Alexa

বিক্রয় ডটকমে বিজ্ঞাপন, কৌশলে মোটরসাইকেল ছিনতাই

বিক্রয় ডটকমে বিজ্ঞাপন, কৌশলে মোটরসাইকেল ছিনতাই

ছবি: বার্তা২৪.কম

বিক্রয় ডটকমে দুই লাখ পঞ্চাশ হাজার টাকা মূল্যের মোটরসাইকেল বিক্রির বিজ্ঞাপন দিয়েছিলেন আল-আমিন। ওই বিজ্ঞাপন দেখে ক্রয় নাটক সাজিয়ে প্রতারণার মাধ্যমে মোটরসাইকেলটি ছিনতাই করে নেয় একটি চক্র। সেই ছিনতাইকারী চক্রের তিন সদস্যকে গ্রেফতার করে মোটরসাইকেলটি উদ্ধার করেছে পুলিশ।

শনিবার (৯ মার্চ) বিকেলে সংবাদ সম্মেলন করে এ তথ্য জানান রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের হাজীরহাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) একেএম নাজমুল কাদের।

ওসি জানান, আল-আমিন তার ব্যবহৃত লাল রঙের ১৫০ সিসি ইয়ামাহা আরফিপটিন মোটরসাইকেলটি বিক্রির জন্য বিক্রয় ডটকমে একটি বিজ্ঞাপন দেন। সেই বিজ্ঞাপন দেখে প্রতারক চক্রের সাকিব নামে এক সদস্য আল-আমিনের সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগ করে মোটরসাইকেলটি ক্রয়ের আগ্রহ প্রকাশ করে গত ২৮ জানুয়ারি মুচির মোড় হজ প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের সামনে ডেকে নেন।

সেখানে উভয়ে আলাপচারিতা শেষে ট্রায়াল দেওয়ার কথা বলে সাকিব নিজে সামনে বসেন এবং আল-আমিনকে পেছনে নিয়ে মোটরসাইকেলটি চালিয়ে হাজীরহাট থানা মোড়ে পৌঁছে মামাকে ফোন দেয়ার কথা বলেন। এ সময় আল-আমিন গাড়ি থেকে নেমে পড়েন এবং তার ব্যবহৃত মোবাইল ফোনটি সাকিবকে কথা বলার জন্য হাতে দেন। সুযোগ বুঝে মোবাইল হাতে নিয়ে দ্রুত গতিতে সেখান থেকে মোটরসাইকেল নিয়ে পালিয়ে যান সাকিব।

নাজমুল কাদের জানান, ওই ঘটনায় বাদী আল-আমিন ৮ মার্চ হাজীরহাট থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। সেই মামলার সূত্র ধরে রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মোহাম্মদ আবদুল আলীম মাহমুদ বিপিএমের (সেবা) নির্দেশনায় ও অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (অপরাধ) মো. শহিদুল্লাহ কাওছার পিপিএমের (সেবা) সার্বিক তত্ত্বাবধানে এবং সিনিয়র সহকারী পুলিশ কমিশনার (পরশুরাম জোন) শেখ মো. জিন্নাহ আল মামুনের নেতৃত্বে পরশুরাম থানার সমন্বয়ে ছিনতাই চক্রের সক্রিয় সদস্য লাভলু মিয়া ওরফে সাকিব (২৩), রাকিব রেদওয়ান মির্ম্ময় (২০) ও মাহবুব আলম রিপনকে (৪০) মোটরসাইকেলসহ গ্রেফতার করা হয়।

পরে তাদের স্বীকারোক্তিতে বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে ছিনতাই হওয়া আরও চারটি মোটরসাইকেল সহ মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়। গ্রেফতার হওয়া তিনজনের মধ্যে দুইজন রংপুরের এবং একজন নীলফামারীর সৈয়দপুরের বাসিন্দা।

আপনার মতামত লিখুন :