Alexa

স্বাধীনতা দিবসের আলোচনা সভায় প্রধানমন্ত্রী

বঙ্গবন্ধুর মতো নেতা ছিলেন বলে মিত্রবাহিনী ফিরে গেছে

বঙ্গবন্ধুর মতো নেতা ছিলেন বলে মিত্রবাহিনী ফিরে গেছে

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা/ ছবি: বাসস

মুক্তিযুদ্ধ শেষে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের দেশে ফেরার প্রেক্ষাপট তুলে ধরে  আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘১০ মার্চ দেশে ফিরে সবচেয়ে বড় কাজ- ভারতীয় মিত্রবাহিনী, যারা কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে আমাদের বাংলাদেশের মুক্তিযোদ্ধাদের সাথে যুদ্ধ করেছিলেন, আমাদের দেশকে শত্রুমুক্ত করেছিলেন, যাদের কাছে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী আত্মসমর্পণ করেছিল, সেই মিত্র বাহিনীকে স্বদেশে ফেরত পাঠালেন।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘পৃথিবীর ইতিহাসে যত দেশে বিপ্লব হয়েছে, মুক্তিযুদ্ধ হয়েছে, মিত্রবাহিনী গেছে সহায়তা করতে, কোনো দেশ থেকে মিত্র বাহিনী ফেরত যায়নি। বাংলাদেশ একমাত্র ব্যতিক্রম।’

বুধবার (২৭ মার্চ) বিকালে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত এক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন। মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ আলোচনা সভাটি আয়োজন করে।

মিত্রবাহিনীর ফিরে যাওয়াকে পৃথিবীর ইতিহাসে বিরল দৃষ্টান্ত হিসেবে অভিহিত করে সরকার প্রধান বলেন, ‘সেটা সম্ভব হয়েছে একমাত্র বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবের মত স্বাধীনচেতা নেতা ছিলেন বলে। পাশাপাশি ভারতের তখনকার প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধীও খুব স্বাধীনচেতা ছিলেন।’

‘বঙ্গবন্ধু যখনই তাঁর (ইন্দিরা গান্ধী) কাছে প্রস্তাব দিয়েছেন যে, আপনি আপনার সেনাবাহিনী কখন ফেরত নেবেন? তিনি বলে দিয়েছেন, যখনি বলবেন তখনি ফেরত যাবে। এটা পৃথিবীর ইতিহাসে একটা বিরল দৃষ্টান্ত।’

যুদ্ধের পর বিধ্বস্ত বাংলাদেশ গড়ে তুলতে বঙ্গবন্ধুর গৃহীত বিভিন্ন কর্মকাণ্ডের কথা তুলে ধরেন আওয়ামী লীগ সভাপতি। 

আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক ও তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ এবং উপ-প্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলামের যৌথ সঞ্চালনায় সভায় আরও বক্তব্য দেন কেন্দ্রীয় কমিটির উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য আমির হোসেন আমু, সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য বেগম মতিয়া চৌধুরী, শেখ ফজলুল করিম সেলিম,  মোহাম্মদ নাসিম, কর্নেল (অব.) ফারুক খান, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ, ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সভাপতি একেএম রহমত উল্লাহ, দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল হাসনাত প্রমুখ।

আপনার মতামত লিখুন :