Barta24

বুধবার, ১৭ জুলাই ২০১৯, ২ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

আদ্-দ্বীন হাসপাতালে স্ত্রীরোগ বিভাগে বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা

আদ্-দ্বীন হাসপাতালে স্ত্রীরোগ বিভাগে বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা
ছবি: বার্তা২৪
স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

আদ্-দ্বীন ব্যারিস্টার রফিক-উল হক হাসপাতালে মাসব্যাপী ধাত্রীবিদ্যা ও স্ত্রীরোগ বিভাগে বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা দেওয়া হবে। আগামী ১৬মার্চ থেকে এ সেবা কার্যক্রম শুরু হবে। প্রতিদিন সকাল ৮টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত এ সেবা নেওয়া যাবে। আগামী ১৬ এপ্রিল পর্যন্ত এ সেবা চালু থাকবে।

রাজধানী পোস্তগোলা জুরাইন বালুর মাঠ অবস্থিত এ হাসপাতালে বহির্বিভাগের মাধ্যমে গর্ভবতী মায়েদের চেকআপ, স্বাভাবিক ডেলিভারি সেবা, সিজারিয়ান ও ডেলিভারি সংক্রান্ত অপারেশনসহ স্ত্রীরোগ সংক্রান্ত অন্যান্য চিকিৎসা সেবা দেওয়া হবে। এ সময় ভর্তি হওয়া রোগীদের পরীক্ষা-নিরীক্ষা ও থাকা খাওয়ার খরচ হাসপাতাল বহন করবে। নামমাত্র মূল্যে রেজিস্ট্রেশন করে গর্ভবতী মায়েরা এ সেবা গ্রহণ করতে পারবেন।

আদ্-দ্বীন ব্যারিস্টার রফিক-উল হক হাসপাতালের পরিচালক ডা. মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর বলেন, 'আদ্ দ্বীন এর ব্রতকে সামনে রেখে আমরা সেবা কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছি। সমাজের সুবিধাবঞ্চিত থেকে শুরু করে সকল পর্যায়ের মানুষ আমাদের সেবা গ্রহণ করছে। আমরা এ বছর পরিকল্পিতভাবে বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা দিয়ে যাচ্ছি।'

উল্লেখ্য, গোটা বছর জুড়ে বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা কার্যক্রমের অংশ হিসেবে গত বছরের ১৫ ডিসেম্বর থেকে চলতি বছরের ১৫ জানুয়ারি পর্যন্ত বিনামূল্যে চোখের চিকিৎসা ও ছানি অপারেশন করা হয়। এতে প্রায় চার হাজার রোগীর বহির্বিভাগে চিকিৎসা সেবা দেওয়া হয়। এ সময় ৪৮৮জন রোগীর বিনামূল্যে চোখের ছানি অপারেশন করা হয়।

গত ১৫ জানুয়ারি থেকে ১৫ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত মাসব্যাপী বিনামূল্যে ফিজিওথেরাপি দেওয়া হয়। এতে ৩০৮২ জন ফিজিওথেরাপি সেবা গ্রহণ করে। এছাড়াও ১৬ ফেব্রুয়ারি থেকে ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত বিনামূল্যে নাক-কাল-গলা রোগীদের বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা দেওয়া হয়। এতে ১১১০ জন রোগী সেবা গ্রহণ করে। এর মধ্যে ৭৫ জনকে অপারেশনের জন্য বাছাই করা হয়। ইতোমধ্যে ৫০জনকে অপারেশন করা হয়েছে। এছাড়াও অন্যদের অপারেশন চলমান রয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন :

কুমিল্লা বোর্ডে জিপিএ-৫ দ্বিগুণ বেড়েছে

কুমিল্লা বোর্ডে জিপিএ-৫ দ্বিগুণ বেড়েছে
কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডের ফলাফল জানান পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক ড. মো. আসাদুজ্জামান, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর

এবারের এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষার কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডে জিপিএ-৫ পেয়েছেন দুই হাজার ৩৭৫ জন। গতবার পেয়েছিলেন ৯৪৪ জন।

