুল বানান সেখানে আগত দর্শনার্থী ও স্থানীয়দের বিভ্রান্ত করছে নিয়মিত।

দীর্ঘ ২৮ বছর ধরে বানান বিভ্রাটে ভুগছে সবুজ শ্যামলে ঘেরা এ উদ্যান। বিভিন্ন সময় জেলা প্রশাসন বানান শুদ্ধিকরণ প্রচেষ্টা দেখালেও এখনো ভুল থেকে রেহাই মেলেনি। এতে করে বানান বিভ্রাটে বিভ্রান্ত হচ্ছেন উদ্যানে আসা দর্শনার্থীরা।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Mar/07/1551978359712.jpg

সম্প্রতি রংপুর জেলা প্রশাসন এই উদ্যানের প্রবেশ ফটকে একটি নতুন ডিজিটাল সাইনবোর্ড লাগিয়েছেন। সাইন বোর্ডের লেখার সাথে ভেতরের মিল নেই। বাহিরে সুরভি লেখা থাকলেও ভেতরে সবখানেই রয়েছে সুরভী (যার অর্থ- গাভী)।

উদ্যানের ভেতরে লাগানো নাম ফলক, নির্দেশনা বোর্ড, গণশৌচাগারের সাইনবোর্ডজুড়ে লেখা আছে সুরভী (গাভী) উদ্যান।

২৮ বছর ধরে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ নামের বানান ভুল করে যাচ্ছেন বলে অভিযোগ করেন শরিফুল ইসলাম নামের স্থানীয় এক দর্শনার্থী। তিনি বলেন, 'উচ্চারণ একই রকম হলেও, অর্থ তো এক নয়। বাইরে সুরভি ঠিক কিন্তু ভেতরে ভুল। এটা দুঃখজনক।'

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Mar/07/1551978385937.jpg

সম্প্রতি শিশুদের খেলার জন্য নতুন নতুন রাইডস সংযোজন আর সংস্কারে গাছ-গাছালি ভরা সুরভি উদ্যানে আধুনিকতার ছোঁয়া লেগেছে। দর্শনার্থী ও শিশুদের জন্য নতুন রুপে সাজানো হয়েছে এই উদ্যান। 

নির্মাণ করা হয়েছে শাপলা ফুলের ফোয়ারা, গোলঘর, ওয়াকওয়ে, বসার স্থান ও অত্যাধুনিক গণশৌচাগার। নতুন এসবের আকর্ষণে এখন দর্শনার্থীর আনাগোনা বেড়েছে উদ্যানে।

সুরভি উদ্যানের প্রাণবন্ত এই চিত্র দেখে আনন্দিত সাহিত্যক ও গবেষক প্রফেসর মোহাম্মদ শাহ্ আলম। প্রবীণ এই লেখক বলেন, 'শিশুদের কথা চিন্তা করে রংপুর জেলা প্রশাসন ও বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ড সুরভি উদ্যানকে পরিপাটি করে সাজিয়েছে। এর জন্য জেলা প্রশাসনের প্রতি কৃতজ্ঞতা। তবে সুরভি লিখতে যে ভুল, শিশু-কিশোরসহ দর্শনার্থীর চোখে এড়িয়ে যাচ্ছে না, এটা দ্রুত সংশোধন করা দরকার।'

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Mar/07/1551978409485.jpg

রংপুর পুলিশ লাইন্স স্কুল এন্ড কলেজ সংলগ্নে কালেক্টরেট সুরভি উদ্যানের অবস্থান। ১৯৯০ সালে তৎকালীন জেলা প্রশাসক এ.এস.এম মোবাইদুল ইসলাম উদ্যান নির্মাণ কাজের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন।

১৯৯৮ সালে উদ্যানকে সবুজের সমারোহে সাজাতে বৃক্ষ রোপন ও সৌন্দর্যবর্ধন করেন জেলা প্রশাসক মোয়াজ্জেম হোসেন। অযন্ত অবহেলায় দর্শনার্থীরা উদ্যান বিমুখ হলে ২০১৪ সালে নতুন ফটক নির্মাণ ও শিশুদের খেলা সামগ্রী সংযোজন করেন ঐ সময়কার জেলা প্রশাসক ফরিদ আহাম্মদ।

পরবর্তীতে এই উদ্যানের উন্নয়নে ভূমিকা রাখেন সাবেক জেলা প্রশাসক মোঃ রাহাত আনোয়ার ও মুহাম্মদ ওয়াহিদুজ্জামান। তাদের সময়ে ২০১৬ ও ২০১৭ সালে সুরভি উদ্যানে ব্যাপক উন্নয়ন হয়। বর্তমানে বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ডের সহায়তায় ও রংপুর জেলা প্রশাসনের ব্যবস্থাপনায় সুরভি উদ্যানটিকে আকর্ষণীয় উদ্যানে পরিণত করা হয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন :