Alexa

বই পড়ে পুরস্কার পেলো ১৫০০ শিক্ষার্থী

বই পড়ে পুরস্কার পেলো ১৫০০ শিক্ষার্থী

রাজশাহীতে বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্রের বই পড়ে, প্রশ্নের উত্তর দিয়ে পুরস্কার হিসেবে পেয়েছে বই/ ছবি: বার্তা২৪.কম

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম

বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্রের বই পড়ে পুরস্কার পেলো রাজশাহীর প্রায় দেড় হাজার শিক্ষার্থী। বই পড়া শেষে পরীক্ষা দিয়ে ফলাফলের ভিত্তিতে তারা পুরস্কার হিসেবেই বই-ই পেল।

গত বছরের বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্রের স্কুলপর্যায়ে বইপড়া কার্যক্রমে অংশ নিয়েছিল রাজশাহী মহানগরীর ৩৫টি স্কুলের এসব শিক্ষার্থী।

শুক্রবার (৮ মার্চ) সকালে রাজশাহী শিক্ষাবোর্ড সরকারি মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজ প্রাঙ্গণে আয়োজন করা হয় বর্ণাঢ্য পুরস্কার বিতরণী উৎসব। অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে ছিলেন প্রখ্যাত কথাসাহিত্যিক হাসান আজিজুল হক।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Mar/08/1552050485398.jpg

হাসান আজিজুল হক বলেন, ‘লাইব্রেরি হলো জ্ঞানের সমুদ্র। পৃথিবীর বিখ্যাত সব মনীষীর চিন্তারাশি সমুদ্রের সুবিশাল জলের ন্যায় লাইব্রেরিতে আবদ্ধ থাকে। বই থেকে পাওয়া জ্ঞান আমাদের নিজেদের মধ্যে ধারণ করে আগামীতে দেশ ও সমাজের কাজে লাগাতে হবে। দেখবে, একদিন সত্যি সত্যিই বাংলাদেশ আলোকিত হবে।’

উপস্থিত ছিলেন দুই বার এভারেস্ট বিজয়ী একমাত্র বাংলাদেশি এমএ মুহিত। তিনি শিক্ষার্থীদের এভারেস্ট বিজয়ের গল্প শোনান। মুহিত বলেন, ‘প্রত্যেক মানুষের ভেতরেই একটা করে এভারেস্ট আছে, আর এই এভারেস্টটা হলো তার স্বপ্ন। তাই চেষ্টা করলে প্রত্যেকেই স্বপ্নের এভারেস্ট জয় করতে পারে।’

অনুষ্ঠানের অভিনেতা খায়রুল আলম সবুজ শিক্ষার্থীদের বলেন, ‘আলোকিত মানুষ হতে হলে সৎ হওয়ার কোনো বিকল্প নেই।’

টেলিভিশন ব্যক্তিত্ব আব্দুর নূর তুষার বলেন, ‘তোমরা যাই হতে চাও না কেন, তার জন্য অবশ্যই চেষ্টা থাকতে হবে। তাহলেই সফল হওয়া সম্ভব।’

বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্র জানায়, বইপড়া কর্মসূচিতে ২০১৮ সালের প্রথমেই রাজশাহী নগরীর ৩৫টি স্কুলের প্রায় চার হাজার শিক্ষার্থীকে সদস্য করা হয়। জানুয়ারি থেকে অক্টোবর পর্যন্ত তাদের মোট ১৬টি বই পড়তে দেওয়া হয়। পড়া শেষে নেওয়া হয় একটি পরীক্ষা। ঐ পরীক্ষার ফলাফলের ভিত্তিতে এক হাজার ৪১৮ জন শিক্ষার্থীকে দেওয়া হলো পুরস্কার।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Mar/08/1552050509681.jpg

পরীক্ষায় ১৬টি বই থেকে দুটি করে প্রশ্ন থাকে। ফলে ফলাফলেই বোঝা যায়, কে কয়টি বই পড়েছে। যারা সাতটি বই পড়েছে তাদের স্বাগত পুরস্কার আর ১৬টি বই পড়লে পেয়েছে সেরা পাঠক পুরস্কার। 

পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের রাজশাহী অঞ্চলের পরিচালক অধ্যাপক আব্দুল মান্নান, বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্রের নাটোর শাখার সংগঠক অধ্যাপক অলক মৈত্র, রাজশাহী শিক্ষাবোর্ড স্কুলের অধ্যক্ষ তাইফুর রহমান, বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্রের রাজশাহী শাখার পূর্বতন সংগঠক ও নাগরিক অধিকার কর্মী আহমেদ সফিউদ্দিন প্রমুখ।

জাতীয় এর আরও খবর