বুধবার (১৭ জুলাই) দুপুরে শিক্ষা বোর্ডের সম্মেলন কক্ষে বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক ড. মো. আসাদুজ্জামান সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানান।

তিনি বলেন, এবার কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডের অধীনে ফেনী, নোয়াখালী, লক্ষ্মীপুর, চাঁদপুর, ব্রাহ্মণবাড়িয়া ও কুমিল্লার জেলার ১ হাজার ৩৮৮টি কলেজের ৯৪ হাজার ৩৬০ জন পরীক্ষার্থী ছিল। উত্তীর্ণ হয়েছে ৭৩ হাজার ৩৫৮ জন। এদের মধ্যে ছাত্র ৩৩ হাজার ৩৩২জন এবং ছাত্রী ৪০ হাজার ২৬ জন।

জিপিএ-৫ পেয়ে উত্তীর্ণ হয়েছেন ২ হাজার ৩৭৫ জন পরীক্ষার্থী। এর মধ্যে ছাত্র ৯৯১ ছাত্রী ১ হাজার ৩৮৪ জন। গত বছরও জিপিএ-৫ এ মেয়েরা ছিল এগিয়ে। ছেলেদের মধ্যে জিপিএ-৫ পেয়েছে ৪৬১ জন। মেয়েরা পেয়েছে ৪৮৩ জন।

আরও পড়ুন: পাসের হারে এগিয়ে কুমিল্লা বোর্ড, পিছিয়ে চট্টগ্রাম

রিমান্ডে নেওয়া হতে পারে মিন্নিকে

রিমান্ডে নেওয়া হতে পারে মিন্নিকে
আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নি

স্বামী রিফাত শরীফ হত্যা মামলায় সংশ্লিষ্টতা পাওয়ায়  আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নিকে গ্রেফতার করেছে বরগুনা জেলা পুলিশ। মঙ্গলবার (১৬ জুলাই)  দিনভর জিজ্ঞাসাবাদের পর রাত ৯ টায় তাকে গ্রেফতার করা হয়।

এদিকে বুধবার (১৭ জুলাই) বিকেল ৩ টায় তাকে আদালতে নেওয়া হবে বলে বার্তাটোয়েন্টিফোর.কমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেন বরগুনা জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার তোফায়েল আহমেদ।

তোফায়েল আহমেদ বলেন, যেহেতু প্রাথমিকভাবে রিফাত হত্যায় মিন্নির সংশ্লিষ্টতা পাওয়া গেছে তাই তাকে আরও জিজ্ঞাসাবাদের প্রয়োজন আছে। ওই আলোচিত ঘটনায় তার সংশ্লিষ্টতা কতটুকু তা জানা প্রয়োজন। এজন্য আমরা আদালতের কাছে মিন্নির ৭ দিনের রিমান্ড আবেদন করব।

এর আগে মঙ্গলবার সকাল ১০ টায় শহরের ২ নম্বর ওয়ার্ডের দক্ষিণ মাইঠা এলাকার বাড়ি থেকে মিন্নি ও তাঁর মাকে পুলিশ লাইনসে আনা হয়। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তাকে আনা হয়েছে বলে জানিয়েছিল পুলিশ। ওইদিন রাতেই তাকে গ্রেফতার দেখায় পুলিশ।

২৬ জুন বরগুনা সরকরি কলেজের সামনে প্রকাশ্যে রিফাত শরীফকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। হত্যাকাণ্ডের পরদিন রিফাতের বাবা আবদুল হালিম শরীফ বরগুনা থানায় ১২ জনকে আসামি করে একটি মামলা করেন। এ মামলার প্রধান আসামি সাব্বির আহম্মেদ ওরফে নয়ন বন্ড ২ জুলাই পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে নিহত হন। মামলার এজাহারভুক্ত ছয় আসামি সহ ১৩ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাঁদের মধ্যে ১০ জন আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছেন। মামলা দুই নম্বর আসামি রিফাত ফরাজীসহ বাকি তিন আসামি এখনও রিমান্ডে আছেন।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র